ইন্টেগ্রিটি ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজ সেরা স্বীকৃতি পেলো

Pub: সোমবার, মে ৬, ২০১৯ ৪:২৯ অপরাহ্ণ   |   Upd: সোমবার, মে ৬, ২০১৯ ৪:২৯ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিবেদক :
বেঙ্গল হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে গতকাল শনিবার রাতে ঢাকা বিজয়নগরস্থ হোটেল অর্নেট ইন্টারন্যাশলে মহান মে দিবস উপলক্ষে “স্বপ্নের পদ্মা সেতু ও গণতন্ত্রের রুপকার বর্তমান সরকার” শীর্ষক আলোচনা সভা, গুণীজন সম্মাননা ও নৈশ ভোজের আয়োজন করা হয়।

সংগঠনের উপদেষ্টা ও বিশিষ্ট আইনজীবি আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন- সাবেক তথ্য ও সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ দিদার বখত, উদ্বোধক হিসাবে বক্তব্য রাখেন ভাষা সৈনিক রেজাউল করিম, বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন ইন্টেগ্রিটি ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের চেয়ারম্যান প্রিন্সিপাল মোল্লা শহিদুল ইসলাম, জাতীয় মানবাধিকার সমিতির চেয়ারম্যান মোঃ মঞ্জুর হোসেন ঈসা, মেহেরপুর জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মোছা: নর্গিস আরা, ছাত্র নেতা বাধন, স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি কাজী জামাল উদ্দিন।

অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণ করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আতিকা ইয়াসমিন। অনুষ্ঠানে ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল “ইন্টেগ্রিটি ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজ” কে দেশ সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বীকৃতি প্রদান করা হয় এবং স্মারক সম্মাননা পদক প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান প্রিন্সিপাল মোল্লা শহিদুল ইসলামের হাতে তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি।
এসময় সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বীকৃতি পাওয়ায় বেঙ্গল হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশনের নেতৃবৃন্দকে আন্তরিক অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, ঢাকা সিটি ছাড়াও সারা বাংলাদেশে আমাদের বিশটি শাখা রয়েছে। তিনি বলেন, ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল হলেও এখানে গুরুত্বের সাথে নৈতিকতা, দেশপ্রেম ও মানবতার শিক্ষা দেওয়া হয়। প্রতিটি শিক্ষার্থীদের লেখা-পড়ার পাশাপাশি সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগীতা সহ খেলাধুলার প্রতিও বিশেষ নজর রাখা হয়। আমরা সু-শিক্ষিত তৈরী করার আগে মানুষ তৈরী করার প্রতি বিশেষ নজর দেই। সকলের সহযোগীতা পেলে ভবিষ্যতে আমরা আরো ভাল কাজ করতে চাই।

প্রধান অতিথি বলেন, ১৯৭৪ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু হেলিকপ্টারে মাওয়া তে গিয়েছিলেন এবং তিনি সেই সময় দক্ষিণ অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য পদ্মা সেতু করার ঘোষণা দিয়েছিলেন সেই ঐতিহাসিক মুহুর্তে একজন সাংবাদিক হিসাবে বঙ্গবন্ধুর সফর সঙ্গী ছিলাম।

সৈয়দ দিদার বখত আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্ন অত্যন্ত দৃঢ়তার সাথে সফল করেছেন তাঁরই কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা। আমরা এখন আশা করতেই পারি। স্বপ্নের পদ্মাসেতু দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের স্বপ্ন পূরণে এক ঐতিহাসিক ভূমিকা রাখবে।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1063 বার