পলাশবাড়ীর রওশনবাগ ও ঘোড়াবান্ধায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত

Pub: মঙ্গলবার, জুন ৪, ২০১৯ ৯:০৮ অপরাহ্ণ   |   Upd: মঙ্গলবার, জুন ৪, ২০১৯ ৯:০৮ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ সৌদি আরব-এর সাথে সামঞ্জস্যতা রেখে গাইবান্ধার পলাশবাড়ীর পল্লীতে মঙ্গলবার ঈদ উদযাপন করা হয়েছে। এদিন সকালে নির্মাণাধীন স্থানীয় একটি মসজিদে ঈদ জামাতে নামাজ আদায় করা হয়।
পবিত্র মাহে রমজানের রোজা পালন শেষে অনুষ্ঠিত হয় বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আযহা এবং ঈদুল ফিতর-এর আনন্দাভুতি। বরাবরের ন্যায় অনেক আগে থেকেই সৌদির সাথে সামঞ্জস্যতা রেখে দেশের নানা অঞ্চলের বিভিন্ন স্থানে ঈদের নামাজ আদায় হয়ে আসছে।
এরই ধারাবাহিকতায় কাল বুধবার সারাদেশ জুড়ে ঈদুল ফিতর সামনে রেখে একদিন আগেই আজ মঙ্গলবার সকালে ঈদের নামাজ আদায়ের মধ্যদিয়ে দিনভর ঈদ আনন্দাভোগ করলেন জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার মনোহরপুর ইউনিয়নের তালুক ঘোড়াবান্ধা ও বেতকাপা ইউনিয়নের রওশনবাগ গ্রামের কতিপয় মানুষ। এদিন সকাল সাড়ে ৮ টায় ঈদুল ফিতর নামাজের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। ঈদগাহের নির্দিষ্ট কোন মাঠ না থাকায় ওই এলাকায় নির্মাণাধীন একটি মসজিদে নামাজ আদায় করা হয়।
পলাশবাড়ীর মনোহরপুর ইউপির ঘোড়াবান্ধা, বেতকাপা ইউপির বেতকাপা ও রওশনবাগ গ্রাম ছাড়াও পার্শ্ববর্তী সাদুল্লাপুর উপজেলা এলাকা থেকে সমেবেতসহ প্রায় ১’শ ৫০ জন মুসুল্লি নামাজে অংশ নেন। ইমামতি করেন মাওলানা আবুল কালাম আজাদ।
ঈদের নামাজ পড়তে আসা মুসুল্লি খাদেম হোসেন বলেন বাংলাদেশ সময়ানুযায়ী ঈদের নামাজ পড়েছি। এখন আর ভুল করি না। হাদিস-কোরআন অনুসরন করেই সৌদি আরবের সময়ানুযায়ী ঈদের জামায়াতে নামাজ আদায় করি। শুধু তাই-ই নয় সৌদির সাথে সঙ্গতি রেখে রোজা পালন করি।
জীবনের অবশিষ্ট সময় সৌদির সাথে সঙ্গতি রেখেই রোজা ও ঈদসহ ধর্মীয় অন্যান্য নিয়ম-আনুষ্ঠানিকতা পালন করে যাবো ইনশাআল্লাহ। নামাজে অংশ নেয়া অপর মুসুল্লি মোস্তফা মিয়া বলেন অন্যান্যবারের তুলনায় এবারের ঈদের জামাতে মুসুল্লির সংখ্যা বেশি হয়েছে। আজকের ঈদুল ফিতরসহ বিগত ৩ বছর ধরে সৌদির সাথে ঈদ উদ্যাপন করে আসছি।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ