fbpx
 

চিলাহাটি থেকে কমলাপুর ট্রেন চালুর দাবিতে নীলফামারীতে মানববন্ধন

Pub: শনিবার, মে ২৫, ২০১৯ ৮:৩৬ অপরাহ্ণ   |   Upd: শনিবার, মে ২৫, ২০১৯ ৮:৩৬ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মহিনুল ইসলাম সুজন,বিশেষ প্রতিনিধি॥ঈদের আগেই দেশের উত্তর অঞ্চলের (সীমান্তের) রেলষ্টেশন চিলাহাটি থেকে ঢাকা কমলাপুরগামী বিরতিহীন আন্তঃনগর ট্রেনের দাবিতে মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
নীলফামারী উন্নয়ন ফোরামের আয়োজনে শনিবার (২৫ মে)দুপুরে পুরাতন রেলস্টেশন চত্ত্বরে ঘন্টাব্যাপী ওই মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়।
নীলফামারী উন্নয়ন ফোরামের আহ্বায়ক আব্দুল ওয়াহেদ সরকারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মমতাজুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফিজুর রশীদ, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুজার রহমান, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মসফিকুল ইসলাম, জেলা বিএনপির সদস্য সচিব জহুরুল আলম, যুগ্ম আহ্বায়ক আনিসুর রহমান, জেলা ফার্টিলাইজার এসাসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক তাপস সাহা, জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু তালেব, জেলা ট্রাক-ট্যাঙ্কলড়ীর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি গোলাম রহমান ডালু, বড় বাজার দোকান মালিক সমিতির সহসভাপতি হামিদুল ইসলাম প্রমুখ।
মানববন্ধন শেষে সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘২০১৫ সালের ২৮ জানুয়ারী চিলাহাটি থেকে ঢাকাগামী নৈশকালীন নীলসাগর আন্তনগর ট্রেনটি উদ্বোধন করেন সে সময়ের রেলপথ মন্ত্রী মুজিবুল হক। ওই সময়ে এলাকাবাসীর দাবির প্রেক্ষিতে ওই পথে একই নামে দিবাকালীন আরেকটি ট্রেন চালুর কথা দিয়েছিলেন তিনি।
ওই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বর্তমান রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজনও উপস্থিন ছিলেন। কিন্ত বর্তমানে দেশের বিভিন্ন রুটে নূতন নূতন ট্রেন চালু হলেও বাদ পড়েছে নীলফামারী বাসির সেই দাবি।’ আসন্ন ঈদের আগেই এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবিটি পূরণ না হলে কঠোর কর্মসূচির হশিয়ারী দেন তারা।
তারা আরো জানান,দেশের উত্তর সীমান্তের নীলফামারী জেলার চিলাহাটি পর্যন্ত রেলপথটি অতি পুরাতন। বৃটিশ আমল থেকে শুরু করে পাক-ভারত বিভক্তির আগ পর্যন্ত এ পথ দিয়ে ভারতের দার্জিলিং এবং কলকাতা পর্যন্ত ট্রেন চলাচল করতো। তারপর রাজনৈতিক কারনে ট্রেন চলাচল বন্ধ হলেও ২০০৪ সাল পর্যন্ত এ পথে ভারতে যাওয়া আসা করেছেন পাসপোর্টধারীরা। বর্তমানে পথটি চলাচলের জন্য বন্ধ থাকলেও সেখানে ইমিগ্রেশন এবং কাস্টম অফিস চালু আছে।
পাশাপাশি সরকার চিলাহাটিকে স্থলবন্দর ঘোষণা করে ভারতের সাথে রেল যোগাযোগ পুণর্স্থাপনের সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে। ইতোমধ্যে দুই দেশের সীমানা পর্যন্ত রেল লাইন সংস্কারের উদ্যোগও নেওয়া হয়েছে।
সবশেষে পুরাতন রেলওয়ে স্টেশন মাষ্টার ওবাইদুর রহমান রতনের হাতে মানববন্ধনের একটি স্বারকলিপি তুলে দেন নীলফামারী উন্নয়ন ফোরামের আহব্বায়ক আব্দুল ওয়াহেদ সরকার।
উল্লেখ্যঃ বর্তমানে চিলাহাটি থেকে খুলনা দুটি আন্তনগর এবং মেইল ট্রেন, দুটি আন্তনগর রাজশাহী এবং ঢাকা একটি আন্তনগর ট্রেন চলাচল করছে। ২০০৮ সালে নীলফামারী থেকে ঢাকাগামী ট্রেন নীলসাগর একপ্রেস ট্রেন চালু হওয়ার পর থেকে এলাকার মানুষ ওই (দিবাকালিন) ট্রেনের দাবি করে আসছিল।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ