নারায়ণগঞ্জবাসী শুধু নামেই মন্ত্রী পেল

Pub: বুধবার, জুন ১২, ২০১৯ ৪:২৭ অপরাহ্ণ   |   Upd: বুধবার, জুন ১২, ২০১৯ ৪:২৭ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ :দীর্ঘদি ধরেই নারায়ণগঞ্জবাসী মন্ত্রীত্বের স্বাদ পাচ্ছিল না। বিএনপি সরকার ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে নারায়ণগঞ্জ থেকে কয়েকজন মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করলেও আওয়ামীলীগের সময়ে একেবারেই বঞ্চিত ছিল নারায়ণগঞ্জের সাংসদরা। তবে দীর্ঘদিন পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন শেষে নারায়ণগঞ্জ বাসীর সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ও গাজী প্রুপের কর্নধার গোলাম দস্তগীর গাজীকে (বীর প্রতীক) বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী করা হয়েছে। সেই সাথে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগও মন্ত্রীর স্বাদ পেয়েছে। কিন্তু এই মন্ত্রী দিয়ে নারায়ণগঞ্জবাসীর স্বপ্ন পূরণ হলেও কার্যতপক্ষে তা নিষ্কর্মাই থেকে যাচ্ছে। নারায়ণগঞ্জে কোন উন্নয়নে তার ভূমিকা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। ফলে নারায়ণগঞ্জবাসীও এই মন্ত্রী নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করতে শুরু করেছেন।
আওয়ামীলীগ সূত্র বলছে, স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে দেশের প্রধান রাজনৈতিক দল আওয়ামীলীগ বেশ কয়েকবার ক্ষমতায় আসলেও নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগ মন্ত্রীত্বের স্বাদ থেকে বারবার বঞ্চিত হয়ে আসছিল। যদিও নারায়ণগঞ্জ বিএনপি কয়েকবার মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর স্বাদ পেয়েছিল তবে সেটা অনেক আগে। ফলে অনেকদিন ধরেই নারায়ণগঞ্জবাসীর দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন ছিল মন্ত্রীত্ব পাওয়া। শেষ পর্যন্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন শেষে নারায়ণগঞ্জবাসীর দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন পূরণ হলো।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ দলটি বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করে। সেই জয়ে নারায়ণগঞ্জ থেকে সবকটি আসনেই ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীরা জয়লাভ করে। এতে সংসদ সদস্য শামীম ওসমান ও নজরুল ইসলাম বাবুর মধ্যে কেউ একজন মন্ত্রীত্ব পেতে যাচ্ছেন বলে বেশ আলোচনা গুঞ্জন চলছিল। তবে সেসব সাংসদদের নাম বাদ দিয়ে মন্ত্রীত্ব পেলেন গাজী। আর সবার একটাই দাবি ছিল, ‘যেন এবার নারায়ণগঞ্জ থেকে অন্তত একজনকে মন্ত্রীত্ব পদ দেয়া হয়।’ আর তাই এ জেলার জনগণের স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছিলেন নেতাকর্মীরা।
মন্ত্রীত্বের স্বাদ পেয়ে আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের ভাষ্য ছিল, ‘নারায়ণগঞ্জ জেলাটি আওয়ামীলীগের ঘাঁটি ও বিভিন্ন আন্দোলনের সূতিকাগার হলেও এ জেলার আওয়ামীলীগের কোন সাংসদ মন্ত্রীত্ব পদ পাননি। যে কারণে এ জেলার জনগণ ও নেতাকর্মীদের স্বপ্ন পরিপূর্ণ হয়নি। তবে এবার নারায়ণগঞ্জের সাংসদ গোলাম দস্তগীর গাজী মন্ত্রী হয়েছেন। এতে তারা খুবই আশাবাদী যে নারায়ণগঞ্জের আপামর জনগণের সকল স্বপ্ন বাস্তবায়িত হবে। এতে তারা খুবই আনন্দিত হয়েছিলেন।
নারায়ণগঞ্জের কর্তা ব্যক্তিদের অভিযোগ ছিল, নারায়ণগঞ্জের কোন সাংসদ মন্ত্রী না হওয়ার এখানকার বড় বড় প্রজেক্টের কাজগুলো করতে হলে বিভিন্ন দপ্তরে দপ্তরে বছরের পর বছর ঘুরতে হয়। কিন্তু তারপরও সেই কাজ সম্পন্ন করতে করতে সরকার পরিবর্তন হয়ে যায়। আর তাতে করে কাজ অসম্পূর্ণ অবস্থায় থমকে যায়। এরূপ নানা কারণে এ জেলাতে মেডিকেল কলেজ হচ্ছেনা, যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হচ্ছেনা, উন্নতমানের চিকিৎসা সেবা দেয়ার মত হাসপাতাল নেই, ভাল বিশ্ববিদ্যালয়সহ আরও অনেক কিছুই আটকে ছিল। তবে এবার মন্ত্রীর স্বাদ পেয়ে নারায়ণগঞ্জবাসীর সেসকল স্বপ্ন পূরণ হওয়ার আশায় বুক বেধেছিলেন, যে তাদের সকল চাহিদা পূরণ হবে। কিন্তু তাদের সেই আশার গুড়েবালি।
বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পাওয়া নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী নারায়ণগঞ্জের কোন উন্নয়নে অবদান রাখতে পারছেন না। নারায়ণণঞ্জের অনেক সমস্যার সমাধানে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি শুধু নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনকে ঘিরেই দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। দেশের একজন মন্ত্রী হয়ে ইউনিয়ন পরিষদের অনুষ্ঠানে তিনি হাজির হয়ে থাকেন। নারায়ণগঞ্জের হারানো ঐতিহ্যকে ফিরিয়ে আনার ক্ষেত্রে তার ভূমিকা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না।
সর্বশেষ টানা দুই বছর বন্ধ থাকার পর গত ২২ মে ঢাকা নারায়ণগঞ্জ রুটে চালুকৃত বিআরটিসি বাস চলাচলের ক্ষেত্রে সৃষ্ট সমস্যার সমাধানেও তাকে কোন ভূমিকা রাখতে চাচ্ছে না। নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন সংগঠনগুলো বিআরটিসির বাস ভাড়া কমানো ও বাস বৃদ্ধির ব্যাপারে আন্দোলন চালিয়ে আসলেও বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর নিরবেই থেকে যাচ্ছেন। একজন মন্ত্রী হিসেবে তিনি কোন দায়িত্বই পালন করছেন না। আর এ নিয়ে আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী সংগঠনের নেতারাও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।
গত ২৮ মে মন্ডলপাড়া এলাকায় আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধনে সভাপতি নুরুদ্দিন আহমেদ বলেছেন, আমরা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে নারায়ণগঞ্জ থেকে মন্ত্রীর দাবী জানিয়েছিলাম। যে কোন সরকারই হোক না কেন আমাদের দাবী ছিল মন্ত্রীর। আমাদের সেই দাবী ও নারায়ণগঞ্জবাসীর চাহিদা অনুযায়ী নারায়ণগঞ্জ থেকে গোলাম দস্তগীর গাজীকে মন্ত্রী করা হয়েছে। কিন্তু তিনি শুধু কায়েতপাড়া ইউনিয়নের অনুষ্ঠানেই হাজির হয়ে থাকেন। তিনি রূপগঞ্জের মন্ত্রী হয়েছেন। নারায়ণগঞ্জের কোন সমস্যা নিয়ে তিনি কোন কথা বলেন না। আমরা এমন মন্ত্রী চাইনি। তাদের বক্তব্যে মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজীর ব্যর্থতাই পরিলক্ষিত হচ্ছে।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ