fbpx
 

আদিতমারীতে ব্যালট পুনঃগণনার আবেদন

Pub: মঙ্গলবার, মে ৭, ২০১৯ ১১:১২ অপরাহ্ণ   |   Upd: মঙ্গলবার, মে ৭, ২০১৯ ১১:১২ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি:

লালমনিরহাটে সদ্য অনুষ্ঠিত আদিতমারী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দুইপ্রার্থীর ভোটের ব্যবধান ৬১৫ এবং বাতিল ভোট ৮১৩৭। ফলে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদের ব্যালট পুনরায় গণনা চেয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করেছেন ছামসুন নাহার নামে এক পরাজিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী।

সোমবার ওই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মঞ্জুরুল হাসান বরাবরে তিনি এ লিখিত আবেদন করেন। ছামসুন নাহার গত রবিবার অনুষ্ঠিত ৫ম আদিতমারী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ৬ জন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর একজন এবং তিনি ওই পদে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে বিজয়ী জেসমিন আকতারের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন।

জেলা নির্বাচন অফিস ও সংশ্লিষ্ট আবেদন সূত্রে জানা গেছে, গত ১০ মার্চ ১ম দফায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জেলার ৫টি উপজেলার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু জেলার অন্য ৪ উপজেলার উল্লেখিত দিনে ভোট অনুষ্ঠিত হলেও শেষ সময়ে এসে ‘সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠানে বাঁধা’ থাকায় আদিতমারী উপজেলার ভোট গ্রহণ স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন। পরবর্তীতে গত ৫ মে রবিবার স্থগিত হওয়া এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে জেসমিন আকতার ও ছামসুন নাহারসহ মোট ছয়জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ভোট গণনা শেষে রিটার্নিং কর্মকর্তা জেসমিন আকতারকে বেসরকারিভাবে বিজয়ী ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করে।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদের ফলাফলে উল্লেখ করা হয়, জেসমিন আকতার সেলাই মেশিন প্রতীকে ভোট পান ২৪,৯২৩টি এবং তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছামসুন নাহার পদ্মফুল প্রতীকে ভোট পান ২৪,৩০৮টি এবং বৈধ মোট ভোটের সংখ্যা ৭৫,৯২০টি হলেও অবৈধ (নানা কারণে বাতিল) ভোটের সংখ্যা ৮,১৩৭টি।

আবেদনকারী ছামসুন নাহার বলেন, অধিকাংশ কেন্দ্রে আমার কোনো এজেন্ট দিতে পারিনি। বাতিল ভোটের সংখ্যা বিজয়ী প্রার্থীর সঙ্গে আমার ভোটের ব্যবধানের কয়েকগুণ। বিধায় আমি ব্যালট পুণঃগণনার আবেদন জানিয়েছি।

এ ব্যাপারে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মঞ্জুরুল হাসান বলেন, ভোট পুনরায় গণনার সুযোগ আমাদের হাতে নেই। গেজেট প্রকাশের পর তিনি চাইলে সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালে মামলা করতে পারেন। সে ক্ষেত্রে আদালত যে নির্দেশনা দেবেন সে অনুযায়ী আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ