ছাত্রলীগের একাংশের টানা ২১ দিন অবস্থান, আশ্বাসও মেলেনি

Pub: শনিবার, জুন ১৫, ২০১৯ ৬:৩০ অপরাহ্ণ   |   Upd: শনিবার, জুন ১৫, ২০১৯ ৬:৩০ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যে টানা ২১তম দিনের মতো অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে কাঙ্ক্ষিত পদ না পাওয়া ও পদবঞ্চিত নেতারা।

তাদের অভিযোগ- স্বয়ং প্রধানমন্ত্রীর কথারও তোয়াক্কা করেননি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের শোভন-রাব্বানী। ২১তম দিনেও এখনও তাদের চার দফা দাবির একটি পূরণেও আশ্বাস পাননি তারা।

শনিবার (১৫ জুন) রাজু ভাস্কর্যে তাদের অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে দেখা যায়।

এর আগে সম্মেলনের এক বছর পর গত ১৩ মে ছাত্রলীগের ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হলে তা পুনর্গঠনের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন কাঙ্ক্ষিত পদ না পাওয়া ও পদবঞ্চিত নেতারা।

তারা অভিযোগ করেন- বিবাহিত, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী, চাকরিজীবী ও বিভিন্ন মামলার আসামিসহ নানা অভিযুক্ত অনেককে পদ দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে বঞ্চিত করা হয়েছে অনেক ত্যাগী নেতাকে। এ নিয়ে বিক্ষুব্ধদের সঙ্গে মারামারিও বাঁধে কমিটিতে পদ পাওয়া নেতাদের। এরপর কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার এক পর্যায়ে আশ্বাসে পিছু হটে বিক্ষুব্ধরা।

বিক্ষুব্ধদের আন্দোলনের মুখে গত ১৯ মে ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বিতর্কিত ১৭ জনের নাম প্রকাশ করেন এবং তাদের নির্দোষ প্রমাণেরও সুযোগ দেন। এদিকে গত ২৮ মে বিদ্রোহীদের তোপের মুখে বিতর্কিত ১৯টি পদ শূন্য ঘোষণা করা হয়। কিন্তু সেটাকে শুভঙ্করের ফাঁকি বলে ঘোষণা দেন তারা।

এরপর ২৯ মে পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দেয়ার কর্মসূচি ঘোষণা হলে ফের অবস্থানে ফেরে বিক্ষুব্ধরা; তাদের দাবি, আগে বিতর্কিত সবাইকে সরাতে হবে, তারপরই যেন কর্মসূচি নেয়া হয়।

২৬ মে রাত থেকেই রোদ-বৃষ্টির মধ্যেও তারা এই কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন। দাবি মানা না হলে ঈদ পেরিয়েও অবস্থান ধরে রাখার ঘোষণা দিয়েছিলেন তারা। ঠিক ৫ জুন ইদের দিনেও তাদের অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত থাকে।

এদিকে অবস্থানের আজ ২১তম দিনেও মেলেনি কোনো ধরনের আশ্বাস, অভিযোগ অবস্থান কর্মসূচির মুখপাত্র ছাত্রলীগের সাবেক কর্মসূচি ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেনের। তিনি বলেন, ‘আমরা দীর্ঘ ২১ দিন ধরে এখানে (রাজু ভাস্কর্যে) মানবেতর জীবনযাপন করছি। অথচ আমাদের দাবিগুলো বাস্তবায়ন হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘ছাত্রলীগের গত মাসে (১৩ মে) কমিটি দেয়ার পর থেকে একমাস হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত বিতর্কিতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। আমরা ৯৯ জন বিতর্কিত নেতার তালিকা দিলেও ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ২৮ মে রাতে বিতর্কিত মাত্র ১৯ জনকে বহিষ্কার করেন। কিন্তু তারা কাদের বহিষ্কার করেছেন তাও জানাননি। আমাদের পদ-পদবি মুখ্য নয়, আমরা ছাত্রলীগকে কলঙ্কমুক্ত করতে চাই।’

পদবঞ্চিতদের চার দফা দাবি- দাবিগুলো হলো- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ, কমিটি থেকে বিতর্কিতদের বাদ দেয়া, যোগ্যদের কমিটিতে পদায়ন এবং মধুর ক্যানটিন ও টিএসসিতে পদবঞ্চিতদের ওপর হামলার সুষ্ঠু বিচার।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ