fbpx
 

পরকীয়ার জেরে চাচী-ভাতিজার আত্মহত্যা

Pub: সোমবার, মে ২০, ২০১৯ ৯:৪৫ অপরাহ্ণ   |   Upd: সোমবার, মে ২০, ২০১৯ ৯:৪৫ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধি :
পরকীয়ার জেরে গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যা করেছে চাচী-ভাতিজা। উপজেলার গাংনগর মাঝপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

রবিবার (২০ মে) দিন গত রাতে তারা বাড়ির পাশের একটি আখ ক্ষেতে গিয়ে গ্যাস ট্যাবলেট খায়।

থানা সূত্রে জানা যায়, রবিবার রাত আনুমানিক ১.৩০ মিনিটে গাংনগর মাঝপাড়া গ্রামের সুবন্ধু দাসের স্ত্রী চৈতী রাণী দাস (২৭) ও অমল চন্দ্র দাসের ছেলে কনক চন্দ্র দাস (২০) পরকীয়া সম্পর্কের টানাপোড়নের কারণে একসঙ্গে গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে বাড়ির পার্শ্বে আখ ক্ষেতে কাশাকাশি করলে সামাদ নামের স্থানীয় এক ব্যক্তি টের পায়। পরে তিনি গ্রামবাসীকে খবর দিলে তাদের স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে নিয়ে আসার পরে দু’জনেরই মৃত্যু হয়। তারা সম্পর্কে চাচী এবং ভাতিজা ছিল।

স্থানীয়রা জানান, চৈতী রাণী ও কনক দাসের মধ্যে বেশ কিছুদিন পরকীয়ার সম্পর্ক ছিলো। তারা সম্পর্কে চাচী এবং ভাতিজা হওয়ায় তাদের মেলামেশা নিয়ে কেউ সন্দেহ করেনি। তবে কয়েকদিন আগে দু’জনের সম্পর্কের বিষয়টি জানাজানি হয়। এ নিয়ে উভয়ের পরিবার থেকে তাদেরকে শাসন করা হয়।

এলাকাবাসী আরও জানায় রবিবার (১৯ মে) রাতের আনুমানিক ১.৩০ মিনিটে সময় চৈতী রাণী এবং কনক ঘর থেকে বের হয়ে যায় এবং বাড়ি থেকে ৪০০ গজ দূরে আখ ক্ষেতে তারা এ ঘটনা ঘটায়।

মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক সনাতন চন্দ্র সরকার বলেন, চৈতী রাণীর স্বামী সুবন্ধু দাস হতদরিদ্র। কৃষিকাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। রবিবার রাতে স্ত্রী বিছানা থেকে কখন উঠে গেছে তা বলতে পারেন না। চৈতী রাণীর দুইটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। কনক তার বড় ভাইয়ের ছেলে। তারা পাশাপাশি বাড়িতে বসবাস করতেন।

এ বিষয়ে শিবগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান বলেন, পরকীয়ার সম্পর্কের কারণেই তারা আত্মহত্যা করেছে। লাশ সুরতহাল শেষে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ বিষয়ে একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ