হজ্বে গিয়েও না’গঞ্জে নাশকতার মামলার আসামী হলেন বিএনপি’র ২ নেতা!

Pub: শুক্রবার, আগস্ট ৩১, ২০১৮ ৮:২৯ অপরাহ্ণ   |   Upd: শুক্রবার, আগস্ট ৩১, ২০১৮ ৮:২৯ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থানায় পুলিশের দায়রকৃত মিথ্যা নাশকতা ও বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় আসামী হয়েছেন হজ্বে করতে গিয়ে সৌদি আরবে অরস্থানরত উপজেলা বিএনপির সভাপতি খন্দকার আবু জাফর ও কাঁচপুর ইউনিয়ন বিএনপির সেক্রেটারী মোমেন খান। এ ছাড়া রূপগঞ্জ থানায় আরো একটি মিথ্যা মামলায় ঘটনাস্থলে না থেকেও আসামী হয়েছেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী ও জেলা কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আনোয়ার সাদাত সায়েম, সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুর রহমান, কাজী আহাদ, নুর মোহাম্মদ, লিপন, মতিন ভূঁয়া, মামুন ভূঁইয়া, হাসান খান, শফিকুল ইসলাম স্বপন, আল-আমীন মিয়া, আলী আকবর, হাবিবুর রহমান, আব্দুল্লাহ, সেলিম, ওয়াসিম ভূঁইয়া, কাইয়ুম খান, নয়ন, হাবিবুর, রুবেল ভূইয়া, রমজান খান, আজিজুর হক, নজরুল মিয়া, নাসিরউদ্দীন, রিপনসহ আরো অনেক বিএনপির ও তার অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী।
উপজেলায় বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তৈমূর আলম খন্দকারের একটি সভাতে পুলিশ হানা দিয়ে চারজনকে গ্রেফতার করার পর মামলা করলেও সেখানে তার নাম দেওয়া হয়নি। মামলায় গ্রেফতারকৃত জেলা ওলামা দলের সভাপতি সামসুজ্জামান খান বেনু সহ ৪জন সহ ২৯ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত আরো ২৫ জনকে আসামী করা হয়েছে। রূপগঞ্জ থানার এস আই আল আমিন সরকার বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার (৩০ আগস্ট) ওই মামলাটি দায়ের করেন। বিশেষ ক্ষমতার আইনের মামলায় আসামীদের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক সহ নাশকতার চেষ্টার অভিযোগ আনা হয়েছে। উল্লেখ্য, ২৯ আগস্ট বুধবার দুপুরে রূপগঞ্জ উপজেলার যাত্রামুড়াতে একটি বেসরকারী টিভি চ্যানেলকে সাক্ষাৎকার দিচ্ছিলেন তৈমূর আলম খন্দকার। ওই সময়ে পুলিশ হানা দিয়ে চারদিক ঘিরে রাখে। পরে ওই সাংবাদিক ও তাদের ক্যামেরা চলে যাওয়ার পরেই পুলিশ ওই চারজনকে গ্রেফতার করে। তারা হলো, জেলা ওলামা দলের সভাপতি সামসুজ্জামান খান বেনু, উপজেলা ওলামা দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাসিরউদ্দিন মোল্লা, কার্যনির্বাহী সদস্য আলাউদ্দিন ও আমির হোসেন মধু। তৈমূর আলম খন্দকার জানান, দুপুরে উপজেলার যাত্রামুড়ায় জেলা ওলামা দলের কার্যালয়ে বিকেলে একটি সভা হওয়ার কথা। এরই মধ্যে এটিএন বাংলা হতে আমার একটি সাক্ষাৎকার নিতে সাংবাদিক আসে। বেলা ৩টায় আমি ওই সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময়েই পুলিশ এসে চারদিক ঘিরে রাখে। পরে ৪জনকে গ্রেফতার করে। তৈমূর বলেন, আমাদের এখন কথাও বলতে দিচ্ছে না। সাংবাদিকদের সাথে কথা বলবো সেটাও করতে দিচ্ছে না। এটা সরকারের চরম নগ্নতা। রূপগঞ্জে আমার লোকজনদের পুলিশ দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান বলেন, বুধবার বিকেলে যাত্রামুড়া এলাকায় একটি বাড়ীতে বসে কিছু লোকজন বড় ধরনের নাশকতার পরিকল্পনা করছিল। পুলিশ সেখানে অভিযান চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে নাশকতার পরিকল্পনাকারী সন্দেহে ৪ জনকে গ্রেফতার করেন।
এর আগে সোনারগাঁও উপজেলায় নাশকতার প্র¯ূÍতির চেষ্টার অভিযোগে বিএনপির কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতাদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেছে পুলিশ। এছাড়া ওই মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে জেলা ছাত্রদলের সেক্রেটারী খায়রুল ইসলাম সজীব সহ ১৪জন নেতাকর্মীকে। বুধবার (২৯ আগস্ট) দুপুরে সোনারগাঁও থানার পিএসআই সেন্টু সিংহ বাদী হয়ে ওই মামলাটি দায়ের করেন। ওই মামলায় বুধবার দুপুরেই রাজধানীর বসুন্ধরার নিজ বাড়ি হতে সজীবকে গ্রেফতার করে সোনারগাঁও পুলিশের একটি টিম। এর আগে মঙ্গলবার রাতে সোনারগাঁও উপজেলা কাঁচপুর এলাকা থেকে থানা ছাত্রদলের ১৩ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়। তারা হলো জাকারিয়া সারোয়ার হিমেল, রুহুল আমিন রুবেল, আবদুল হালিম, বিল্লাল হোসেন, ফরহাদ হোসেন, ওমর ফারুক ইকবাল, মোরশেদ আলম, শাহাজউদ্দিন, আবুল বাশার, মোজাম্মেল হক, কাজী হিমেল, ইউনুস, সাইদুর রহমান। তাদের কাছ থেকে ৪টি ককটেল উদ্ধার করা হয়েছে মামলায় উল্লেখ করা হয়। মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, কাঁচপুর মোড়ে সরকার উৎখাত ষড়যন্ত্রের চেষ্টা করছিল গ্রেফতারকৃত ১৩ জন সহ ৩৩জন অজ্ঞাত ব্যক্তি। এছাড়া তাদের সঙ্গে অজ্ঞাত আরো ৩৩ জন ছিল। পুলিশের উপস্থিতি টেরে পেয়ে তারা সেখান থেকে পালিয়ে যায়।
এর মধ্যে সজীবকে বুধবার দুপুরে গ্রেফতার করা হয়। অপর আসামীরা হলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় ও জেলা কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপু, মনির হোসেন, সোনারগাঁও উপজেলা বিএনপির সভাপতি খন্দকার আবু জাফর (হজে¦ গিয়েছেন) , যুবদল নেতা নজররুল ইসলাম টিটু, শামীম, আমানউল্লাহ আমান, হাজী শাহজাহান মেম্বার, নূরে ইয়াসিন নোবেল, হাজী সেলিম হক, মোমেন খান (হজে¦ গিয়েছেন), আপেল, মজিবুর রহমান, হানিফ, সালাউদ্দিন সালু, হাবিবুর রহমান হবু, বজলুর রহমান, ফয়সাল আহমেদ অতু, কাজী নুরুল, বিল্লাল প্রমুখ। মামলায় আসামীদের মধ্যে সোনারগাঁও উপজেলা বিএনপির সভাপতি খন্দকার আবু জাফর ও কাঁচপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোমেন খান বর্তমানে হজ পালনের জন্য সৌদি আরবে অবস্থান করছেন বলে তাদের পরিবার জানিয়েছেন।

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1099 বার

আজকে

  • ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
  • ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
  • ১৫ই মুহাররম, ১৪৪০ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

 
 
 
 
 
আগষ্ট ২০১৮
রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
« জুলাই   সেপ্টেম্বর »
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
 
 
 
 
WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com