তথাকথিত অন্তবর্তীকালীন কমিটির সাথে আমার কোন সম্পর্ক নেই – আব্দুল বাছির

Pub: রবিবার, মে ১২, ২০১৯ ৬:২০ অপরাহ্ণ   |   Upd: রবিবার, মে ১২, ২০১৯ ৬:২০ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

গোলাপগঞ্জ উপজেলার জনগণের জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন বিশেষ করে যারা আর্থ-সামাজিক দিক দিয়ে পশ্চাতপদ তাদের দারিদ্র বিমোচন, শিক্ষার উন্নয়ন, অসুখ-বিসুখ ও দু:খ দুর্দশা লাঘবের ক্ষেত্রে সহায়তা প্রদান করার লক্ষ্যে ২০১২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল গোলাপগঞ্জ হেলপিং হ্যান্ডস ইউকে। আমি এই সংগঠনের ১৯ জন প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের একজন হিসেবে আমার সাধ্যমত সংগঠনের মঙ্গলের জন্য কাজ করেছি এবং এখনো করে যাচ্ছি। আপনাদের সকলের অংশগ্রহণে আজ এই সংগঠন ইউকে সহ সারা বিশ্বে একটি পরিচিত নাম। আপনাদের সাহায্য ও সহযোগিতায় সংগঠনটি আমাদের প্রিয় গোলাপগঞ্জের মাটি ও মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে।

২০১৯ সালের ৭ এপ্রিল হেলপিং হ্যান্ডস ইউকের নির্বাচনের তারিখ ধার্য করা হয়েছিল প্রায় দু’বছর আগে। আমরা নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য গত বছর নভেম্বর মাসের শুরু থেকে বিভিন্ন সভা, মতবিনিময় সভা করে আসছি।
গত ৭ এপ্রিল নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের জন্য আমরা দাবি করে আসছিলাম। আমাদের প্যানেলের সর্বশেষ মিটিংয়ে (সম্ভবত ৩ এপ্রিল) আমাদের আমরা সর্বসম্মত ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম, যেহেতু মুরব্বীগণ এ ব্যপারে আলোচনা করে যাচ্ছেন সুতরাং তাদের সিদ্ধান্তকেই আমাদের সিদ্ধান্ত হিসেবে মেনে নেব। পরবর্তীসময়ে ৫ এপ্রিল নির্বাচন কমিশন দুই প্যানেলের নেতৃবৃন্দ সহ মুরব্বীদের নিয়ে একটি সভা আহ্বান করেন। আমাদের প্যানেল থেকে উপস্থিত হই তমিজুর রহমান রঞ্জু, আব্দুল মুনিম জাহেদী ক্যারল, নাহিন মাহমুদ, আনোয়ার শাহজাহান, আরেফ মঞ্জুর মিঠু, ইকবাল হোসেন এবং আমি।

ঐদিন আমাদের দাবি উপস্থাপন করে ছিলাম। সেই সাথে বলেছিলাম মুরব্বীরা যে সিদ্ধান্ত নিবেন আমরা সেটি মেনে নেব। কারণ এটিই ছিল আমাদের গ্রুপের সিদ্ধান্ত।

ঐদিন রাত মুরব্বীরা সিদ্ধান্ত নিলেন পরের দিন আমাদের প্যানেলের পক্ষ থেকে সভাপতি/ সাধারণ সম্পাদক এবং কোষাধ্যক্ষের পদে নমিনেশন জমা দিলে নির্বাচনের তারিখ পেছানো হবে। পরের দিন রাত ৮ ঘটিকার মধ্যে নমিনেশন জমা না দিয়ে হঠাৎ দেখতে পাই মুরব্বীদের সিদ্ধান্ত না মেনে একটি প্রতিবাদী চিঠি দেয়া হয় যার কিছুই জানি না এবং একটা তথাকথিত অন্তবর্তীকালীন কমিটির নাম প্রকাশ করা হ্য়। যদিও ৩ তারিখে আমাদের সিদ্ধান্ত ছিল কাউকে না বলে কারো অমতে কমিটিতে নাম প্রকাশ না করার জন্য।

এই তথাকথিত কমিটিতে নিজের নাম দেখে অনেকেই আমাকে ফোন করে তাদের প্রতিবাদ জানান। আমি বার বার বলেছি সংগঠনের সুনাম বিনষ্টকারী কোন তথাকথিত কমিটিতে আমার নাম না দেয়ার জন্য।

আমি সাধারণ সদস্যদের অবগতির জন্য জানাচ্ছি, তথাকথিত অন্তবর্তীকালীন কমিটির সাথে আমার কোন সম্পর্ক নেই। আমি অনুরোধ করছি আমাদের নাম ব্যবহার করে সাধারণ সদস্যদের বিভ্রান্ত করবেন না। ভবিষ্যতে আমাদের নাম ব্যবহার করবেন না।

গত বৃহস্পতিবার হেলপিং হ্যান্ডসের ইফতার মাহফিলে আমরা উপস্থিত হবার পর দেখতে পেলাম কিছু স্বশিক্ষিত লোক ফেইসবুকে, ওয়াটসআপে আমাদের সম্পর্কে অসত্য কথা লিখে ছবি সহ পোস্ট করেছেন,আমি তাতে কোনো কষ্ট পাইনি কিন্তু দু:খ লাগে এইভেবে যে সৃষ্টির সেরা জীব মানুষ হয়েও কেনো মনুষ্যত্ব নিয়ে অনেকেই কেনো আজো মানুষ হতে পারলোনা।

যেহেতু পরবর্তী সময়ে নির্বাচন করার কোনো সুপরিকল্পিত চিন্তা না নিয়ে শুধু আমিত্বকে অগ্রাধিকার দিয়ে ব্যক্তিগত চাওয়া পাওয়াকে সামনে রেখে বিরোধিতা শুরু হলো তখন আমি মনে করেছি সংগঠনের ব্যক্তি এবং এলাকার বিরোধে বিতর্কিত হয়ে কোনো ভাবেই ভাবমূর্তি নষ্ট হতে পারেনা।তাই আমি সহ আমরা অনেকেই চেষ্টা করেছি সুন্দর একটি সমাধানের কিন্তু অযাচিত কিছু অর্জন কিংবা কিছু পাওয়ার আশা সেই চেষ্টা ব্যর্থ করেছে,ইনশাল্লাহ পরম সৃষ্টিকর্তা আমাদের সকলকে বুঝার ক্ষমতা দিবেন।আমি সংগঠনের সাংগঠনিক কমিটিকে মানুষের কল্যানে কাজ করার আহবান এবং পাশাপাশি যুক্তরাজ্যে বসবাসরত গোলাপগঞ্জের জনগণের মধ্যে ঐক্য ও ভ্রাতৃত্ব সৃষ্টি ও জোরদার করার জন্য আপনাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।
মতবিরোধ হতেই পারে তাই বলে সংগঠনের আর্থিক কিংবা সাংগঠনিক ক্ষতি হোক সেটা যেনো আমরা কেউ প্রত্যাশা না করি এই অনুরুধ রইলো সবার কাছে।

দরিদ্রের মাথায় হাত বুলিয়ে আদর করতে যদি না পারি তার উপর যেনো আঘাত না করি।
দরিদ্রের মাথা গোজার একটি ঘর তৈরি করতে যদি না পারি অন্তত যেনো আমরা কেউ বাঁধা না হয়ে দাঁড়াই সেই ঘর তৈরি করতে।

আপনারা সকলেই আমার আত্মার আত্তীয় আপনজন,সবাই ভালো থাকবেন।
মানুষ ভুলের উর্ধে নয় আমার লেখায় কোনো ভুল হলে ক্ষমা করবেন।

আল্লাহ আমাদের সকলের মংগল করুন,আমিন।

আব্দুল বাছির
প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও সাবেক ইসি মেম্বার।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ