English Version   
আজ বৃহস্পতিবার,২৫শে মে, ২০১৭ ইং, ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৮শে শাবান, ১৪৩৮ হিজরী

চট্টগ্রামে বিএনপির সম্ভাব্য সংসদ সদস্য প্রার্থীরা তৎপর

মে ১৮, ২০১৭ ১০:১২ অপরাহ্ণ

 

শীর্ষ খবর:

বিশেষ প্রতিবেদক : আগামী বছরের শুরুতেই জাতীয় নির্বাচন হতে পারে -এমনটাই ধারণা রাজনীতিকদের। তাই দেশজুড়ে রাজনৈতিক দলগুলোতে নির্বাচনী ইমেজ বইতে শুরু হয়েছে। বিশেষ করে বড় রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে নির্বাচনী হিসেব নিকেশ শুরু হয়েছে। এক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই আন্দোলন-সংগ্রামের সূতিকাগার হিসেবে পরিচিত চট্টগ্রামও।

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রূপকল্প ২০৩০ ঘোষণার পর থেকেই তাদের দূর্গে এই আমেজের মাত্রা খানিকটা বেড়েই গেছে। চলছে আগামী একাদশ জাতীয় নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থীদের নাম নিয়ে জল্পনা-কল্পনা। এবারের নির্বাচনে নতুন-পুরাতন প্রার্থীর সমন্বয় ঘটবে বলে জানা যায়।

বিএনপির একাধিক সূত্রে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চট্টগ্রাম -১ আসন, স›দ্বীপে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় রয়েছেন সাবেক এমপি মোস্তফা কামাল পাশা,শিল্পপতি আবুল কাসেম হায়দার ও আমেরিকা প্রবাসী মোস্তফা কামাল পাশা বাবুল ।

এদের মধ্যে সাবেক এমপি মোস্তফা কামাল পাশার মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি। মীরসরাই আসনের সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় রয়েছেন এমডি কামাল উদ্দিন ও ডঃ এম এম এমরান চৌধুরী ও মুক্তিযোদ্ধা মনিরুল ইসলাম। এ আসনে এমডি কামাল উদ্দিনের মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি।
সীতাকুন্ড আসনে রয়েছেন-আসলাম চৌধুরী। মোসাদের সাথে বৈঠকের অভিযোগে বর্তমানে তিনি জেলে রয়েছেন। তাছাড়া তিনি প্রায় ১৫’শ কোটি  টাকার ঋণ খেলাপি। এ পরিস্থিতিতে আগামী নির্বাচনের আগে মুক্তি না মিললে এ ক্ষেত্রে এল কে সিদ্দিকীর ছোট ভাই সাবেক সচিব ও আইজিপি এওয়াইবিআই সিদ্দিকী মনোনয়ন পেতে পারেন।

তবে ৫ জানুয়ারির একতরফা নির্বাচনে মিরসরাইয়ে ব্যাপক নাশকতা সৃষ্টি ও অর্থ ব্যয় করে আসলাম চৌধুরী দলের  হাই কমান্ডের মনজয় করেন। তাছাড়া এখনো তিনি বিএনপি চেয়ারপার্সনের গুলশান অফিস ও দলের নয়াপল্টস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয় যারা  নিয়ন্ত্রন করেন তাদের পেছনে বিপুল অর্থ ব্যয় করেন। ফলে আইনি সমস্যা না থাকলে এখানে তিনিই মনোনয়ন পাবেন এটা অনেকটা নিশ্চিত।
ফটিকছড়ি থেকে সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর স্ত্রী ফরহাদ কাদের চৌধুরী ও কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা কাদের গণি চৌধুরীর নাম শোনা যাচ্ছে। ফটিকছড়ি বিএনপিতে নেতৃত্ব শূণ্যতার কারণে এর আগে রাউজান থেকে গিয়ে যুদ্ধাপরাধ মামলায় ফাঁসিতে দন্ডিত সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে মনোনয়ন দেয়া হয়। সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ফাঁসি হওয়ায় তার পরিবার এখন রাজনৈতিকভাবে কোণঠাসা অবস্থায় আছেন। তাছাড়া ফটিকছড়ি বিএনপিও এবার কোনো অতিথিকে মনোনয়ন দেয়া হোক সেটা চাচ্ছেনা। তাই এ ক্ষেত্রে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক, বিএনপির কেন্দ্রীয় তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সহ- সম্পাদক কাদের গনি চৌধুরীর মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বিশেষ করে এখানকার তরুনরা তাকে পেয়ে বেশ উজ্জীবিত।

হাটহাজারী আসনে সাবেক এমপি ও মন্ত্রী মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন, তার ছেলে ব্যারিষ্টার মীর হেলাল, সৈয়দ ওয়াহিদুল আলমের মেয়ে ব্যারিষ্টার শাকিলা ফারজানা  চাকসু সাবেক জিএস ব্যবসায়ী নেতাএসএম ফজলুল হক ও চাকসুর  সাবেক ভিপি নাজিম উদ্দিনের মধ্য থেকে কেউ একজনের মনোনয়ন পাওয়ার  সম্ভাবনা রয়েছে। তবে  জোটগত   নির্বাচন হলে এ আসন থেকে মেজর জেনারেল (অবঃ) ইব্রাহিম মনোনয়ন পেতে পারেন। হাটহাজারীতে  এখন প্রচন্ড দলীয় কোন্দল। এটা মেটাতে না পারলে দলের বাইরে ২০দলীয় জোটের শীর্ষ নেতা হিসেবে জেনারেল ইব্রাহীমের ভাগ্য খুলে যেতে পারে। তবে দলীয়ভাবে মনোনয়ন দৌঁড়ে ব্যারিস্টার মীর হেলাল এগিয়ে আছে। তিনি হাটহাজারীতে তরুনদের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন।
রাউজান আসনে দলের ভাইস চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা গোলাম আকবর খোন্দকারের নাম শুনা যাচ্ছে। এখানে গিয়াস কাদের চৌধুরীর মনোনয়ন অনেকটা নিশ্চিত।  এ আসনে বিজয় কঠিন হতে পারে ভেবে গিয়াস কাদের চৌধুরী রাউজান আসন হুম্মাম কাদের চৌধুরীকে দিয়ে রাঙ্গুনিয়া থেকে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চান। তবে চৌধুরী পরিবারের বিশ্বস্থরা জানান, হুম্মাম রাঙ্গুনিয়া আসন থেকে নির্বাচন করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছেন।

এদিকে বোয়ালখালীতে এম মোরশেদ খান, আনোয়ারা কর্ণফুলীতে সরোয়ার জামাল নিজাম ও জালাল উদ্দিন আহমেদ, পটিয়ায় এনামুল হক এনাম,চন্দনাইশে জোটগত নির্বাচন হলে এলডিপির চেয়ারম্যান কর্নেল অলি আহমদ বীরবিক্রমই হবেন একক প্রার্থী। তা না হলে নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন অথবা ডা. মহসিন জিল্লুর রহমান মনোনয়ন পেতে পারেন।

সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনে সাতকানিয়া বিএনপির সভাপতি আবদুল গাফফার চৌধুরী অথবা গার্মেন্ট ব্যবসায়ী নাজমুল মোস্তফা আমিন মনোনয়ন পেতে পারেন। বাঁশখালী আসনে সাবেক এমপি ও মন্ত্রী জাফরুল ইসলাম চৌধুরী অথবা ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী মহসিন মনোনয়ন লাভের সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া এই আসনে গন্ডামারার ইউপি চেয়ারম্যান লিয়াকত আলীর নামও জল্পনা চলছে।

এদিকে চট্টগ্রাম নগরীর তিন আসনের মধ্যে বাকলিয়া – কোতোয়ালী আসনে বিএনপির একক প্রার্থী হিসেবে ডা. শাহাদাত হোসেন মনোনয়ন লাভের সম্ভাবনা রয়েছে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে। খুলশী-পাঁচলাইশ আসনে আবদুল্লাহ আল নোমান ও বন্দর-পতেঙ্গা আসনে আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী একক মনোনয়ন লাভ করবেন বলে জানা যায়।

বিএনপির দলীয় সূত্রে জানাযায় ক্লিন ইমেজের নেতাদের এবার মনোনয়নে অগ্রাধিকার দেয়া হবে। তাছাড়া অর্ধেক আসনে তরুন ও মেধাবীরা মনোনয়ন পাবেন। এক্ষেত্রে যাদের নির্বাচনী ব্যয় মেটানোর সামর্থ্য নেই তাদের নির্বাচনী খরচ দল বহন করবে। দলীয় ফান্ড গঠনের জন্য ২০টি আসন শিল্পপতিদের ছেড়ে দেয়া হতে পারে।

জানাযায়,ইতোমধ্যে বিএনপির জেলা নেতাদের কাছে প্রতি আসনে তিনজন করে মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতার নাম কেন্দ্রে দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়া সাবেক ছাত্রনেতা ও সাবেক আমলাদেরও দুটি টিম কোন আসনে কার কি অবস্থা তা সরেজমিন ঘুরে এসে কেন্দ্রে রিপোর্ট দিচ্ছে।

Print Friendly
 
সংবাদটি পড়া হয়েছে 2296 বার
 
শীর্ষ খবর/আ আ

 

ফেইসবুক লাইকবক্স

 
 
 
 
 
 

সম্পাদকীয়

 
 
 
 
 
  • বাড়িতে যখন একা

    বাড়িতে একা একা নিজের মতো সময় কাটানোর সুপ্ত ইচ্ছা সবার মাঝেই আছে। কিন্তু সময় এবং সুযোগ কোনোটিই হাতের নাগালে আসে না বিধায়…... রবিবার, মে ২১, ২:৫৩:১৯

 
 
 
 
  • চেনা শহর

    সাইফুন্নেছা সানিয়া:বহুদিন পর চেনা শহরে অচেনা আমি— একা…... বুধবার, মে ২৪, ২:৫৮:৪৬

 

ক্যালেন্ডার

 
 
 

জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:


কপিরাইট ©২০১০-২০১৬ সকল সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত শীর্ষ খবর ডটকম

প্রধান সম্পাদক : ডাঃ আব্দুল আজিজ
পরিচালক বৃন্দ: সামছু মিয়া

ফোন নাম্বার: +447536574441
ই-মেইল: info.skhobor@gmail.com
ই-মেইল: info@sylheteralap.com