fbpx
 

ইবিতে দফায় দফায় ছাত্রলীগের সংঘর্ষ, রক্তাক্ত ৮

Pub: Wednesday, November 20, 2019 11:34 PM
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখা ছাত্রলীগের বিদ্রোহী দলের মাঝে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছে ৮ জন। সংঘর্ষে লিপ্ত হওয়া সবাই ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাতের অনুসারী বলে জানা গেছে।        

বুধবার (২০ নভেম্বর) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিয়া হল মোড়ে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শাখা ছাত্রলীগের বিদ্রোহী গ্রুপের ১১ কর্মী আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সংঘর্ষের ঘটনায় বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী রক্তাক্ত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। আল-ফিকহ্ এন্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগের ১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের নিশাত সরকার বাঁধন, সালমান ওয়াহিদ, স্বাধীন, আইন ও ভূমি ব্যবস্থাপনা বিভাগের ১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের রিজভী আহমেদ ওসান, রানা, সমাজকর্ম বিভাগের ১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের রাব্বি, লোকপ্রশাসন বিভাগের ১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের জয়, ঝিনুক, আইন বিভাগের ১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র রিফাজুর রহমান উদয়, উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের ১৮-১৯ বিভাগের ছাত্র দ্বিরাজ রায় ও দাওয়াত বিভাগের হাসানসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে।

মেডিকেল সূত্রে জানা যায়, আহতদের বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেলে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া গুরুতর ভাবে আহত একজনকে কুষ্টিয়া মেডিকেলে স্থানান্তর করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সন্ধ্যার পর জিয়া হল মোড়ে আইন ও ভূমি ব্যবস্থাপনা বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের রিজভী আহমেদ ওশান হেটে যাওয়ার সময় তাকে ডাকে লোক প্রশাসন বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ঝিনুক, আলাল ইবনে জয় এবং চঞ্চু চাকামা। 

এসময় তারা ওশানের কাছে সিনিয়রদের সাথে খারাপ আচরণ করার কারণ জানতে চায় এবং এক পর্যায়ে তাকে চড়-থাপ্পড় মারে। আর এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওশান জিয়া হল মোড়ে কয়েকজনকে সাথে নিয়ে ঝিনুক, আলাল ইবনে জয় এবং চঞ্চু চাকামার ওপর হামলা করে।

একপর্যায়ে সেখানে বেশ জটলা সৃষ্টি হলে উভয় গ্রুপের কর্মীরা বাঁশ ও লাঠি নিয়ে কয়েক দফায় সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরবর্তীতে এই ঘটনার রেশ ধরে জিয়া মোড়, বঙ্গবন্ধু হল এবং ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের সামনে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

ঘটনার আকস্মিকতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে এবং আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে আবাসিক শিক্ষার্থীদের মাঝে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর (দায়িত্বপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্মন বলেন, ‘বিষয়টি শোনা মাত্র আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। উভয় গ্রুপকে স্ব-স্ব হলে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। গভীররাত পর্যন্ত ক্যাম্পাসে থাকবো। আশা করছি নতুন করে কোন সমস্যা তৈরি হবে না।’


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ