fbpx
 

হত্যায় সংশ্লিষ্টতায় অমিত-মিজান-আরাফাত গ্রেফতার: ডিএমপি

Pub: বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১০, ২০১৯ ৫:০৯ অপরাহ্ণ   |   Upd: বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১০, ২০১৯ ৫:০৯ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার এজাহারে নাম না থাকার পরও প্রাথমিক তদন্তে হত্যাকাণ্ডে সংশ্লিষ্টতা থাকায় অমিত সাহা, মিজানুর রহমান ওরফে মিজান ও শামসুল আরেফিন আরাফাতকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন

বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আবরার হত্যা মামলার বিষয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে একথা বলেন ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান ও অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মনিরুল ইসলাম।

সিটিটিসি প্রধান জানান, এজাহার বহির্ভূত গ্রেফতার তিনজনের নাম এজাহারে না থাকার পরেও প্রাথমিক তদন্তে তাদের সংশ্লিষ্টতার বিষয়টি আসায় তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘এজাহার দায়েরের আগেই মোট ১০ জনকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়েছে। পরদিন ওই ১০ জনকে আদালতে হাজির করে আমরা পাঁচদিন করে রিমান্ড পেয়েছি। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। পাশাপাশি এজাহার দায়েরের পরে আমরা আমাদের তৎপরতা অব্যাহত রেখেছি। ফলে এজাহার দায়েরের পর আরও পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এজাহার হচ্ছে একটি প্রাথমিক তথ্য বিবরণী। প্রাথমিকভাবে যাদের নাম এসেছে আবরার ফাহাদের বাবা তাদের নাম উল্লেখ করেছেন এবং অজ্ঞাত আরও কয়েকজনের কথা বলেছেন। তারই সূত্র ধরে এজাহারে নাম নেই কিন্তু অন্যান্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করে বা বিভিন্ন তথ্যপ্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ায় আরো তিনজনকে গ্রেফতার করেছি।’

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় রাজধানীর সবুজবাগ এলাকা থেকে অমিতকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ। এরপর আবরারের রুম থেকে তার সহপাঠী মিজানুরকেও গ্রেফতার করা হয়। এ নিয়ে আবরার হত্যার ঘটনায় ১৫ জনকে গ্রেফতার করা হলো।

উল্লেখ্য, আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের পর বুয়েট ক্যাম্পাসে আলোচনার শীর্ষে আছেন অমিত সাহা। হত্যাকাণ্ডের অন্যতম হোতা হিসেবে সব ছাত্রছাত্রীর মুখে তার নাম। বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের উপ-আইনবিষয়ক সম্পাদক তিনি। আবরার হত্যাকাণ্ডের পর থেকেই পলাতক ছিলেন তিনি।  প্রথমে অমিত সাহা’ই আবরার ফাহাদের খোঁজখবর করেন। তার কক্ষেই ডেকে নিয়ে পেটানো হয়। 


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ