রাঙ্গাবালী উপজেলার ১০টি দপ্তরে কর্মকর্তার পদ শূন্য, অতিরিক্ত দায়িত্ব দিয়ে চলছে কার্যক্রম

Pub: শনিবার, মে ১১, ২০১৯ ৪:৩৭ অপরাহ্ণ   |   Upd: শনিবার, মে ১১, ২০১৯ ৪:৩৭ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর রঙ্গাবালী উপজেলা প্রশাসনের ১০টি দপ্তরে কর্মকর্তার পদ শূন্য থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব দিয়ে চলছে কার্যক্রম। অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তাদের কেউ কেউ মাসে একদিন বা দু’দিন অফিস করেন। ফলে এসব দপ্তরের কার্যক্রম স্থবির হয়ে পরেছে। আর সেবা বঞ্চিত হচ্ছে উপজেলার দুইলাখ মানুষ। এসব দপ্তরে সেবা নিতে এসে প্রতিনিয়ত চরম হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে, অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। তবে এ সংকট নিরোশনের জন্য গত ৬মে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের মন্ত্রনালয় ও অধিদপ্তরে চিঠি দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্র্তা।
উপজেলা প্রশাসন সূত্রে যানাযায়, রাঙ্গাবালী উপজেলা প্রশাসনের ১৭টি পদের মধ্যে কর্মকর্তা রয়েছেন শুধুমাত্র ৭টিতে, বাকি ১০টি পদই শূন্য। এগুলো হচ্ছে- উপজেলা প্রকৌশলীর (এলজি ইডি) পদ শূন্য থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন গলচিপা উপজেলা প্রকৌশলী মো.আতিকুর রহমান তালুকদার, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার পদ শূন্য থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন গলচিপা উপজেলার কর্মকর্তা ডা.মু.মনিুরুল ইসলাম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার পদ শূন্য থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন গলচিপার কর্মকর্তা তপন কুমার ঘোষ, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তার পদ শূন্য থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন কলাপাড়া উপজেলার কর্মকর্তা ডা.হাবিবুর রহমান, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার পদ শূন্য থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন কলাপাড়ার কর্মকর্তা তাছলিমা আক্তার, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তার পদ শূন্য থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন কলাপাড়ার কর্মকর্তা আব্দুস সামাদ, উপজেলা সমবয় কর্মকর্তার পদ শূন্য থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন কলাপাড়ার কর্মকর্তা মো.হারুন অর রশিদ, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার পদ শূন্য থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন গলচিপার কর্মকর্তা ডা.আবু সুফিয়ান, উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তার পদ শূন্য থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন গলচিপার কর্মকর্তা মো.জুয়েল রানা, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার পদ শূন্য থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন গলচিপার কর্মকর্তা ফেরদাউস রহমান। দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তাদের কেউ কেউ মাসে একদিন বা দু’দিন অফিস করেন। তাও আবার কয়েক ঘন্টার জন্য রাঙ্গাবালীতে থেকে দায় সেরে চলে যান। সব মিলিয়ে রাঙ্গাবালী উপজেলা প্রশাসনের বেহাল অবস্থা। অফিসের কাজের জন্য ফাইল স্বাক্ষর করাতে কর্মচারীদের যেতে হয় দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তাদের কাছে অন্য উপজেলায়। যার কারণে বছরের পর বছর নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছেন রাঙ্গাবালী উপজেলার দুইলাখ মানুষ।
স্থানীয়রা জানান, এসব গুরুত্বপূর্ন পদে জরুরি ভিত্তিতে কর্মকর্তা নিয়োগ না দিলে এখানকার মানুষ নাগরিক সুবিধা বঞ্চিত তো হবেই, এছাড়াও বিভিন্ন প্রকার উন্নয়নেও পিছিয়ে পরবে রাঙ্গাবালী উপজেলা বাসী। তাই দ্রুত এসব গুরুত্বপূর্ন পদে কর্মকর্তা পদায়ন চুড়ান্ত করলে রাঙ্গাবালীর দুইলাখ মানুষের নাগরিক সুবিধা বাস্তবায়ন হবে।

রাঙ্গাবালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.মাশফাকুর রহমান জানান, উপকূলীয় দ্বীপ উপজেলা রাঙ্গাবালীর মানুষ বিভিন্ন মৌলিক সুবিধা থেতে বঞ্চিত। যার কারণে এ উপজেলা নিয়ে সরকারের বিরাট কর্ম পরিকল্পনা রয়েছে। এ উন্নয়ন পরিকল্পনা সুষ্টু ভাবে বাস্তবায়নের জন্য অতিরিক্ত দায়িত্ব বাদ নতুন পদায়ন করার জন্য আমরা ইতোমধ্যেই সংশ্লিষ্ট দপ্তরের মন্ত্রনালয়, বিভাগ ও অধিদপ্তরে চিঠি দিয়েছি। রাঙ্গাবালী উপজেলার উন্নয়ন কার্যক্রম অব্যহত রাখার জন্য ও সরকারের কর্ম পরিকল্পনা ব্যস্তবায়নের এখানে কর্মকর্তা পদায়ন খুবই দরকার।



  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1090 বার