‘রমজানের ঐ রোজার শেষে’ গানের সাথে ঈদ উদযাপন

Pub: বুধবার, জুন ৫, ২০১৯ ৮:৫৪ অপরাহ্ণ   |   Upd: বুধবার, জুন ৫, ২০১৯ ৮:৫৪ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিবেদক :
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম রচিত “ও মন-রমজানের ঐ রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ” গানের সাথে ঈদ-উল-ফিতর উদযাপন করলো কবি-সাহিত্যিক-সাংবাদিক ও রাজনৈতিকবৃন্দ।

বুধবার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশে জাতীয় কবি মাজার প্রাঙ্গনে নজরুল-প্রমিলা পরিষদ আয়োজিত ঈদ উদযাপন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

সংগঠনের সহ-সভাপতি লুৎফর রহমান বাবুর সভাপতিত্বে ও বিশিষ্ট কবি মাসুর মুজাম্মিলের সঞ্চলনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট সংগঠক ডা. মআআ মুক্তাদীর। আলোচনায় অংশগ্রহন করেন গীতিকার ও কবি এম আর মঞ্জু, রাজনীতিক ও কলামিস্ট এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, কবি আবদুস সালাম, কবি মতিয়ারা চৌধুরী মিনু, রাজনীতিক ও লেখক মিলন মেহেদী, পার্থ কায়সার, সংগঠক ও লেখক শান্তা ফারজানা, সংগঠক চায়মা খাতুন রিভা, আলোকচিত্র শিল্পী রিয়াদ মাহমুদ খান প্রমুখ।

নজরুল-প্রমিলা পরিষদের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা মরহুম কবি মুহম্মদ আসাদের লেখা থেকে পাঠ করেন কবি ফরিদ সাঈদ।

অনুষ্ঠানে আলোচকবৃন্দ বলেন, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম আমাদের জাতি সত্তার কবি। মানুষের কবি, মানবতার কবি। যতযিন পৃথিবীতে নির্যাতিত-রিপিড়িত মানুষের সংগ্রাম চলবে ততদিন নজরুল থাকবে। নজরুলকে অবহেলা করে বাঙ্গালি চেতনার ফেরি করা এক ধরনের প্রতারনা। আমাদের জাতিসত্তার প্রয়োজনেই নজরুলকে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।

উল্লেখ্য, কাজী নজরুল ইসলাম ১৯৩২ সালে ঈদ-উল-ফিতরের প্রাক্কালে “ও মন-রমজানের ঐ রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ” রচনা করে। যা যুগ যুগ ধরে আমাদের অনুপ্রানিত করে। আর এই গানের প্রথম কন্ঠ দেন আমাদের আরেক অহঙ্কার শিল্পী আব্বাসউদ্দিন। মাত্র আধাঘন্টার মধ্যে কবি এই গান রচনা করেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ