আজকে

  • ৭ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
  • ২১শে জুন, ২০১৮ ইং
  • ৬ই শাওয়াল, ১৪৩৯ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

একুশের বই মেলা:বাঙ্গালি জাতি সত্বার সন্ধান দেয়

Pub: বুধবার, মার্চ ৭, ২০১৮ ৭:৪০ অপরাহ্ণ   |   Upd: বুধবার, মার্চ ৭, ২০১৮ ৭:৪০ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

অাতাউর রহমান আফতাব :
একুশের মেলায় অামি বহুবার গিয়েছি। মূলত বাষ্ট্রভাষা বা;লা ভাষার দাবিকে প্রতিষ্টত করতে পাকিস্থানের ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করো ঢকার রাজপথে ছাত্র জনতা শাহাদত বরণ করে। বাঙ্গালি চেতনা ও ঔতিহ্যকে স্মরণ করতে গিয়ে মেলার অায়োজন করা হয় প্রতিবছর।

১৯৮৯ সনে অামা অারাম বাগ মেসে কিছুদিন ছিলাম।সেই সময় বা;লাএকাডেমি প্রাঙ্গনে ৫০/৬০ টি স্টল ছিলো। অনেকে মাটিতে ঘাসে বসে ষ্টল খুলেছে।

১৯৯৫ সনে অামি একবার মেলায় গিয়েছি, অামাদের বিশিষ্ট কবি, নিম’লেন্দু গুণ বেন করেছে তার কাব্যগ্রন্থ, ‘শিয়রে বা;লাদেশ ‘।

অত:পর ১৯৯৮ সনে অামি বই মেলায় গিয়েছি। সিলেট থেকো প্রকাশিত অামার ২য় কাব্য গ্রন্থ ‘বাউল বসতি’, প্রকাশ করে বন্ধুদেরকে উপহার দেই।

মনে পড়ে, ১৯৯৫ সনে অামি বা;লা একাডেমি প্রাঙ্গনে বই মেলায় গিয়েছি। নিম’লেন্দু গুণ তার কাব্যগ্রন্থ বের করেছে, ‘শিয়রে বা;লাদেশ’। উচ্ছল তরুণ তরুনী রা অানন্দ প্রকাশ বলছে, দোহাই, এত বড় বোঝা সেটা কিভাবে বইবে?
১৯৯৮ সনে অামার ২য় কাব্যগ্রন্থ, ‘বাউল বসতি’, প্রকাশিত হলে সব’মহলে গ্রন্থটি জনপ্রিয়তা অজ’ন করে। সিলেট থেকে প্রকাশিত বইটি রেডিও টিবিতে বহুল প্রচার লাভ করে। ২০০১ সনে তরফদার প্রকাশনি অামার প্রথম গল্প গ্রন্থ, ‘পানসি নৌকার ছেলে’ প্রকাশ করে। তখন লোকমান অাহম্মদ অাপন ঢাকায় অাবস্থান করছে। তার সহযোযিতায় গল্প গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্টানে প,ধান অতিথি ছিলেন কবি মহাদের সাহা। বন্ধু ঠোকন ঠাকুরের সতক’তায় তথ্যকেন্দ্রে বিটি যেন বাজি মাতকরে।

২০০৩ সনে অামার প্রবন্ধ গ্রন্থ ‘প্রকাশ করে, উৎস প্রকাশনি। তখন ও অামি বই মেলায় ছিলাম। ২০০৮ সনে উৎস প্রকাশনির ব্যানারে ‘শিক্ষণ’ প্রকাশ করে অামার ছড়াগ্রন্থ, ‘ষড় খতুর দেশে’। ইকবাল হোসোন বুল বুল ‘ ই;ল্যান্ড থেকে প্রকাশ করে। অামি তরুণ কবি স্নেহভাজন ইকবাল হোসেন বুলবুলকে শুভেচ্ছা ও অবিনন্দন জানাই। সেই সাথে উৎস প্রকাশনির মোস্তফা সেলিম কেও।

২০০৯ সনে প্রয়াত ডা: হামিদুজ্জামানের দটি বই প,কাশ করে অামি বই মেলায় যাই। অামা অত্যন্ত শ্রদ্ধা ও ভালবাসার সাথে ডা: হমিদুজ্জাান কে পরপারে সালাম জানাই। প্রার্থনা করি স্রষ্টার দরবারে। স্মরণিয় যে, ডা: হামিদুজ্জান ছিলেন, প্লাবন সাহিত্য গোষ্টির সৃষ্টি। দূরারোগ্য ক্যান্সার তার তরুণ জীবনকে কেড়ে নেয়।

এবার ২০১৮ সনে দীঘ’ ৯ বছর পরে অামি অামার ৮ম গ্রন্থ, পিকনিক বিষয়ক ফিচার গ্রন্থ ‘চলো/পিকনিক/করি’,প্রকাশ করতে ঢাকায় যাই। বইটি প,কাশ করে, সিলেটের বাসিয়া প্রকাশনি।

বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন, প্রিয়ভাজন, উৎস প্রকাশনির সত্বাধিকারি মোস্তফা সেলিম। অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন, মোসলেহ উদ্দিন বাবুল, লোকমান অাপণ, বিদ্যুত রঞ্জন দেব নাথ, সাইদুর রহমান সাইদ,অজিত রায় ভজন সহ বহু কবি-সাহিত্যিক।

প্রকাশনা অনুষ্টানে বিদ্যুত বাবুর দুটি বই প্রককাশিত হয়। তার উপন্যাস, ‘বিদায় সন্ধ্যাবেলা’ ও ‘যুদ্ধ ছিল লাল সবুজের ‘,ছড়া গ্রন্থ। অারো অনেক বই প্রশাক হয় সেদিন।

অামার প্রিয়ছাত্র মেহরাজ ঢাকা ভাসি’টিতে পড়ে। সে ২০ ও ২১ শে ফেব্রুয়ারি সারাদিন অামাদের সাথে ঘুরে ঘুরে ঢাকা ভাসি’টির বহু কিছু দেখায়। তার প্রতি ভালবাসা জানাই। অন লাইন, ‘শীষ’ খবরের প্রধান সম্পাদক ডা: অা;অাজিজ অাথি’ক অনুদান করায় অামি তান কাছে কৃতজ্ঞতা জানাই। নওয়াব অালি ওতার বাসিয়া প্রকাশনির উন্নতি কামনা করি। সকলকে অশেষ মোবারকবাদ ভালবাসা ও অভিনন্দন জানিয়ে লেখাটা সমাপ্ত করলাম।

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1155 বার

 
 
 
 
মার্চ ২০১৮
রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
« ফেব্রুয়ারি   এপ্রিল »
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
 
 
 
 
WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com