fbpx
 

এটিএম জালিয়াতি: টি-শার্ট পরা বাংলাদেশি যুবককে খুঁজছে পুলিশ

Pub: Thursday, June 20, 2019 1:03 AM
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ডাচ-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে কার্ড জালিয়াতি করে তিন লাখ টাকা উত্তোলনের ঘটনায় গ্রেফতার ৭ ইউক্রেনীয় নাগরিকের সহযোগী এক বাংলাদেশি যুবককে চিহ্নিত করেছে পুলিশ। সাদা টি-শার্ট পরিহিত ওই যুবককে খুঁজছে পুলিশ। তারই সহায়তায় খিলগাঁও তালতলা মার্কেটের বিপরীতে ডাচ-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথের সিস্টেম হ্যাক করে অর্থ আত্মসাৎ করে ইউক্রেনের নাগরিকরা। বাংলাদেশি এ যুবককে গ্রেফতার করতে পারলে অন্যদের সম্পৃক্ততা বেরিয়ে আসতে পারে বলে পুলিশ কর্মকর্তারা মনে করছেন।

গত ৩১ মে ও ১ জুন খিলগাঁওয়ের একটি এটিএম বুথ থেকে কার্ড জালিয়াতি করে তিন লাখ টাকা উত্তোলনের ঘটনা ঘটে। 

এ ঘটনায় ভিডিও ফুটেজ বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, গত ৩০ মে ইউক্রেনের ৭ নাগরিক যখন বিমানবন্দর এসে নামেন, তখন দায়িত্বরত নিরাপত্তাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে ক্যানপি গেট পেরিয়ে তীর চিহ্নিত সাদা টি-শার্ট পরিহিত এক যুবকের সঙ্গে কথা বলেন তারা। পরে ওই যুবকসহ ৭ ইউক্রেন নাগরিক বিমানবন্দর থেকে বের হয়ে চলে যান। তীর চিহ্নিত ব্যক্তিকে এটিএম বুথ জালিয়াতি ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে তার পরিচয় খুঁজছে পুলিশ।

ওই ব্যক্তির কোনো পরিচয় কিংবা কোনো তথ্য পাওয়া গেলে ডিএমপির গোয়েন্দা পূর্ব বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার খিলগাঁও জোনাল টিমের (০১৭১৩৩৯৮৫৯৬) সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

বুধবার (১৯ জুন) বিকেলে ডিএমপির মিডিয়া শাখার প্রধান মাসুদুর রহমান বলেন, ঘটনার পর থেকেই গোপনে বিভিন্ন স্থানে ওই যুবকের খোঁজ করা হয়। কিন্তু তার সন্ধান মেলেনি। ইউক্রেনের নাগরিকরা বাংলাদেশে আসার পর থেকেই ওই যুবকের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল।

গোয়েন্দা কর্মকর্তারা বলছেন, এটিএম জালিয়াতি করা এই চক্রের সঙ্গে বাংলাদেশের বড় একটি সিন্ডিকেট জড়িত রয়েছে বলে তারা ধারণা করছেন। কারণ, ভিতালি নামে এক ইউক্রেনীয় নাগরিকের এখনও পালিয়ে আছে। গ্রেফতার হওয়া নাগরিকরা উত্তোলিত টাকা ওই সিন্ডিকেটের সদস্যদের কাছে পার করে দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার (৩১ মে) রাত ১১টা থেকে সাড়ে ১১টার মধ্যে বাড্ডায় এটিএম বুথ থেকে সংঘবদ্ধ জালিয়াত চক্রের দুই বিদেশি সদস্য অবৈধভাবে প্রায় সাড়ে চার লাখ টাকা উত্তোলন করেন। টাকা উত্তোলনের সময় ধরা পড়ে চক্রের দুই সদস্য।

পরে অভিযানে চক্রের আরও চারজনকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় গত ১০ জুন সাত বিদেশির বিরুদ্ধে অর্থপাচার আইনে মামলা করে পুলিশের অপরাধ ও তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) সাইবার তদন্ত বিভাগের এসআই প্রশান্ত কুমার সিকদার। রাজধানীর বাড্ডা থানায় মামলাটি করা হয়।

মামলায় আসামিরা হলেন- দেনিস ভিতোমস্কি (২০), নাজারি ভজনোক (১৯), ভালেনতিন সোকোলোভস্কি (৩৭), সের্গেই উইক্রাইনেৎস (৩৩), শেভচুক আলেগ (৪৬) ও ভালোদিমির ত্রিশেনস্কি (৩৭)। আর পলাতক আছেন ভিতালি ক্লিমচুক (৩১)।

এই লিংকে দেখুন ভিডিও ফুটেজ: https://www.facebook.com/dmpdhaka/videos/2236805009749710/


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ