যেসব এলাকায় আঘাত হানতে পারে ‘ফণী’

Pub: বৃহস্পতিবার, মে ২, ২০১৯ ২:৫২ অপরাহ্ণ   |   Upd: বৃহস্পতিবার, মে ২, ২০১৯ ২:৫২ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পশ্চিম মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ ধেয়ে আসছে। আগামীকাল শুক্রবার (৩ মে) বাংলাদেশে আঘাত হানবে বলে আবহাওয়া অধিদফতরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে। এই আশঙ্কায় মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ৭ নম্বর, চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ৬ নম্বর এবং কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরকে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতর। ঘূর্ণিঝড়টি খুলনা দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক শামছুদ্দিন আহমদ। 

তিনি আরও জানান,  বাংলাদেশ অতিক্রম করার সময় এটির গতি হবে ঘণ্টায় ১৫০ থেকে ১৮০ কিলোমিটার। বৃহস্পতিবার (২ মে) সকালে এক ব্রিফিংয়ে  শামছুদ্দিন আহমদ এসব তথ্য জানান। এছাড়া যেসব জেলায় ফণীর আঘাত হানার সম্ভাবনা রয়েছে সেগুলোর নামও জানিয়েছেন তিনি।

শামছুদ্দিন বলেন, ফণী বাংলাদেশে আসবেই। মূলত খুলনা অঞ্চল দিয়েই এই ঝড় আসবে, তাই খুলনা ও পায়রা বন্দরকে ৪ হুঁশিয়ারি সংকেত থেকে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত জানানো হয়েছে। এর পাশাপাশি ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পটুয়াখালী, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চর এলাকায় ৭ নম্বর বিপদ সংকেত থাকবে। এছাড়া চট্টগ্রামকে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী ও চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চর এলাকায় ৬ নম্বর  বিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে। কক্সবাজারকে এখনও ৪ নাম্বার সংকেতই দেখানোর কথা বলা হয়েছে।

তিনি বলেন, এছাড়া উপরোক্ত জায়গায় স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে তার থেকে ৫ ফিট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হওয়ার সম্ভাবনা আছে। ঘন্টায় ৯০ থেকে ১০০ কিলোমিটার বেগে দমকা ও ঝড় হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এছাড়া ৩ মে সন্ধ্যায় মূল আঘাত হানতে পারে। এছাড়া এরা পরিবর্তনশীল।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ