fbpx
 

ইতালির ভেনিস হাসপাতাল মর্গে বাংলাদেশির মরদেহ

Pub: Sunday, June 30, 2019 3:39 AM
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ইতালি থেকে সংবাদদাতা :

দীর্ঘ এক মাসেরও বেশি সময় ধরে ইতালির ভেনিসের আনজেলো হাসপাতাল মর্গে পরে আছে হতভাগ্য এক বাংলাদেশির মরদেহ। বিভিন্ন মাধমে জানা গেছে, এক ইতালিয়ানের মাধ্যমে মৃতব্যক্তির খবরটি ছড়িয়ে পরে বাংলাদেশি কমিউনিটিতে।

সূত্র মতে লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর উপজেলার বাবনী ভূইয়া বাড়ির মো. জিয়াউর ইসলাম দীর্ঘদিন যাবৎ বসবাস করতেন ইতালির ভেনিস শহরে। গত ২৩ মে অসুস্থ হয়ে আনজেলো হাসপাতালে ভর্তি হন। এর পরদিন তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

জিয়াউর ইসলামের সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকা ইতালিয়ান নাগরিক জান্নির সঙ্গে বেশ কিছুদিন যোগাযোগ না থাকায়, জান্নি জিয়াউরকে খুঁজতে থাকে। সে সময় তিনি জিয়াউরের বন্ধু আনোয়ারকে খোঁজ নিতে বলেন। বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে জান্নি হাসপাতালে খোঁজ নিতে গেলে জানতে পারেন ঠিকানাবিহীন একজনের মরদেহ হাসপাতালের মর্গে পড়ে আছে।

জান্নি বিষয়টি আনোয়ারকে জানালে, আনোয়ার সঙ্গে সঙ্গে ভেনিসের কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ও ভেনিস বাংলা স্কুলের সভাপতি সৈয়দ কামরুল সারোয়ারকে অবহিত করলে সৈয়দ কামরুল সারোয়ার হাসপাতালের মর্গে রাখা মরদেহটি শনাক্ত করেন।

সৈয়দ কামরুল সারোয়ার জানান, হাসপাতালের গাফিলতির কারণে দীর্ঘ এক মাসের বেশি সময় ধরে মরদেহটি মর্গে পরে আছে। তিনি যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিষয়টি তুলে ধরলে নানা আলোচনা শুরু হয়, সৈয়দ কামরুল সারোয়ার মরদেহ দেশে পাঠাতে সহায়তার জন্য মিলানো কনস‍্যুলেট অফিসে যোগাযোগ করেন।

ইতালিয়ান নাগরিক জান্নি বলেন, জিয়াউর বাংলাদেশ কমিউনিটির সঙ্গে তেমন মিশতো না, তাই বাংলাদেশিরা জানতে পারেনি তার খবর, জান্নি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আনজেলো হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের উচিত ছিল বিষয়টি দূতাবাস ও বাংলাদেশিদের জানানো। শনিবার সকালে জিয়াউরের মরদেহ গোসল করান সৈয়দ কামরুল সারোয়ার। আজ রবিবার সকাল ১০টায় নামাজে জানাজাশেষে দেশে পাঠানোর প্রক্রিয়া শেষ হলে নিজ জন্মভূমিতে পরিবারের কাছে মরদেহ পাঠানো হবে।

উল্লেখ্য, ২০০০ সালের ২০ সেপ্টেম্বর হতে জিয়াউর ইতালিতে বসবাস শুরু করেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ