fbpx
 

মুকুলের ঘ্রাণে বিমোহিত চৌগাছা, বাম্পার ফলনের আশা

Pub: সোমবার, মার্চ ২, ২০২০ ৯:১২ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

যশোরের চৌগাছায় এ বছর আমের বাম্পার ফলনের আশা করছেন হাজারো আম চাষি। চলতি মৌসুম শুরুতেই প্রতিটি গাছে মুকুলে মুকুলে ভরে গেছে। আম চাষিরা ধারণা করছেন এই বছর গাছ গুলোতে যে পরিমাণ মুকুল দেখা দিয়েছে, তাতে করে কোন ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা না দিলে এ বছর আমের বাম্পার ফলন হবে।

উপজেলার জগদীশপুর, পাতিবিলা, নারায়নপুর, স্বরুপদাহ ও সুখপুকুরিয়া, চৌগাছা ইউনিয়নসহ অধিকাংশ ইউনিয়নের গ্রামগুলো আম চাষের জন্য বরাবরই বিখ্যাত। এমন এক সময় ছিল এ অঞ্চলের মানুষ বাড়ির আঙিনায় কিংবা পতিত জমিতে যেমন তেমন ভাবে আম গাছ লাগাতেন। কিন্তু সময়ের পালাক্রমে এখন আম বাণিজ্যিক ভাবে চাষ হচ্ছে। চৌগাছার উৎপাদিত আম স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলাতে পাঠানো হচ্ছে।

আম পাকার মৌসুম এলে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আম ব্যবসায়ীরা ছুটে আসেন চৌগাছায়। তারা উপজেলার বিভিন্ন বাগানে বাগানে ঘুরে পছন্দের মত আম কিনে তা ট্রাক লোড দিয়ে নিয়ে যান বিক্রয় করার জন্য।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরে চৌগাছাতে বর্তমানে ৮৫০ হেক্টর জমিতে নানা জাতের আম চাষ হয়েছে। এর মধ্যে হিমসাগর ৩৪০ হেক্টর, ন্যাংড়া ৯৫ হেক্টর, আম্রপলি ৩৮০ ও স্থানীয় জাত ৩৫ হেক্টর।

ফল বিজ্ঞানীদের মতে, সারা পৃথিবীতে মোট ৩৫ প্রজাতির আম রয়েছে। বাংলাদেশের ফল বিজ্ঞানীরাও গত তিন দশকে ১০টির অধিক আমের উন্নতজাত উদ্ভাবন করেছেন। বাংলাদেশি বিজ্ঞানীদের উদ্ভাবিত বারি জাতের আম চাষেও ভালো ফলন পাচ্ছেন চাষিরা। আমের পুষ্টি উপাদান অনেক।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রইচউদ্দিন জানান, চৌগাছায় দিনদিন আম চাষ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। আম চাষ করে অনেকেই আজ স্বাবলম্বী। সে কারণে মাত্র তিন বছরের ব্যবধানে এই চাষ বৃদ্ধি পেয়ে দ্বিগুন হয়েছে। আমের মুকুল আসা থেকে শুরু করে পাকা পর্যন্ত আম নানা রোগে আক্রান্ত হতে পারে। তাই মৌসুমের শুরু থেকেই কৃষি অফিস আম চাষিদের এ বিষয়ে নানা পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

Hits: 16


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ