ভারতের ম্যাচে স্টেডিয়ামের আকাশে কাশ্মিরে সহিংসতার বিরুদ্ধে ব্যানার নিয়ে বিমান

Pub: রবিবার, জুলাই ৭, ২০১৯ ৪:৪৮ অপরাহ্ণ   |   Upd: রবিবার, জুলাই ৭, ২০১৯ ৪:৪৮ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশ্বকাপে শনিবার ভারত বনাম শ্রীলঙ্কার ম্যাচের মাঝখানে হঠাৎই স্টেডিয়ামের উপর ধীর গতিতে চক্কর দেয় একটি বিমান। বিমানটির লেজের সাথে সুতা দিয়ে ঝোলানো বিশেষভাবে তৈরি একটি ব্যানার। যেখানে ছিলো কাশ্মির নিয়ে প্রতিবাদের বাণী। এ ঘটনায় তোলপাড় শুরু হয়েছে আইসিসিতে। ভারতীয় বোর্ডের পক্ষ থেকে প্রতিবাদ জানানো হয়েছে আইসিসির কাছে। বিমানটি চারবার চারটি ব্যানার নিয়ে উড়ে গেছে মাঠের ওপর দিয়ে। এর মধ্যে তিনবারই ছিলো কাশ্মিরে ভারতীয় বাহিনীর আচরণের প্রতিবাদ।

শনিবার হেডিংলিতে ম্যাচ চলাকালীন দেখা যায়, মাঠের উপরে আকাশে চক্কর কাটছে একটি বিমান। আর তার লেজের দিক থেকে উড়ছে একটি ব্যানার। তাতে লেখা ‘জাস্টিস ফর কাশ্মির’। অর্থাৎ, কাশ্মীর নিয়ে সুবিচার চাই। গোল করে মাঠের উপরে বেশ কয়েক বার চক্কর দিয়ে সেই বিমান অদৃশ্য হয়ে যায়। ততক্ষণে ভারত-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ শুরু হয়ে গিয়েছে এবং প্রায় ভর্তি গ্যালারিতে আশি শতাংশ দর্শক ভারতীয়। চার বার আকাশে চক্কর মারে ওই বিমান। এবং প্রতিবারই নতুন নতুন বার্তা লেখা উড়তে দেখা যায় বিমানের লেজ থেকে।

সঙ্গে সঙ্গে তীব্র চাঞ্চল্য তৈরি হয়। মাঠের কাছেই লিডস ব্র্যাডফোর্ড বিমানবন্দর। খেলা চলাকালীন অনেক বিমানই উড়ে গেল মাঠের উপরের আকাশ দিয়ে। সাধারণত, বিমানবন্দরের আশেপাশে কঠোরতম নিরাপত্তা থাকে। তার উপরে বিশ্বকাপের মতো ইভেন্ট বলে বাড়তি নিরাপত্তার বলয় থাকার কথা। সেই নিরাপত্তার বলয়কে ফাঁকি দিয়ে একটি বিমান বারবার কী ভাবে ভারতের উদ্দেশে রাজনৈতিক বার্তা নিয়ে আকাশে ঘুরতে থাকল, সেটাই এখন চর্চার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

প্রথম বার বিমানটি যখন স্টেডিয়ামের আকাশে আসে তখন ব্যানারে লেখা ছিল ‘জাস্টিস ফর কাশ্মির’। দ্বিতীয়বার বিমানটিকে দেখায় শ্রীলঙ্কার ইনিংসের শেষ দিকে যখন জাসপ্রিত বুমরাহ বোলিং করছিলেন। এ বার আরও সরাসরি, আরও কড়া বার্তা লেখা— ‘ইন্ডিয়া, স্টপ জেনোসাইড এন্ড ফ্রি কাশ্মির’। অর্থাৎ ভারত কাশ্মিরে গণহত্যা বন্ধ করো এবং কাশ্মিরকে মুক্তি দাও।

এর পর ভারতীয় ইনিংসে রোহিত শর্মা ও কে এল রাহুল যখন ব্যাট করছেন ২৩ ওভার নাগাদ বিমানটি আবার ফিরে আসে। এ বার ব্যানারে লেখা— ‘হেল্প এন্ড মব লিঞ্চিং ইন ইন্ডিয়া’। অর্থাৎ ‘ভারতে গণপিটুনিতে হত্যা বন্ধ করতে এগিয়ে আসুন’। নন-স্ট্রাইকার প্রান্তে দাঁড়িয়ে তখন রোহিত শর্মা আকাশের দিকে তাকিয়ে দেখতে থাকেন বিমানটিকে।

রোহিতের সেঞ্চুরির ঠিক আগে চতুর্থ বারের জন্য ফিরে এল বিমানটি। এ বার তার বার্তা— ‘লাভ ক্রিকেট, লাভ মুমতাজ-লিডস’। কেউ কেউ তা দেখে বলতে শুরু করলেন, মুমতাজ নামে এখানে একটি জনপ্রিয় রেস্তরাঁ রয়েছে।

বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, ভারতীয় বোর্ড থেকে ফোন করে খুব জোরের সঙ্গে আইসিসিকে বলা হয়েছে, এই ঘটনার যথাযথ তদন্ত হতেই হবে।

ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি বলেছে, ‘আমরা অত্যন্ত হতাশ। এর আগে পাকিস্তান বনাম আফগানিস্তান ম্যাচের সময়েও এ রকম বার্তা নিয়ে একটি বিমান উড়েছিল। তখনই পুলিশের কাছে আমরা অভিযোগ জানিয়েছিলাম। পশ্চিম ইয়র্কশায়ার পুলিশ তখন আমাদের বলেছিল, যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে না। তার পরে এ দিনও ঘটল। আমরা হতাশ। খেলার মধ্যে রাজনৈতিক মদতপুষ্ট বার্তা বহন করাকে আমরা সমর্থন করছি না।’

আইসিসি জানিয়েছে ভারতীয়দের পক্ষ থেকে প্রতিবাদের পরই তারা পশ্চিম ইয়র্কশায়ার পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে আবেদন জানিয়েছে, দ্রুতই যেন বিমানচালকদের খোঁজ করা হয়।

খেলার মাঠে মাথার উপর দিয়ে বিশেষ বার্তাসহ বিমান এর আগেও দেখা গেছে। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের কোচ হোসে মোরিনহোকে সরানোর দাবিতে এক ভক্ত এই কাণ্ড করেছিলেন। কিন্তু রাজনৈতিক ইস্যুতে কোন বার্তা নিয়ে এমন ঘটনা এবারই প্রথম। কয়েক দিন আগে পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের ম্যাচের সময় দেখা গিয়েছিল ‘জাস্টিস ফর বালুচিস্তান’ লেখা ব্যানার নিয়ে বিমান উড়তে।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ