আজকে

  • ৫ই ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
  • ২০শে আগস্ট, ২০১৮ ইং
  • ৯ই জিলহজ্জ, ১৪৩৯ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

মুক্ত থেকে বন্দি খালেদা জিয়া অনেক বেশি শক্তিশালী

Pub: মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮ ২:২৪ পূর্বাহ্ণ   |   Upd: মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮ ২:৪২ পূর্বাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

মিথ্যা ফরমায়েশি রায়ে জেলে বন্দি খালেদা জিয়া, মুক্ত খালেদা জিয়ার চেয়ে বন্দি খালেদা জিয়া অনেক শক্তিশালী। গণতন্ত্র আজ নির্বাসিত, চারিদিকে অবিচার দুর্নীতি আর অপশাসনের মহড়া চলছে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দি করে বাংলাদেশের ইতিহাসে এক কলঙ্কজনক অধ্যায়ের সূচনা হয়েছে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি না দিলে বাংলাদেশের জনগণ ঘরে বসে থাকবে না, তখন আর পালানোর পথ পাওয়া যাবে না।

দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী মহান স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সহধর্মিনী বাংলা দেশের তিন তিন বারের প্রধান মন্ত্রী আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবৈধ সরকারের আজ্ঞাবহ আদালত কর্তৃক মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে সরকার ঘোষিত পরিত্যক্ত ভবনে ভিতরে অমানবিক ভাবে রাখা হয়েছে।সরকার কতৃক প্রভাবিত আদালত খালেদা জিয়ার ডিভিশন নিয়ে অনেক টালবাহানা করার পরে ম্যাডামকে ডিভিশন প্রদান করে ।এই মুহূর্তে যদি বাংলাদেশে সুষ্ট নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্টিত হয় তা হলে খালেদা জিয়া জনগনের ভোট প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হবেন।খালেদা জিয়ার আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে ফেসিষ্ট বাকশালী সরকার খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলা দিয়ে জেলে ঢুকিয়ে রেখেছে। দেশবাসীর কাছে স্পষ্ট হয়ে গেছে এটা সাজানো মিথ্যা মামলা সাজানো রায় বাংলাদেশের জনগনের প্রশ্ন ৬৩০ পৃষ্টার রায় ১০ দিনে কিভাবে লিখা সম্ভব, অসৎ উদ্দেশ্য হাসিল করার জন্য এ অবৈধ রায় অনেক আগে লিখে রাখা হয়েছে।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ে সাজা হয়েছে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার। গত ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন।

এরপর থেকে রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন খালেদা জিয়া। এরই মধ্যে মামলার সত্যায়িত অনুলিপির জন্য আবেদন করেছেন তাঁর আইনজীবীরা। অনুলিপি হাতে পেলেই আবেদন করা হবে জামিনের।

খালেদা জিয়ার মামলার রায়ের তারিখ ঘোষণার পর থেকে রাজনৈতিক অঙ্গনে গুঞ্জন ওঠে যে বিএনপির প্রধানের অবর্তমানে দলে ভাঙন তৈরি হতে পারে। দলীয় প্রধানের সাজা হলে দলের জনপ্রিয়তা কমে যেতে পারে বলেও আশঙ্কা করছিল অনেকে।কিন্তু না তা না তৃণমূল নেতা কর্মীও গণতন্ত্রকামী জনতা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে তথাকথিত ১৪৪ ধারা বঙ্গ করে লক্ষ লক্ষ জনতা কারো নির্দেশের অপেক্ষা না করে রাস্তায় নেমে পড়ে।লক্ষ লক্ষ জনতার স্বেচ্ছায় উপস্হিতি প্রমা  হয় বিএনপি আগের চেয়ে অনেক গুন্ শক্তিশালী।সরকার মনে করেছিল খালেদা জিয়াকে জেলে নিলে বিএনপি ভেঙ্গে যাবে আর হাসিনার মসনদ চিরস্হায়ী হয়েযাবে। রাজপথে জনতার ঢল দেখে হাসিনার মসনদ নড়বড়ে,শান্তিপূর্ণ আন্দলনের মাধ্যমে সরকার পতনের আন্দলোন করে খালেদা জিয়াকে জেল থেকে মুক্ত করা হবে ইনশাল্লাহ।

তবে রায়ের আগের দিনই এক সংবাদ সম্মেলনে এসব আশঙ্কার জবাব দিয়ে যান সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী। জোর দিয়ে তিনি বলেছিলেন, বিএনপিকে কেউ ভাঙতে পারবে না। বিএনপি ও খালেদা আগের চেয়ে অনেক বেশি ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী।

বিএনপির একাধিক নেতা বলেছেন, চেয়ারপারসনের সাজা দলকে দুর্বল করতে পারেনি। বরং এর মাধ্যমে দলের নেতাকর্মীদের মনোবল আগের চেয়ে আরো বেশি শক্ত হয়েছে, বাড়িয়েছে ঐক্য। জনপ্রিয়তা বেড়েছে বিএনপির।
মুক্ত খালেদা জিয়ার চেয়ে মিথ্যা মামলায় সাজাপ্রাপ্ত জেলে বন্দি খালেদা জিয়া অনেক বেশি জনপ্রিয় ও শক্তিশালী। সরকার রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে জেলে নিয়েছে। এর মাধ্যমে বিএনপি নয় বরং আওয়ামী লীগের মনোবল ভেঙে গেছে। তাদের জনপ্রিয়তা নষ্ট হয়েছে।’

পৃথিবীর ইতিহাসে যেসব রাজনৈতিক দল ও নেতাদের ওপর অত্যাচার নির্যাতন করা হয়েছে তাদের সবাই শক্তিশালী ও জনপ্রিয় হয়েছে। সুতরাং যত ষড়যন্ত্রই হোক না কেন বিএনপির ঐক্যে ভাঙন ধরানো যাবে না। কারণ ম্যাডামকে জেলে নিয়ে যে বিভেদ ছিল সেটি সরকারই দূর করে দিয়েছে।’

বিএনপি একটি আদর্শিক রাজনৈতিক দল। জিয়াউর রহমানের আদর্শকে ধারণ করে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ। কোনো ষড়যন্ত্রই নেতাকর্মীদের মধ্যে বিভেদ তৈরি করতে পারবে না। তবে কেউ যদি বিএনপি ভাঙার চেষ্টা করে তাহলে তা কখনো সফল হবে না।’
দেশের এমন কোনো এলাকা নাই যেখানে বিএনপির কমিটি ও নেতাকর্মী নেই। দেশের মাটি ও মানুষের প্রাণের নেত্রী খালেদা জিয়াকে জেলে বন্দি করে তার জনপ্রিয়তা আরো অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে সরকার। কারণ পৃথিবীতে সবসময় নির্যাতিতদের পাশে থাকে জনগণ। এর আগেও জিয়াউর রহমানের শাহাদাতের পর দেশের মানুষ খালেদা জিয়াকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করে প্রধানমন্ত্রী বানান।’
‘আমাদের নেত্রী আমাদের মা। তাঁকে জেলে বন্দি করে কখনো বিএনপিকে দুর্বল করা যাবে না। অতীতের চেয়ে বিএনপি এখন আরো অনেক বেশি শক্তিশালী। দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে বিভেদ দূর হয়ে ঐক্য গড়ে উঠেছে। আর যারাই বিএনপিকে ভাঙার ষড়যন্ত্র করবে তারাই আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হবে।’

লেখক: প্রধান সম্পাদক শীর্ষ খবর

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1939 বার

 
 
 
 
ফেব্রুয়ারি ২০১৮
রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
« জানুয়ারি   মার্চ »
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮  
 
 
 
 
WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com