fbpx
 

উদ্বিগ্ন কোটি মানুষেরএকান্ত দাবি গণতন্ত্রের মা খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই

Pub: মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০ ২:৫৬ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সংবাদ মাধ্যমের নিজস্ব খবর ও পরিবারের সদস্যদের মাধ্যমে সারাদেশের মানুষ জেনে গেছে গণতন্ত্রের মা, অন্যায় কারাবন্দি, নিরাপরাধ, বিএনপি চেয়ারপার্সন ও তিনবারের নির্বাচিত সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা বেড়ে চলছে প্রতিনিয়ত।

জিয়া ট্রাস্টের অর্থ লেনদেনের সঙ্গে খালেদা জিয়ার কোনো সম্পৃক্ততা নেই, তাঁর কোনো সই-সাবুদও নেই। উপরন্তু যে টাকা তছরুপের অভিযোগ, পদ্মা সেতুতে আবুল হোসেনকে অপরাধী সাজাবার মতো বরাদ্দের আগেই দুর্নীতি এটাও ঠিক তেমন। যে টাকা তছরুপের অপরাধে শাস্তি সে টাকার চার গুণ এখনো ব্যাংকে জমা, তার পরও শাস্তি! তা যাই হোক, অনেকের ক্ষেত্রে এমন হতেই পারে এবং হয়েও থাকে। ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেওয়া হয়েছে। দুই বছর পার হয়ে কয়েকদিন। তাঁর শারীরিক অবস্থা ভালো না, এটা সবার জানা। আমি কারও ভয়ে নিজের কথা, বুকের ব্যথা ব্যক্ত করতে কখনো দ্বিধা করিনি। বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে মারা গেলে যে যাই বলুন তিনি এক মহান শ্রেষ্ঠ জাতীয় নেতার মর্যাদা পাবেন।

দুই বছর আগে বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৮, সুস্থ সচল খালেদা জিয়াকে কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হয়।
এরপর রোববার, এপ্রিল ৭, ২০১৮, কারাবন্দিত্বের দুই মাস পরে স্বাস্থ্যপরীক্ষার জন্য বিএসএমএমইউতে নেয়া হয় সাবেক তিনবারের নির্বাচিত সফল প্রধানমন্ত্রীকে। সেইসময়েও তিনি হেঁটে হাসপাতালে প্রবেশ করেন। তাঁর হাস্যজ্জ্বল ছবি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়।

কিন্তু এরপর থেকে যখনি তাঁকে হাসপাতালে নেয়া হয়, উনাকে হুইল চেয়ারে বসিয়ে নেয়া হয়। অর্থাৎ কারাগারে বেগম জিয়া বিনা চিকিৎসায় ধীরে ধীরে অসুস্থ হয়ে পড়েন।
ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২০, দৈনিক মানব জমিনে মরিয়ম চম্পার এক রিপোর্টে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার শোচনীয় বিপর্যয়ের কথা জানা যায়।

রিপোর্টে বলা হয় —পিঠে ঘা হয়েছে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার। হাত-পা ও পিঠের ব্যথায় কাতর তিনি। অন্যের সহযোগিতা ছাড়া বিছানা থেকে উঠে বসতে বা কিছু খেতে পারেন না। ঠাণ্ডার কারণে সন্ধ্যা থেকে রাতের বেশির ভাগ সময় শ্বাসকষ্টে ভোগেন।

পিঠে ঘা হয়ে যাওয়া এক ভয়ঙ্কর স্বাস্থ্য পরিস্থিতি। শ্বাসকষ্ট আরেক ভয়ানক অবস্থা। খেতে তো পারেনই না। হাত পা বেঁকে গেছে। নিজে নিজে কিছুই করতে পারেন না। আর কত অসুস্থ হলে বলা হবে উনি জামিন পাবেন?
ডিসেম্বর ১১, ২০১৯, সুপ্রিমকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের কাছে বিএসএমএমইউয়ের ভাইস চ্যান্সেলরের স্বাক্ষরিত একটি চিঠির সাথে মেডিক্যাল বোর্ডের পাঠানো রিপোর্ট যা বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে তাতে বলা হয়েছে —
বেগম জিয়ার ক্ষেত্রে, প্রথম দফায় প্রচলিত থেরাপির মাধ্যমে উপশম আসেনি। […] এখন পর্যন্ত রিউমাটোয়েড আর্থ্রাইটিসের চিকিৎসা আগের মতোই নিম্নমানের।

একই রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে —
বেগম জিয়ার রিউমাটোয়েড আর্থ্রাইটিস খুবই সক্রিয় অবস্থায় আছে। এটি তাঁর একাধিক সন্ধিতে ক্ষয়সাধন করেছে, ফলে তিনি বর্তমানে পঙ্গু অবস্থায় আছেন এবং দৈনন্দিন কাজের ক্ষেত্রে তিনি অন্য কারও সহায়তার ওপর প্রায় সম্পূর্ণই নির্ভরশীল হয়ে পড়েছেন।
মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২০, বিএনপি চেয়ারপার্সনকে দেখে এসে সাংবাদিকদের বেগম খালেদা জিয়ার বোন সেলিমা ইসলাম কান্না জড়িত কণ্ঠে জানান —
খালেদা জিয়ার শরীর খুবই খারাপ। তিনি শ্বাসকষ্টে ভুগছেন। একদম কথাই বলতে পারছেন না। তার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।
সব সূত্র বলছে, বেগম খালেদা জিয়া অত্যন্ত অসুস্থ। উনার চিকিৎসা হচ্ছে না। সুস্থ খালেদা জিয়া আজ
ভয়ানক অসুস্থ। এমন পরিস্থিতিতে উনার জামিন পাওয়া তাঁর অধিকার।
ভয়ঙ্কর অসুস্থ অবস্থায় একের পর এক দিন চলে যাচ্ছে। মূল্যবান সময় ফুরিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু উনার জামিন হচ্ছে না। সমগ্র জাতি দাবি করছে অনতি বিলম্বে উনাকে মুক্তি দেয়া হউক। উদ্বিগ্ন কোটি মানুষের আজ একান্ত দাবি —।

লেখক:প্রধান সম্পাদক শীর্ষ খবর ডটকম

Hits: 560


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ