চলন্ত বাসে নার্স তানিয়াকে ধর্ষণপূর্বক হত্যা: মুখ খুলছেন জড়িতরা

Pub: শনিবার, মে ১১, ২০১৯ ৬:২৪ অপরাহ্ণ   |   Upd: শনিবার, মে ১১, ২০১৯ ৬:২৪ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

কিশোরগঞ্জে চলন্ত বার্সে ইবনে সিনা হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স শাহিনুর আক্তার তানিয়াকে ধর্ষণপূর্বক হত্যার ঘটনায় আদালতে জড়িতরা ধীরে ধীরে মুখ খুলতে শুরু করেছেন।

এ ঘটনায় রিমান্ডে স্বর্ণলতা পরিবহন বাসের ড্রাইভার নূরুজ্জামান ও হেলপার লালন মিয়া পুলিশকে ধর্ষণ ও হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন।

তাদের কথামতো স্বর্ণলতা পরিবহনের যে বাসটিতে ঘটনা ঘটে (ঢাকা মেট্রো-ব-১৫-৪২৭৪) তা গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার টোক এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। বাসটির তিন জায়গায় ছোপ ছোপ রক্তের দাগ পাওয়া গেছে। তানিয়াকে অন্তত ৪ জন ধর্ষণ করে।

এরপর ধর্ষণের অভিযোগ থেকে বাঁচতে ওই চারজনই তানিয়াকে হত্যার মিশনে অংশ নেয়। শেষে ঘটনাটির মোড় ঘোরাতে মৃতপ্রায় তানিয়াকে পাঁজাকোলা করে স্থানীয় একটি ফার্মেসিতে নিয়ে রেখে আসার চেষ্টা চালানো হয়।

কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। তানিয়াকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে ঘটনার রাতেই বাসটির চালক নূরুজ্জামান ওরফে নূরু, হেলপার লালন মিয়া ও লাইনম্যান আল-আমিন পুলিশের হাতে ধরা পড়ে।

পরে তানিয়ার বাবার দায়ের করা হত্যা মামলায় এ তিনজনকে গ্রেফতার দেখায় পুলিশ। বুধবার আদালত এ তিনজনসহ তানিয়া ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় আটক ৫ জনকে ৮ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) মাশরুকুর রহমান খালেদ বলেন, ‘আদালত আসামিদের ৮ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিলেন। এখন মনে হচ্ছে, ৮ দিনের আগেই আমরা তানিয়া ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের প্রকৃত রহস্য জেনে যাবো। পিবিআই, সিআইডিসহ বেশ কিছু সংস্থা সহায়তার হাত বাড়িয়েছে।’

উল্লেখ্য, গত ৬ মে রাতে ঢাকার বিমানবন্দর থেকে কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরের পিরিজপুর রুটে চলাচলকারী ‘স্বর্ণলতা’ নামক বাসে নার্স শাহীনুর আক্তার তানিয়াকে ধর্ষণের পর মাথার পেছনে আঘাত করে হত্যা করা হয়। তিনি কটিয়াদী উপজেলার লোহাজুরি ইউনিয়নের বাহেরচর গ্রামের মো. গিয়াসউদ্দিনের মেয়ে। তানিয়া ঢাকার ইবনে সিনা হাসপাতালের কল্যাণপুর ক্যাম্পাসে সেবিকা পদে কর্মরত ছিলেন। সোমবার (৬ মে) রাতে কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলায় কিশোরগঞ্জ-ভৈরব আঞ্চলিক মহাসড়কের বিলপাড় গজারিয়া নামক স্থানে এ ঘটনাটি ঘটে। এসময় তানিয়া ঢাকা থেকে কটিয়াদী ও বাজিতপুরের পিরিজপুর হয়ে নিজ গ্রামে ফিরছিলেন।

এদিকে কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী ও বাজিতপুরে নার্স তানিয়া ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় প্রতিবাদ সমাবেশ, বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1104 বার