fbpx
 

যাত্রী আছে, গাড়ি নেই সায়েদাবাদে

Pub: Friday, August 9, 2019 2:40 PM
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ঈদযাত্রায় ঘরমুখো মানুষের চাপ বাড়ছেই রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে। বাস কাউন্টারের ভেতর ও বাহিরে সমান তালে ভিড় লেগে রয়েছে যাত্রীদের। যাত্রীদের ঢল নামলেও পর্যাপ্ত পরিবহন নেই এই বাস টার্মিনালে। পর্যাপ্ত সংখ্যক বাস না থাকায় বিপাকে পড়েছেন নাড়ির টানে বাড়ি ফেরা যাত্রীরা। টানা দু-তিন ঘণ্টা অপেক্ষা করেও মিলছে না বাস। কাউন্টারে গিয়েও পাচ্ছে না নির্দিষ্ট গন্তব্যের টিকিট। টিকিট না পাওয়ায় এক কাউন্টার থেকে আরেক কাউন্টারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন ঘরমুখো মানুষ।

শুক্রবার (৯ আগস্ট)  রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল ঘুরে দেখা গেছে এই চিত্র। সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল ঘুরে দেখা গেছে কয়েকটি রুটের বাস নির্ধারিত সময় ছাড়লেও অধিকাংশ রুটের বাস ছাড়ছে দেড় থেকে দুই ঘণ্টা বিলম্বে। 

সৌদিয়া কোচ সার্ভিস বাস কাউন্টারে বসে আছেন মোহাম্মদ ইউনুস। তিনি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে জব করেন। মা-বাবার সঙ্গে ঈদ করতে গ্রামের বাড়িতে যাবেন তিনি। তার গ্রামের বাড়ি ফেনী জেলায়। ২ ঘণ্টা অপেক্ষা করার পরও বাসের দেখা পায়নি। তবুও বাড়ি ফিরতে গাড়ির অপেক্ষা এই তরুণের।

হবিগঞ্জের যাবেন একটি বেসরকারি কোম্পানির ডেপুটি ম্যানেজার কাজী রানা। প্রায় দুই ঘণ্টা সাদাবাদ বাস টার্মিনালে বসে থাকার কথা শোনালেন ব্রেকিংনিউজকে। কাজী রানা বলেন, ‘বউ-বাচ্চাকে নিয়ে বসে আছি, বাসের দেখা পাইনি। ভাড়াও রাখছে অতিরিক্ত। ৬০০ টাকার ভাড়া নিয়েছে ৯০০ টাকা নিয়েছে। দিগন্ত পরিবহন।’ 

সময় মত গাড়ি দিতে না পারার বিষয়টি স্বীকার করেছেন হানিফ পরিবহনের টিকেট মাস্টার লিটন। তিনি সায়দাবাদে পাঁচ নম্বর কাউন্টারের দায়িত্বে রয়েছেন। তিনি ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘তুলনামূলকভাবে যাত্রীর চাপ বেশি। রাস্তায় যানজট থাকার কারণে সময়মত গাড়ি এসে কাউন্টারে পৌঁছাতে পারছে না। তবে আমাদের এখানে অতিরিক্ত কোনও ভাড়া নেয়া হচ্ছে না। ১২ মাস যে ভাড়া, ঈদের সময়ও একই বাড়া। আমাদের কাউন্টার থেকে, ফেনী, চিটাগাংমুখী যাত্রীরা যাচ্ছে।’

শনিবার দিন সায়দাবাদে যাত্রীর অতিরিক্ত চাপের কথা জানালেন শ্যামলী পরিবহনের টিকিট মাস্টার রানা। তিনি বলেন, ‘শনিবার দিন কলকারখানাসহ গার্মেন্টস ছুটি হবে। রুটভেদে কোথাও কোথাও যাত্রীর চাপ বেশি। তবে আমাদের এখানে চাপ থাকলেও আমরা তা সামলাতে পারছি। আমাদের এখানে কোন অতিরিক্ত ভাড়া নেয়া হচ্ছে না। হয়তো কোনো কোনো রুটে কেউ কেউ নিতে পারে।’ 

অতিরিক্ত ভাড়া অবিলম্বে গাড়ি ছাড়ার বিষয়টি অস্বীকার করলেন সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালের ভিজিলেন্স টিমের সদস্য সচিব মো. আলমগীর শেখ। তিনি ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘অতিরিক্ত ভাড়ার বিষয়ে আমরা নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছি। মালিক শ্রমিক ও ভিজিলেন্স টিমের সদস্যরা মিলে অতিরিক্ত ভাড়ার বিষয়ে ঝটিকা মিছিল করেছি।  পর্যাপ্ত পরিমাণে গাড়ী রয়েছে। গাড়ী বিলম্ব হওয়া এবং অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ার বিষয়টি আমাদের নজরে পড়েনি। এখন পর্যন্ত সবকিছুই স্বাভাবিকভাবেই চলছে।’  


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ