fbpx
 

ফলাফলের আগেই অভিনন্দনে ভাসছেন মৌসুমী!

Pub: Friday, October 25, 2019 9:33 PM
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ঢাকা : বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো আজ। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে (বিএফডিসি) শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে সকাল ৯টা থেকে শুরু হয় ভোটগ্রহণ, চলে বিকেল ৫টা ১০ মিনিট পর্যন্ত। সন্ধ্যা ৬টায় শুরু হয় ভোটগণনা।

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন ঘিরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলছে নানা জল্পনা। প্রিয় অভিনয়শিল্পীদের পক্ষে-বিপক্ষে চলছে নানা কথন-অতিকথন। বিশেষ করে চিত্রনায়িকা মৌসুমীকে ঘিরে ভক্তদের প্রত্যাশা অনেক। ভক্তরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন মৌসুমীর বিজয়ের খবর শুনতে।

কিন্তু মজার ব্যাপার হলো, সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকে আগ বাড়িয়ে অভিনন্দনে ভাসাচ্ছেন মৌসুমীকে। অথচ এখনো ভোটগণনাই সম্পন্ন হয়নি!

২০১৯-২১ মেয়াদের এই নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা ৪৪৯ জন। ভোট দিয়েছেন ৩৮৬ জন। সে হিসাবে মোট ভোট পড়েছে ৮৬ শতাংশ। এর আগে প্রার্থীরা যথারীতি নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোটারদের মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করেছেন। এবার ফলের অপেক্ষা। ১৮ পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ২৭ প্রার্থী।

এবারের নির্বাচনে মিশা-জায়েদ প্যানেল করে নির্বাচন করছেন। অন্যদিকে জনপ্রিয় নায়িকা মৌসুমী স্বতন্ত্র হিসেবে সভাপতি পদে লড়ছেন, তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী খলনায়ক মিশা সওদাগর। সাধারণ সম্পাদক হিসেবে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইলিয়াস কোবরা, তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী চিত্রনায়ক জায়েদ খান। নির্বাচনে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে মিশা-মৌসুমীর।

ভক্তদের অতি-উৎসাহের ব্যাপারে চিত্রনায়িকা নতুন বলেন, ‘মাত্র ভোটগণনা শুরু হয়েছে। কিছু ভক্ত আছে মৌসুমীর। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কিছু শত্রুও আছে মৌসুমীর। অনেক ভক্ত তাঁকে ভালোবেসে স্ট্যাটাস দিচ্ছেন। আবার কিছু শত্রুও দিচ্ছেন—যদি মৌসুমী ফেল করেন, তাঁকে খাটো করার জন্য এ ধরনের স্ট্যাটাস দিচ্ছেন তাঁরা। এখন তো কারো ফল জানা সম্ভব না। মাত্র গণনা চলছে।

গত ৫ অক্টোবর ২০১৯-২১ মেয়াদের শিল্পী সমিতির আসন্ন নির্বাচনের খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হয়। তালিকা থেকে জানা যায়, সভাপতি পদে লড়াই করছেন মৌসুমী ও মিশা সওদাগর। সহসভাপতির দুটি পদে রুবেল ছাড়াও প্রার্থী হয়েছেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল ও নানা শাহ। সাধারণ সম্পাদক পদে জায়েদ খানের প্রতিদ্বন্দ্বী ইলিয়াস কোবরা। সহসাধারণ সম্পাদক পদে লড়ছেন আরমান ও সাংকো পাঞ্জা। সাংগঠনিক সম্পাদক পদে অভিনেতা সুব্রতর বিপরীতে কোনো প্রার্থী নেই। আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক পদে লড়ছেন নূর মোহাম্মদ খালেদ আহমেদ ও চিত্রনায়ক ইমন। দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক পদে একাই রয়েছেন জ্যাকি আলমগীর। সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে লড়বেন জাকির হোসেন ও ডন। কোষাধ্যক্ষ পদে অভিনেতা ফরহাদের কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী নেই। অর্থাৎ সুব্রত, জ্যাকি, আলমগীর ও ফরহাদ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

এবারের নির্বাচনে কার্যকরী পরিষদ সদস্যের ১১টি পদের জন্য প্রার্থী হয়েছেন ১৪ জন। তাঁরা হলেন অঞ্জনা সুলতানা, রোজিনা, অরুণা বিশ্বাস, আলীরাজ, আফজাল শরীফ, বাপ্পারাজ, রঞ্জিতা, আসিফ ইকবাল, আলেকজান্ডার বো, জেসমিন, জয় চৌধুরী, নাসরিন, মারুফ আকিব ও শামীম খান (চিকন আলী)।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ