অসহায় পরিবারের কাছে পৌঁছে যাচ্ছে আফাজ উদ্দিন সরকার ফাউন্ডেশনের ঈদ উপহার

Pub: Saturday, May 23, 2020 11:59 PM
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্টাফ করেসপন্ডেট, ময়মনসিংহ :

ঈদুল ফিতরে প্রতিটি পরিবারের মুখে হাসি ফোটাতে প্রতিবারের ন্যায় এ বছরেও ঈদ উপহার সামগ্রী ময়মনসিংহ সদরের প্রান্তিক পর্যায়ের দরিদ্র অসহায় পরিবারের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে আকুয়া ইউনিয়নের সফল চেয়ারম্যান ও ময়মনসিংহ চেয়ারম্যান সমিতির সভাপতি প্রয়াত আফাজ উদ্দিন সরকার স্মরণে সমাজের অবহেলিত মানুষের পাশে থাকার প্রত্যয়ে আলহাজ্ব আফাজ উদ্দিন সরকার ফাউন্ডেশনের ব্যানারে কাজ করে যাচ্ছে ময়মনসিংহে বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা, গণমানুষের নেতা, আলহাজ্ব অধক্ষ্য মতিউর রহমানের ভাতিজা ও প্রয়াত আফাজ উদ্দিন সরকারের সুযোগ্য সন্তান ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের সফল সাধারণ সম্পাদক সরকার মোঃ সব্যসাচী।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণে দেশ যখন ঘরবন্দী। কর্মহীন মানুষ তখন নিরুপায়। পড়েছে খাদ্য সংকটে। ঠিক সে সময় বর্তমান সরকার অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে নিজের সবটুকু নিয়ে। একইসাথে নিজ দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ প্রদান করেন অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর। সে নির্দেশনা থেকেই গত একমাস যাবত অসহায় দরিদ্রদের খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছে আলহাজ্ব আফাজ উদ্দিন সরকার ফাউন্ডেশন।

ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মোহিত উর রহমান শান্তর সার্বিক সহযোগিতায় আফাজ উদ্দিন সরকার ফাউন্ডেশনের ব্যানারে সরকার মোহাম্মদ সব্যসাচী মাসব্যাপী খাদ্য সামগ্রী ও ঈদ উপহার প্রদান করেন। এ পর্যন্ত ফাউন্ডেশন থেকে প্রায় পনেরো শতাধিক মানুষকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

ফাউন্ডেশন থেকে শুধুমাত্র খাদ্য সামগ্রী বিতরণ নয়। নীরবে নিভৃতে বিভিন্ন মাদ্রাসা ও এতিম খানায় ইফতারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পবিত্র মাহে রমজানে এতিম ও অসহায় শিশুদের নিয়ে ইফতার করা হয়েছে প্রায় প্রতি রমজানেই।

আফাজ উদ্দিন সরকার ফাউন্ডেশনের সভাপতি সরকার মোঃ সব্যসাচী বলেন, ময়মনসিংহের প্রবাদ পুরুষ, গণমানুষের নেতা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের ভাতিজা হিসেবে খুব কাছ থেকে দেখেছি কি করে মানুষের পাশে থাকতে হয়, মানুষকে ভালবাসতে হয়। আমার চাচা অধ্যক্ষ মতিউর রহমান তার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবন শুধুমাত্র মানুষের কল্যাণেই নিবেদিত করেছেন। জীবনের শেষ বেলায় এসেও তিনি মানুষের কল্যাণে কাজ করছেন।

তিনি বলেন, চাচার পদাঙ্ক অনুসরণ করেই আমার প্রয়াত পিতা আলহাজ্ব আফাজ উদ্দিন সরকার তার জীবদ্দশায় মানুষের জন্য কাজ করে গেছেন। তিনি আকুয়া ইউনিয়নের বারবার নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন। দায়িত্ব পালনে একনিষ্ঠতা ও নিবেদিতপ্রাণ থাকায় তিনি পেয়েছিলেন শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান স্বর্ণপদক। যার সুচারু নেতৃত্ব আকুয়ার জনগণ পেয়েছিল একটি মডেল ইউনিয়ন। সেই পিতার নামে জনমানুষের কল্যাণে প্রতিষ্ঠিত হল আফাজ উদ্দিন ফাউন্ডেশন।

Hits: 29


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ