এক গুচ্ছ কবিতা—–

Pub: শুক্রবার, নভেম্বর ২, ২০১৮ ১১:১৭ পূর্বাহ্ণ   |   Upd: শুক্রবার, নভেম্বর ২, ২০১৮ ১১:৪৯ পূর্বাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

অাতাউর রহমান আফতাব
পাখির কল-কাকলি

স্বপ্নের মায়াময় মুগ্ধতায় স্তব্ধ হয়ে রই বহুদিন
বহু চেষ্টা করেও মোহমুক্তি হলো না
মুখ দিয়ে কথা ফুটলো না

মনে হলো বহুবার জীবনের গতি প্রকৃতি হারিয়ে যাবে,
দিনের সূয’ পূবা’কাশে হররোজই উদিত হয়,
পূর্ণিমা রাতের তারা অালোর ভূবণে
সারারাত ঝিকি মিকি করে

নির্বাক কেবল অামি
মানসিক কি বিকার, ডিসেম্বর এখন
বিজয়ের হাতছানিতে বা;লাদেশ জেগে উঠবে
অনুষ্টান অার মিছিলে একাকার হবে রাজপথ

চেতনার বিবণ’তা, ধূসরতায় অাচ্ছন্ন হয়ে পড়ি,
মধ্যপ্রাচ্যে স;ঘাত ও হানাহানির কোন অবসান ঘটাতে পারেনি
স্বৈরাচারি বুশের অভিযান প্রকৃতির কোলে

গেলো কবছর রাত্রি জাগরণের একটা নেশা ধরে বসেছিল,
মন্দ নয়, লেখালেখির একটা অকাট্য কিছু বেরিয়ে অাসবে
মনে হত

পরিবেশ ও সময় বদলায়,
অগ্রহায়ন শেষ হতে চললো
বেশ কদিন ধরে শীতের সাথে ঘন কুয়াশার পতনে প্রকৃতি কাঁথা মুড়ি দিচ্ছে

প্রকৃতি প্রেমিক মনটি অামার নেশাখোর, রাত্রি জাগরণের ধাঁধায় মাতাল হয়ে উঠে,
হাোর বাওর ভ্রমনের নেশাটাও পেয়ে বসে

সময়টা অপাথি’ব হয়ে উঠে
প্রকৃতির কোলে কোন বনপ্রান্তে,
কোন পাহাড়ের পাদদেশে
নিঝুম বনভোজনের অাকষ’ন দুবা’র হয়ে ওঠে
ভালোবাসার পায়রা

শীতের কনকনে নিরব অাক্রমনে জব্দ ছিল যে পায়রা বহুদিন তার দেয়ালের চৌসীমানায়,
ভেবেছিল তার যাত্রাপথ অার হবে না অবাধ
শীতের শিকল বুঝি খসবেনা,
মহাকাশের বুকে উন্মুক্ত হবেনা তার শুভ্র পালক

মুক্ত প্রকৃতির বুকে বহুদিন সে ডাকল না অার হৃদয় খুলে, সে এক ভালবাসার পায়রা
অামরা তো ভুলেই গেছি তার নৈমিত্তিক বাক-বাকুম ডাক

প্রকৃতির গতিপথে কচি-কাচাঁর মিলন মেলায় অকস্মাৎ খসে গেলো শীতের ক;কাল
সয়ের গতিপথে বসন্ত হিন্দোল

চোখ তুলে সে ভালোভাবে দেখে নিল মাটির পৃথিবীটাকে, শুভাশীষ জানালো বার বার সে তার চির চেনা প্রকৃতিটাকে
সে এক শান্তির পায়রা,
অত:পর ভীড়ে গেলো কোন অজানায় তার প্রিয়জনের সান্নিধ্যে

 

শীত অাসছে ধেয়ে

শীতকাল অসছে ধেয়ে
প্রকৃতিতে দেখা দেবে নিথর জীবনেন স্তবিরতা

ঘুমকাতুরে শীত দেহতন্ত্রকে অাষ্টে পৃষ্টে বেধে দেবে তার হিমশীতল বেড়ি দিয়ে বন্দিত্বের কারাগারে

সন্ত্রাস,বোমাবাজি অার অাত্মঘাতি হামলার এক হৃদয় বিদারক চিত্রাবলি অাজ চারিদিকে,
বা;লাদেশেও চলছে অামাতের চোখের সামনেই, বলতে হবে নাকের ডগায়

শীত অাসছে ধেয়ে সচল জীবন কে বার বার অচল করে দেবে,
প্রশ্ন জেগে ওঠে, শীত কি রুদ্ধ করে দেবে বোমাবাজি?
শীত কি রুদ্ধ করে দেবে স্বৈরাচারি বুশের ইরাক অাগ্রাসন?

হেমন্তের শেষলগ্নে প্রকৃতির বুকে শীতের মৃদুমন্ত অাল্পনা, সান্ধ্য বাতাসের খবর,
শীতকাল অাসছে ধেয়ে
বৃষ্টি এলো

বহু প্রতীক্ষা ও জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে বৃষ্টি এলো,
ভোর বেলা থেকেই ঢাকঁঢাক গুড়গুড়ঁ শব্দে বাতাস মুখরিত ছিল
সারারাত ব্যাঙ গুলি ঠ্যা; উচিয়ে ঘ্যযর ঘ্যাঙর শব্দে ডেকে গিয়ে ছিল,

জলাশয়ের ছোট ছোট মাছগুলি অধৈয’হয়ে লাফালাফি শুরু করে দিয়েছিল,
দুপুর রোদে বৃষ্টি কামনায় ক্লান্ত কৃষকের গায়েঁ ঘম’বিন্দু দেখা দিয়েছিল
তবুও বৃষ্টি এলো না

জনপ্রাণির সব অাহাজারি ও ব্যথ’তাকে উপেক্ষা করে মৌমুমি বাতাস একটা প্রবল ধাক্কা দিয়ে মেঘ খণ্ডগুলোকে নিয়ে গেলো
উত্তর পব’তের চূড়ায়

সান্ধ্যরাতে নিরব প্রকৃতির বুকে এভাবে যে হঠাৎ করে করে ঝম ঝম করে বৃষ্টি অাসবে তা অামাদের জানা ছিল না,
শ্যামল দৃশ্যপট থেকে কৃষক কখন যে উদাও কাঠাঁলতলীর হাটে,
ঝি ঝি পোকারাও নিরব, মহকাশের বুকে তখনো শুরু হয়নি নিহারিকা পুঞ্জের লুকোচুরি খেলা

দু একটা জোনাকি পোকার সরব উপস্থিতিতে ঝম ঝম করে এলো বৃষ্টি
অামাদের সব ব্যাথ’তা ও হাহাকারকে ধূয়ে মুছে দিয়ে ভাসিয়ে নিয়ে গেলো,
একটা শীতল প্রশান্তি ছেয়ে গেলো সমস্থ দৃশ্যপট
কবিতা গুলি ২০০৪ ও ২০০৫ সালের লেখা


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1027 বার