আদালতে নুসরাত হত্যার বর্ণনা দিলেন নুর ও শামীম

Pub: সোমবার, এপ্রিল ১৫, ২০১৯ ১:৩২ অপরাহ্ণ   |   Upd: সোমবার, এপ্রিল ১৫, ২০১৯ ১:৩২ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ফেনী প্রতিনিধি :
ফেনীর সোনাগাজীর নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার সঙ্গে সরাসরি জড়িত থাকার কথা জানিয়ে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে মামলার অন্যতম দুই আসামি নুর উদ্দিন ও শাহাদাত হোসেন শামীম।

রবিবার (১৫ এপ্রিল) ফেনী জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বেলা ৩টা থেকে টানা ১০ ঘণ্টার জবানবন্দিতে নুসরাত হত্যার দায় স্বীকার করে পুরো ঘটনার বর্ণনা দেন ওই দুই আসামি।

পরে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন অ্যান্ড অপারেশন) তাহেরুল হক চৌহান রাত ১টার দিকে এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

তিনি বলেন, আসামিরা বিজ্ঞ আদালতের কাছে পুরো বিষয় খোলাসা করেছেন। হত্যাকাণ্ডটি কারা ঘটিয়েছে, কীভাবে ঘটিয়েছে, কী প্রক্রিয়ায় ঘটিয়েছে বিস্তারিত বলেছেন। কিন্তু মামলার তদন্তের স্বার্থে বিস্তারিত আপনাদের জানাতে পারছি না।

তাহেরুল হক চৌহান বলেন, আসামিরা তাদের অপরাধ স্বীকার করেছেন। তারা জানিয়েছেন জেলখানা থেকে (সিরাজ উদ দৌলা) হত্যার নির্দেশ পান।

তিনি আরও বলেন, এখনও পর্যন্ত নুসরাত হত্যায় সরাসরি জড়িত চারজনের সবাইকে গ্রেফতার করা যায়নি। সরাসরি জড়িত দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, ফেনীর সোনাগাজীর ফাজিল মদরাসার শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ৫দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াইয়ের পর গত বুধবার রাতে না ফেরার দেশে চলে যান। এই প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলা নুসরাতকে তার কক্ষে নিয়ে যৌন নিপীড়ন করেন- এমন অভিযোগে গত ২৭ মার্চ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে মামলা করেন নুসরাতের মা শিরিন আক্তার।

এরপর গত ৬ এপ্রিল নুসরাত আলিম পরীক্ষায় অংশ নিতে ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে গেলে দুর্বৃত্তরা ওই ছাত্রীকে ছাদে ডেকে নিয়ে যায়। পরে ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করায় দুর্বৃত্তরা তার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এ ঘটনায় নুসরাত গুরুত্বর অবস্থায় ৫ দিন হাসপাতালে থাকার পর মৃত্যু বরণ করেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1054 বার