বড়লেখা ফাউন্ডেশন ইউকের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

Pub: বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ৮, ২০১৮ ৩:৩৬ অপরাহ্ণ   |   Upd: বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ৮, ২০১৮ ৩:৩৬ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

তাজুল ইসলাম লন্ডন থেকে: ৫ ই নভেম্বর ২০১৮ রোজ সোমবার ইষ্ট লন্ডন এর মাইলেন্ডে ” ইষ্ট ইন্ড ” অডিটোরিয়ামে বড়লেখা ফাউন্ডেশন ইউকের ট্রাস্টি -এবং জেনারেল মেম্বার দের নিয়ে আনন্দঘন পরিবেশে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়ে গেল।

সভাপতি জামাল উদ্দিন এর সভাপতিত্বে এবং সম্পাদক ফয়সল রহমান ও যুগ্ম সম্পাদক কামরুল ইসলাম এর যৌথ পরিচালনায় সংঘটনের স্থায়ী কমিটির অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,- সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহিন ইকবাল, কোষাধ্যক্ষ সোহেল রহমান, সহ-কোষাধ্যক্ষ আবুল কাশেম, আবু রহমান, নজরুল ইসলাম নজু, সলিসিটর আবুল কালাম রুকন, এবং আকবর হুসেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই যুগ্ম সম্পাদক কামরুল ইসলাম এর চাচা বড়লেখার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ” সুলভ প্রিন্টিং প্রেস ” এর স্বত্বাধিকারী ফখরুদ্দিন ফকু এবং ট্রাস্টি শওকত হোসেন এর মাতার রোগমুক্তি কামনা করে ট্রাস্টি জনাব সফিকুর রহমান এর পরিচালনায় এক দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

দোয়া পরবর্তী আলোচনায় ফ্রান্স থেকে আগত বড়লেখা ফাউন্ডেশন এর ফ্রান্স প্রতিনিধি সাবেক জাতীয় দলের ফুটবলার লুলু র অংশগ্রহনের মধ্য দিয়ে স্বাগত বক্তব্যে সহ-সভাপতি শাহিন ইকবাল বলেন ” আমাদের সংঘটন একটি কৃস্টাল ক্লিয়ার সংঘটন, এখানে সবকিছুই সবার কাছে উম্মুক্ত। কোথায়-কখন-কি হচ্ছে তা সকল ট্রাস্টির জানার অধিকার রয়েছে ”

বিশিষ্ট ক্রিড়াবিদ, দানবীর, বড়লেখা ফাউন্ডেশন এর সভাপতি জনাব জামাল উদ্দিন বলেন আগামী বছরের ফেব্রুয়ারিতে বড়লেখা এবং জুড়ীতে প্রায় ১৩০ টি হুইল চেয়ার এবং দুইটি গৃহ নির্মানের পরিকল্পনা রয়েছে।

বড়লেখা ফাউন্ডেশন এর প্রান পুরুষ, যার অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল আজকের এই ৮০ জন ট্রাস্টির সংগটন, সেই কামরুল ইসলাম বলেন আমরা হুইল চেয়ার বিতরন এবং গৃহ নির্মাণ এর পাশাপাশি খুব শিগগির বড়লেখায় একটি ডায়াবেটিক হাসপাতাল এবং একটি চক্ষু হাসপাতাল চালু করার কাজ শুরু করতে যাচ্ছি।

ট্রেজারার সোহেল রহমান বলেন” মাত্র এক বছরের মধ্যে সংঘটনের তহবিলে প্রায় ১২ হাজার পাউন্ড জমা হয়েছে, এবং আরোও ৬ হাজার পাউন্ড জমা হওয়ার প্রতিশ্রুতি রয়েছে।

সহ কোষাধ্যক্ষ আবুল কাশেম বলেন সংগ্রহীত সকল অর্থই ট্রাস্টি দের মতামতের ভিত্তিতেই গরিব অসহায় দের মাঝে বিলিয়ে দেয়া হবে।

স্টেন্ডিং কমিটি মেম্বার আবু রহমান বলেন আগামীতে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম কেও সংঘটনের সদস্য করতে হবে, এভাবেই নবিন ও প্রবিনের সেতুবন্ধন সৃষ্টি হবে।

আবু রহমানের আহবানে সাড়া দিয়ে সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট শাহিন ইকবাল তার একমাত্র সন্তান বড়লেখার গর্ব উদিয়মান কন্ঠ শিল্পী মাহিমা ইকবালের জন্য ফাউন্ডেশন এর সদস্য পদ গ্রহন করেন, আর এর মধ্যে দিয়ে মাহিমা ইকবাল হলেন সংঘটনের সর্ব কনিষ্ঠ সদস্য। উল্লেখ্য মিসেস ইকবাল ও একই সময়ে সদস্যপদ গ্রহন করেন। আর এভাবেই তিন সদস্য বিশিষ্ট পরিবার টির সবাই বড়লেখা ফাউন্ডেশন এর সদস্য হয়ে গেলেন।

স্পেনের বাংগালি কমিউনিটির প্রিয়মুখ সেন্ডিং কমিটি মেম্বার নজরুল ইসলাম নজু বলেন ট্রাস্টিদের সকল অর্থই দুস্তদের মাঝে বিতরন করা হবে। সাংগঠনিক কাজের সকল ব্যয় ভার আমরা স্থায়ী কমিটির সদস্যরাই বহন করে থাকি।

সাবেক কাউন্সিলর আতা রহমান বলেন আজ থেকে বড়লেখা ফাউন্ডেশন এর ট্রাস্টি হিসাবে আমরা প্রত্যেকে নিজের পরিবারের মহিলাদের কেও জড়িত করতে হবে, এবং তিনি তার সহধর্মিণী র জন্য একটি সদস্য ফর্ম পূরন করে বড়লেখা ফাউন্ডেশন এর প্রথম মহিলা সদস্য পদ গ্রহন করেন।

মহিউস সুন্নাহ একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা ফয়জুর রহমান বলেন আমরা সবাই যদি আমাদের বাৎসরিক যাকাতের টাকা গুলা বড়লেখা ফাউন্ডেশন এর তহবিলে দান করি তাহলেই এই সংঘটন টি তাদের চ্যারিটি কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারে।

বীর মুক্তিযোদ্ধা পীরজাদা হুসেন আহমদ বলেন একটি ব্যাংক একাউন্ট ওপেন, এবং মাসিক একটি চাঁদা প্রদানের মাধ্যমে সংঘটন কে সক্রিয় রাখা সম্ভব।

কেম্ব্রিজ থেকে আগত ট্রাস্টি সলিসিটর নাসির বলেন বড়লেখা ফাউন্ডেশন এর প্রধান নীতি বাক্য হচ্ছে “Unity is our ability ” এটা তারা প্রমান করেছে তাদের কার্যক্রমের মাধ্যমে।

পিটারবোগ থেকে আগত ট্রাস্টি হাবিব বলেন মাসিক ডাইরেক্ট ডেভিড করে সবাই নিয়মিত চাঁদা প্রদান করে ফাউন্ডেশন কে সচল রাখতে পারি।

সুজানগর ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকের সেক্রেটারি আজিম উদ্দিন বলেন ফাউন্ডেশন এর জয়েন্ট সেক্রেটারি কামরুল ইসলামের সাংগঠনিক দক্ষতা, বিশেষ করে বড়লেখার অসহায় মানুষের জন্য কিছু করার যে আপ্রাণ চেষ্টাই তাকে অনুপ্রাণিত করেছে এই সংঘটনের ট্রাস্টি হতে।

আলোচনা পর্বে আরোও যারা অংশগ্রহণ করেন, বড়লেখা ফ্রেন্ডস ক্লাবের সেক্রেটারি বেলাল, জয়েন্ট সেক্রেটারি সাহেদ আহমদ বলেন– এই সংঘটন এর কর্মকর্তাদের মাঝে Transparency এবং Unity র সমন্নয় রয়েছে বলেই এরা এগিয়ে যাবে।

ভাইস প্রেসিডেন্ট কাজী নজরুল, এবং নাজমুল ইসলাম, বলেন– ” বড়লেখা ফাউন্ডেশন কে নিয়ে ছিল অনেক প্রশ্ন, অনেক জল্পনাকল্পনা, কিন্তু আজকের সভায় এসে আমরা আমাদের সকল প্রশ্নের উত্তর পেয়ে গেছি”

ব্যবসায়ী আহমদ হুসেন, মিসবা উদ্দিন , সাইফুদ্দিন সুনাম, জুড়ি কলেজের সাবেক অধ্যাপক সফিকুল হক স্বপন বলেন -” সমাজের কল্যাণ এর জন্য কাজ করতে হলে অনেক ত্যাগ স্বিকার করতে হয়, বড়লেখা ফাউন্ডেশন এর পরিচালক দের সে গুনটি রয়েছে, তাই তারা পারবেন বড়লেখার অসহায় দের জন্য কিছু করতে।

লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের ইনফরমেশন সেক্রেটারি সাংবাদিক সালেহ আহমেদ এবং লন্ডন স্থ সাপ্তাহিক দেশ এর সম্পাদক তাইসির মাহমুদ বলেন – লন্ডনে সত্যিকার অর্থে ” বড়লেখা ফাউন্ডেশন ইউকে” ই একমাত্র চ্যারিটি সংঘটন যা বড়লেখার গরিব অসহায় মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

সভাশেষে সভাপতি জামাল উদ্দিন সবাই কে ডিনার পর্বে অংশগ্রহনের আহবান জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1079 বার