fbpx
 

গাইবান্ধায় নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে করণীয় শীর্ষক সভা

Pub: Tuesday, May 28, 2019 9:20 PM
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধা পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে মঙ্গলবার জন উদ্যোগের আয়োজনে নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে করণীয় শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন বাংলাদেশে নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা বহুমাত্রিক পদ্ধতিতে দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। দুই বছরের শিশু থেকে শতবর্ষী বৃদ্ধ সব বয়সের নারীই সহিংসতা ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। একই সাথে মেয়ে ও ছেলে শিশু নির্যাতনও দিনদিন বেড়ে চলেছে। ঘরে বাইরে, পরিবহনে, কর্মক্ষেত্রে এমন কি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও নারী ও শিশুরা যৌন হয়রানি, ধর্ষণ, গণধর্ষণ ও ধর্ষণের পর হত্যার মতো ঘটনার চিত্র পরিলক্ষিত হচ্ছে। বাল্যবিবাহ এখনো প্রকট, দূর হয়নি এসিড সন্ত্রাস বা যৌতুকের জন্য নির্যাতন ও হত্যা।
বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি আমাতুর নুর ছড়ার সভাপতিত্বে আলোচনা সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জনউদ্যোগের সদস্য সচিব প্রবীর চক্রবর্তী। আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জনউদ্যোগ জাতীয় পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক লুনা নূর, জনউদ্যোগ জাতীয় পরিষদের সদস্য সচিব তারিক হোসেন, বাসদ সমন্বয়ক গোলাম রব্বানী, জেলা সিপিবি সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল, জেলা উদীচীর সাধারন সম্পাদক মাহামুদুল গণি রিজন, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রিক্তু প্রসাদ, দুর্বার নেটওয়ার্কের সভাপতি মাজেদা খাতুন, নারী অধিকার কর্মী জয়া প্রসাদ, জেলা যুব ইউনিয়নের সভাপতি প্রতিভা সরকার, আদিবাসী নেত্রী প্রিসিলা মুর্মু, রুমিলা হেমব্রম, নারী নেত্রী শিরিন আকতার, ইয়াসমিন বেগম, মিতা হক, সুচরিতা রবিদাস, রবিদাস ফোরাম নেতা খিলন রবিদাস প্রমুখ।
বক্তরা নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধে আইনের সঠিক প্রয়োগ ও বাস্তবায়ন, নারী ও শিশু প্রতি সহিংসতা ও নির্যাতন প্রতিরোধে সরকারকে বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ এবং স্থানীয় জাতীয় পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন নিশ্চিত, ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রম বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ, জনপ্রতিনিধি, সুশীল সমাজ, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ বিভিন্ন শ্রেণি পেশায় মানুষকে নারী ও শিশুর প্রতি সংহিংসতা ও নির্যাতন বন্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া, ইলেকট্রনিক্স মিডিয়া ও প্রিন্ট মিডিয়াসহ সকল গণমাধ্যমে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে ‘অপরাধ ও আইনের বিভিন্ন বিষয় ও ন্যায়বিচার পাওয়ার অধিকার’ সম্পর্কে আইন, বিধি ও তথ্য তুলে ধরা, নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা ও নির্যাতন বন্ধে প্রতিনিয়ত গবেষণা, পরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করা, জেন্ডার সংবেদনশীলতার দিকে নজর দেয়া, নারীর প্রতি ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি গড়ে তোলা, নিয়মিত কাউন্সিলিং ও প্রয়োজনীয় চিকিৎসা নিশ্চিত করা সহ বিচার ব্যবস্থা নিবিঘœ ও রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত করে বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে বিচার ব্যবস্থাকে মুক্ত করার মাধ্যমে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করার জোর দাবী জানান।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ