fbpx
 

প্রক্টরিয়াল বডির পাহারায় জাবিতে এলো ছাত্রদল!

Pub: মঙ্গলবার, আগস্ট ২০, ২০১৯ ৯:৩৪ অপরাহ্ণ   |   Upd: মঙ্গলবার, আগস্ট ২০, ২০১৯ ৯:৩৪ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জাকসু নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রক্টরিয়াল বডির পাহারায় দীর্ঘ ১০ বছর পর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রবেশ করেছে শাখা ছাত্রদলের শীর্ষ দুই নেতা।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) বিকেল ৪ টার দিকে শাখা ছাত্রদলের সভাপতি মো. সোহেল রানা ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম সৈকত প্রক্টরিয়াল বডির গাড়িতে করে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে। 

এর আগে তাদেরকে প্রক্টরিয়াল বডির তিন সদস্য বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী রেডিও কলোনি এলাকা থেকে গাড়িতে করে নিয়ে আসেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরাতন রেজিষ্ট্রার ভবনে অবস্থিত প্রক্টর অফিসে তাদের সাথে আলোচনায় বসেন জাকসু নির্বাচনের প্রস্তুতি কমিটি। আলোচনা শেষে তাদেরকে আবারও রেডিও কলোনিতে দিয়ে আসে প্রক্টরিয়াল বডি। 

এই আলোচনায় শাখা ছাত্রদল ৫ দফা দাবি তুলে ধরেন। তাদের দাবিগুলো হলো- 

১. যে সকল শিক্ষার্থী রাজনৈতিক, যুক্তিযুক্ত কারণে  স্নাতক, স্নাতকোত্তর পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে না পারায় নিয়মিত শিক্ষার্থীর বঞ্চিত হয়েছেন তাদের যার যার প্রয়োজন অনুসারে পুনঃভর্তি এবং পুনঃপরীক্ষার সুযোগ দিতে হবে। নিয়মিত ছাত্র হিসেবে তাদেরকে আসন্ন জাকসু নির্বাচনে ভোটার তালিকায় ভোটার হিসেবে অন্তর্ভূক্ত করতে হবে এবং প্রার্থী হিসেবে অংশগ্রহণের সুযোগ দিতে হবে।

২. অনতিবিলম্বে বাংলাদেশে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলসহ সকল রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের হলে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থায়ী সহাবস্থান নিশ্চিত করতে হবে।

৩. সহাবস্থানের পূর্বে জাকসু নির্রবাচনের তফসিল ঘোষণা করা যাবেনা।

৪.বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক দায়েরকৃত সকল মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।

৫. নির্বাচন প্রস্তুতি ও প্রচারনাকালীন সময়ে রাজনৈতিক, প্রশাসনিক ও পুলিশি হয়রানি বন্ধ করতে হবে এবং হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা না হওয়ার নিশ্চয়তা দিতে হবে।

আলোচনা শেষে ছাত্রদলের সভাপতি সোহেল রানা বলেন, ‘আমরা প্রশাসনের নিকট আমাদের দাবিগুলো তুলে ধরেছি, পাশাপাশি দাবিগুলোর পক্ষে যুক্তিও তুলে ধরেছি। আশা করছি প্রশাসন আমাদের দাবিগুলো বিবেচনা করবে।’

প্রসঙ্গত, গত ২৮জুন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৮তম সিনেট অধিবেশন শুরুর পূর্বে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম ঘোষণা দেন আগামী নভেম্বরের মধ্যে জাকসু নির্বাচন সম্পন্ন করবেন। এই ঘোষণার পর গত ৩১ জুলাই জাকসুর প্রধান নির্বাচন কমিশন নিয়োগ দেয়া হয়। এছাড়া সক্রিয় বিভিন্ন রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সাংবাদিক নেতাদের সাথে আলোচনায় বসেন জাকসু প্রস্তুতি কমিটি। এসব আলোচনা থেকে সংগঠনগুলো তাদের দাবি ও প্রস্তবনা তুলে ধরছেন।   


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ