fbpx
 

না’গঞ্জে মনোনয়ন পেয়েও পারভীন ওসমান টেনশনে!

Pub: বুধবার, জানুয়ারি ১৬, ২০১৯ ৭:৩৭ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ : একাদশ জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনের ৫০টির মধ্যে জাতীয় পার্টি পাচ্ছে ৪টি। এই ৪টি আসনে চারজন নারীকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার কথা জানিয়ে প্রতি সংসদের স্পিকারের দপ্তরে চিঠিও পাঠানো হয়। যার মধ্যে নারায়ণগঞ্জ থেকে পারভীন ওসমানের নাম ছিল। তবে ৪ আসনে জাতীয় পার্টির ৪ প্রার্থী চূড়ান্ত করার পর এখন আবার ওই পদেই দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রির উদ্যোগ নিয়েছে দলটি। প্রতিটি মনোনয়ন ফরমের দাম ধরা হয়েছে ১০ হাজার টাকা। আর এতে করে আবার নতুন করে টেনশন দেখা দিয়েছে মনোনয়ন পাওয়া ওই ৪ জন নারী নেত্রীদের মধ্যে যার মধ্যে পারভীন ওসমানও রয়েছেন। এছাড়াও নারায়ণগঞ্জ থেকে সংরক্ষিত নারী আসনের আওয়ামীলীগের মনোনয়ন ফরম ক্রয় করেছেন অন্তত অর্ধডজন মনোনয়ন প্রত্যাশী।
জাতীয় পার্টির একজন দায়িত্বশীল নেতা গণমাধ্যমকে বলেছেন, ছয় দিনের মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন নিয়ে আগের অবস্থান বদলে গেল। এর পেছনে মনোনয়ন-বাণিজ্য কি না, সেই প্রশ্ন রাখেন ওই নেতা। তিনি বলেন, প্রার্থী যখন চূড়ান্ত, তখন এ ধরনের কাজ দলের মধ্যে ভুল বার্তা দেবে। সন্দেহ তৈরি করবে এটাই স্বাভাবিক।
গত ৯ জানুয়ারী ৪ জনকে মনোনয়ন দিয়েছিল দলটি। এই তথ্য সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে গণমাধ্যমেও পাঠানো হয়। ১৫ জানুয়ারী আবার বিজ্ঞপ্তি দিয়ে নারী প্রার্থীদের মধ্যে নতুন করে ফরম বিতরণের ঘোষণা দিয়েছে দলটি। জানতে চাইলে জাপার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আগের মনোনয়ন ঠিক ছিল না। আগে মনোনয়ন পাওয়া প্রার্থীরা অবশ্য হতবাক দলের এই অবস্থানে।
জাপা চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের উপ-প্রেস সেক্রেটারি খন্দকার দেলোয়ার জালালী স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সংরক্ষিত নারী আসনে দলটি চারজনকে প্রার্থী দিয়েছে। জাপা মনোনীত ওই চার প্রার্থী হলেন, পারভীন ওসমান (নারায়ণগঞ্জ), শাহীনা আক্তার (কুড়িগ্রাম), নাজমা আখতার (ফেনী), মনিকা আলম (ঝিনাইদহ)। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ইতিমধ্যেই মনোনয়ন সংক্রান্ত চিঠি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জাতীয় সংসদের স্পিকার বরাবর পাঠানো হয়েছে।
মঙ্গলবার ১৫ জানুয়ারী এরশাদের প্রেস অ্যান্ড পলিটিক্যাল সেক্রেটারি সুনীল শুভ রায় একটি বিজ্ঞপ্তি পাঠান। সেখানে বলা হয়, সংরক্ষিত মহিলা আসনে জাতীয় পার্টির মহিলা প্রার্থীদের মধ্যে আবেদনপত্র বিতরণ শুরু হবে। বুধবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের বনানীর কার্যালয় থেকে আগ্রহী প্রার্থীরা আবেদনপত্র সংগ্রহ করতে পারবেন। পার্টি তহবিলে ১০ হাজার টাকা জমা দিয়ে এই আবেদনপত্র গ্রহণ করতে হবে। ২২ জানুয়ারি পর্যন্ত এই আবেদন ফরম বিতরণ চলবে।
মনোনয়ন নিয়ে এই উল্টো পথে হাঁটা কেন? উত্তরে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা গণমাধ্যমকে বলেন, মনোনয়ন দিয়ে চিঠি নির্বাচন কমিশনের কাছে পাঠানোর নিয়ম। কিন্তু পাঠানো হয়েছে স্পিকারের কাছে। তাই নতুন করে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। রাঙ্গা আবার এও বলেন, মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের সময় ভিড় হয় খুব। তা এড়াতেই ৪ জনের নাম দেওয়া হয়েছিল।
আর সুনীল শুভ রায় বলেছেন, আগের মনোনয়ন ঠিক ছিল না। তাই আগের বিজ্ঞপ্তি প্রত্যাহার করা হয়েছিল।
মসিউর রহমান বা সুনীল শুভ রায় যে কারণই দেখান, জাপার মনোনয়ন পাওয়া নারী প্রার্থীরা কিন্তু বলেছেন তাঁদেরই প্রার্থী করার নিশ্চয়তা দেওয়া হয়েছে। তাঁদের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ থেকে মনোনয়ন পাওয়া পারভীন ওসমান গণমাধ্যমকে বলেন, আমি তো মনোনয়ন পেয়েছি। ফরম সংগ্রহ করব। এখন নতুন করে আবার প্রার্থী ঠিক করা হবে, তা তো জানি না। এটার খোঁজ নিতে হবে।
এদিকে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন পেয়েও নতুন করে আবার টেনশনে পড়তে হচ্ছে পারভীন ওসমানকে। কারণ নিজ দলের মধ্যে যেমন নতুন করে মনোনয়ন পত্র বিক্রির কার্য্যক্রম শুরু হচ্ছে তেমনি নারায়ণগঞ্জের আওয়ামীলীগেরও অন্তত অর্ধডজন নারীনেত্রী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। ফলে সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য হতে হলে পারভীন ওসমানকে অপেক্ষা করতে হবে আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টির চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের উপর।
এখানে উল্রেখ্য গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হন শামীম ওসমান। পাশের নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকে ভোট করে বিজয়ী হন তার ভাই সেলিম ওসমান।
নারায়ণগঞ্জ সদর ও বন্দর থানা নিয়ে গঠিত সেলিম ওসমানের এই আসনে কয়েক দফায় সাংসদ ছিলেন জাতীয় পার্টির সভাপতিমন্ডলীর সদস্য নাসিম ওসমান যিনি ২০১৪ সালের ৩০ এপ্রিল মারা যান। ওই বছরের ২৬ জুন উপ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী এস এম আকরামকে পরাজিত করে সেলিম ওসমান নির্বাচিত হন যাঁদের মধ্যে গত ৩০ ডিসেম্বরও সংসদ নির্বাচনে ভোটযুদ্ধ হয়েছিল। তবে এবার আকরাম ছিলেন নাগরিক ঐক্যের ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী।
নাসিম ওসমানের স্ত্রী পারভীন ওসমান এবার মনোনয়ন চেয়ে ব্যর্থ হন। শেষ পর্যন্ত দেবর সেলিম মনোনয়ন পেলেও বঞ্চিত হন ভাবি পারভীন। তবে দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বঞ্চিত করলেন না পারভীন ওসমানকেও। তাকে করা হয়েছে সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য।

Hits: 0


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ