গণহারে ফেল, ঢাবি তোমার খেল’ স্লোগানে শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

Pub: মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০১৯ ২:৫৭ অপরাহ্ণ   |   Upd: মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০১৯ ২:৫৭ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ঢাকা: রাজধানীর নীলক্ষেত এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিভুক্ত হওয়া সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। সেশনজট নিরসন, ত্রুটিপূর্ণ ফল সংশোধন ও ফল প্রকাশের দীর্ঘসূত্রতা দূর করাসহ নানা সমস্যা সমাধানের দাবিতে সড়ক অবরোধ করেছেন তারা।
আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে পাঁচ দফা দাবিতে মানববন্ধন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। পরে তারা সড়ক অবরোধ করেন। এ কারণে ঢাকা কলেজের সামনে থেকে নীলক্ষেত ও সাইন্সল্যাব পর্যন্ত ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন হাজারো মানুষ।
আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ঢাবির অধিভুক্ত হওয়ার পর দীর্ঘদিন এই সাত কলেজের কার্যক্রম বন্ধ ছিল। প্রায় ২ বছর ২ মাস অতিবাহিত হলেও সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা তেমন কোনো সুফল ভোগ করতে পারছে না।

শিক্ষার্থীদের দাবি, পরীক্ষার খাতা মূল্যায়নে চরম বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন তারা। সবশেষ পরীক্ষায় ঢাকা কলেজ বাংলা বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ২১৬ জন শিক্ষার্থীদের মধ্যে সব বিষয়ে পাশ করেছেন মাত্র ৩ জন। রসায়নে ৪৮ জনের মধ্যে ৪০ জন অকৃতকার্য হয়েছেন।
তবিবুর নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘ঢাবি আমাদের যে মান অনুযায়ী পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন করে সেই মান অনুযায়ী ক্লাসে পড়ানো হয় না। এমনও বিষয় আছে পাঁচটির বেশি ক্লাস হয় না। নানা অজুহাতে ক্লাস বন্ধ থাকে।’
আনোয়ার হোসেন নামে আরেক শিক্ষার্থী বলেন, ‘আমাদের সমস্যাগুলো নিয়ে কলেজের শিক্ষকদের কাছে গেলে উনারা বলেন, ঢাবি তোমাদের সব কার্যক্রম করছে। এরপর ঢাবির প্রশাসনিক ভবনে গেলে বলে সাত কলেজের শিক্ষকরা সভা করে সকল সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। এভাবেই দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হচ্ছে আমাদের।’
এ সময় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা নানা ধরনের লেখা ব্যানার হাতে নিয়ে বিভিন্ন স্লোগান দেন। যেমন ‘গণহারে আর ফেল নয়, যথাযথ রেজাল্ট চাই’, ‘শিক্ষা কোনো পণ্য নয়,শিক্ষা নিয়ে ব্যবসা নয়’, ‘গণহারে ফেল, ঢাবি তোমার খেল’, ‘বন্ধ করো অনাচার, সাত কলেজের আবদার’ ইত্যাদি। এদিকে সড়ক অবরোধের পরে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ৫ দফা দাবিগুলো হচ্ছে-
১. পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে ত্রুটিমুক্ত ফলাফল প্রকাশসহ একটি বর্ষের সকল বিভাগের ফলাফল একত্রে প্রকাশ করতে হবে।
২. ডিগ্রী, অনার্স, মাস্টার্স সকল বর্ষের ফলাফল গণহারে অকৃতকার্য হওয়ার কারণ প্রকাশসহ খাতার পুনঃমূল্যায়ন করতে হবে।
৩. সাত কলেজ পরিচালনার জন্য স্বতন্ত্র প্রশাসনিক ভবন চাই।
৪. প্রতি মাসে প্রত্যেকটা ডিপার্টমেন্টে প্রতি কলেজে দুইদিন করে মোট ১৪ দিন ঢাবির শিক্ষকদের ক্লাস নিতে হবে।
৫. সেশনজট নিরসনের লক্ষ্যে অ্যাকাডেমিক ক্যালেন্ডার প্রকাশসহ ক্রাশ প্রোগ্রাম চালু করা।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1075 বার