fbpx
 

মেলান্দহে বসতভিটা থেকে উচ্ছেদ আতঙ্কে ভোগছেন নিরীহ কৃষক পরিবার

Pub: মঙ্গলবার, মার্চ ১৯, ২০১৯ ৮:৩৪ অপরাহ্ণ   |   Upd: মঙ্গলবার, মার্চ ১৯, ২০১৯ ৮:৩৪ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জামালপুুরঃ জামালপুরের মেলান্দহের হরিপুর গ্রামে স্থানীয় প্রভাবশালী প্রতিপক্ষের ষড়যন্ত্র মূলক অন্যায় অত্যাচারে চরম নিরাপত্তাহীনতায় উচ্ছেদ আতঙ্কে ভোগছেন নিরীহ কৃষক জয়নাল আবেদীন চৌধুরী ও তার পরিবারের সদস্যরা। এ নির্র্যাতনের ব্যাপারে লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে জামালপুর জেলা প্রশাসকের নির্দেশে বিষয়টি সহকারী কমিশনার (ভুমি) মেলান্দহ দপ্তরে তদন্তাধীন রয়েছে বলেও জানাগেছে।
অভিযোগে জানা গেছে, মেলান্দহের হরিপুর গ্রামের বর্তমান বাসিন্দা জয়নাল আবেদীন চৌধুরীর পৈতৃক বসতভিটা কয়েক বছর আগে যম্নুা নদী ভাঙ্গনের শিকার হয়েছে। ওই সময় তিনি নিজ জন্মভুমি ছেড়ে মেলান্দহের হরিপুর গ্রামে ২৮ শতাংশ জমি ক্রয় করেন। পরে তিনি বসতভিটা নির্মাণ পূর্বক পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সেখানেই নতুন করে বসবাস শুরু করেন। এরই একপর্যায়ে ওই নতুন বসতভিটার জমিটি নামজারি খারিজ করে দেওয়ার জন্য কৃষক জয়নাল আবেদীনের নিকট থেকে ২৫ হাজার টাকা নেয় হরিপুর গ্রামের প্রভাবশালী মাতাব্বর রুকুনুজ্জামান রকেট। কিন্তুু রুকুনুজ্জামান রকেট প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে জয়নাল আবদীন ও তার স্ত্রী ছাহেরা বেগমের ক্রয়কৃত ২৮ শতাংশ জমির মধ্যে মাত্র ১১ শতাংশ জমি তাদের দুইজনের নামে নামজারি খারিজ করেন। এছাড়াও বাকী ১৭ শতাংশ জমি রুকুনুজ্জামান রকেট অন্যায়ভাবে নিজের নামেই খারিজ করে নেন। এনিয়ে দুপক্ষের মাঝে মনোমালিন্যের সৃষ্টি হলে জয়নাল আবেদীন চৌধুরী ও তার স্ত্রী ছাহেরা বেগম ন্যায় বিচারের দাবীতে জামালপুর আদালতে মামলা দায়ের করেন। এরপর মামলাটির দীর্ঘ আইনি প্রক্রিয়া শেষে বিজ্ঞ আদালত জয়নাল আবেদীন চৌধুরী ও তার স্ত্রীর ছাহেরা বেগমের ন্যায় সঙ্গত আবেদনের স্বপক্ষে ডিক্রী প্রদান করেন। এঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে হরিপুর গ্রামের প্রভাবশালী মাতাব্বর রুকুনুজ্জামান রকেট এবং একই গ্রামের খলিলুর রহমান ও নাজমা আক্তার নিলুফা যোগসাজশে জয়নাল আবেদীন চৌধুরী ও তার পরিবারের সদস্যদেরকে নিজ বসতভিটা থেকে উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র শুরু করেন। এরই জেরধরে আজ থেকে প্রায় তিন মাস আগে স্থানীয় প্রভাবশালী মাতাব্বর রুকুনুজ্জামান রকেটের উপস্থিত নির্দেশে একই গ্রামের খলিলুর রহমান ও নাজমা আক্তার নিলুফা স্থানীয় সন্ত্রাসীদের সহযোগীতায় জয়নাল আবেদীনের ক্রয়কৃত ভোগদখলীয় বসতভিটা সংলগ্ন ১১ শতাংশ ফসলি জমি অন্যায়ভাবে জবর দখল করে নেয়। এতে বাঁধা দিতে গেলে রুকুনুজ্জামান রকেট গংরা নিরীহ জয়নাল আবেদীন চৌধুরী ও তার পরিবারের সদস্যদেরকে প্রকাশ্যে প্রাননাশের হুমকি প্রদান করে। এছাড়াও সম্প্রতি রুকুনুজ্জামান রকেট গংরা নিরীহ কৃষক জয়নাল আবেদীনের পরিবারকে নিজ বসতভিটা থেকে উচ্ছেদের জন্য দফায় দফায় হুমকি প্রদান করছে। এতে জয়নাল আবেদীন ও তার পরিবারের নিরীহ সদস্যরা নিজ বাড়ীতেই চরম নিরাপত্তাহীন জীবন যাপন করছেন।
মেলান্দহের হরিপুর গ্রামের নিরীহ কৃষক জয়নাল আবেদীন চৌধুরী আরো জানান, স্থানীয় সন্ত্রাসীদের হুমকির মুখে নিরুপায় হয়ে জীবনের নিরাপত্তা প্রার্থনায় জামালপুর জেলা প্রশাসক, জামালপুর পুলিশ সুপার এবং মেলান্দহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছি। তবে জামালপুর জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নির্দেশে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের গত ৩০ জানুয়ারীর ১৭৬ নং স্মারক পত্রের মূলে বিষয়টি সহকারী কমিশনার (ভুমি) মেলান্দহ দপ্তরে তদন্তাধীন রয়েছে।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ