ছোটো মুখে কিছু বড়ো কথা‌

Pub: সোমবার, জানুয়ারি ৭, ২০১৯ ৩:০৭ অপরাহ্ণ   |   Upd: সোমবার, জানুয়ারি ৭, ২০১৯ ৩:০৭ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মারুফ কামাল খান :
@ বিশ্বাসহন্তারকদের উচ্ছ্বাস চলছে। চলবে আরও কিছুকাল। ভীত, লোভী ও সুবিধাবাদী লোকেরাও এখন তাদের দল ভারি করবে।
@ জাতীয় জীবনের এ চরম সন্ধিক্ষণে বিপর্যয়ের ধাক্কা সামলে উঠতে দিন লাঞ্ছিত, অপমানিত ও পরাজিত নাগরিকদের।
@ লোভ-ভীতি-অপকৌশলের অস্ত্রে এ দেশের রাজনীতি, সাংবাদিকতা, বিচারব্যবস্থা, প্রশাসন, শৃংখলাবাহিনীগুলো পুরোই নষ্ট করা হয়েছে। এগুলো শুদ্ধ করতে হবে। তারজন্য আগে নিজেরা শুদ্ধ হয়ে উঠুন, সবকিছু পুনর্মূল্যায়নের মধ্য দিয়ে পুনর্গঠিত হোন।
@ আবেগ নয়, কঠিন বাস্তবতা দিয়ে সবকিছু বিচার-বিবেচনা করতে শিখুন। অহেতুক বাগাড়ম্বর করবেন না কেউ। দোষারোপ ও দায় চাপাবার চেয়ে এখন বেশি প্রয়োজন আমাদের প্রত্যেকের আত্মজিজ্ঞাসা।
@ মানুষের অধিকারগুলো ডাকাতি হয়ে গিয়েছে- এটা সত্য কথা। সেই সঙ্গে এটাও তো সত্য যে, সেই অধিকারগুলো রক্ষায় ভ্যানগার্ডের ভূমিকা পালনের ব্যর্থতাকেও অস্বীকার করা যাবেনা। আশা, কল্পনা, ধারণা, অনুমান ও আন্দাজের উপর নির্ভর করে নেয়া পদক্ষেপগুলো এখন আমাদেরকে পরিহাস করছে।
@ সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে ভুলগুলো কোথায় হলো, আদর্শ-নীতি-কৌশলের ক্ষেত্রে কতটা ঘাটতি পড়েছিল, অসংগঠিত অবস্থার প্রকৃত কারণগুলো সব খতিয়ে দেখতে হবে।
@ অতি আশাবাদ, সুবিধাবাদ, হঠকারিতা, আত্মপ্রচার, ব্যক্তিবন্দনা, আন্তঃকোন্দল, ঘাপটি মেরে থাকা গৃহশত্রু এবং অনৈতিকতার বিরুদ্ধে আরো বেশি সজাগ ও সতর্ক হওয়া অতিশয় জরুরি হয়ে পড়েছে।
@ অনেক ক্ষতি হয়ে গেছে। বিপুল শক্তিক্ষয় হয়েছে। অপরিমেয় ত্যাগের বিনিময়ে কোনো সুফলই ঘরে তোলা যায়নি। তাই এখন “সব চেয়ে কম ক্ষয়ে সব চেয়ে বেশি অর্জন”- এর কৌশল গ্রহনের চেষ্টা করতে হবে।
@ সব ধরণের আত্মগরিমা, অহঙ্কার ও বিচ্ছিন্নতা পরিহার করে সর্বক্ষেত্রে এবং টপ টু বটম সর্বস্তরে সেরা লোকদের বাছাই করে সেরা টিম গঠন করুন। ব্যক্তিনির্ভরতা ছেড়ে টিম স্পিরিটকে গুরুত্ব দিন।
@ এখন সব চেয়ে বেশি দরকার অস্বাভাবিক ও আতঙ্কের পরিস্থিতির অবসান ঘটিয়ে সুস্থ স্বাভাবিক রাজনীতিচর্চার পরিবেশ ফেরানো। এজন্য বেগম খালেদা জিয়া থেকে শুরু করে তৃণমূল পর্যায়ের কর্মীটির পর্যন্ত কারামুক্তি এবং হয়রানিমূলক মামলা-মোকদ্দমা নিরসনে রাজনৈতিক, আইনগত, কূটনৈতিক পদক্ষেপকে সবকিছুর ওপরে অগ্রাধিকার দিতে হবে।
@ শক্তিধর দেশগুলোকে তোয়াজ-তোষামোদ করে লাভ হবেনা। তারা তাদের নিজ নিজ জাতীয় স্বার্থ দেখে। তারা সিদ্ধান্ত নেবে তাদের লাভ থাকলে বা তাদের স্বার্থ ক্ষুন্ন হবার আশঙ্কা দেখা দিলে। বাংলাদেশে স্থিতিশীলতা থাকবে না, যদি মডারেট ডেমোক্রেটিক পলিটিক্সকে স্পেস দেয়া না হয়। নিয়মতান্ত্রিক অপজিশনের ওপর এই ক্র‍্যাকডাউন চলতে থাকলে উগ্রবাদের উত্থান ঘটবেই। এটা বিশ্বসমাজ জানে। তারা তাদের স্বার্থেই তা চায় না। এই বাস্তবতার আলোকে রাজনৈতিক পরিবেশ স্বাভাবিক করার ব্যাপারে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রভাবকে কার্যকরভাবে কাজে লাগাতে হবে।
@ পরিবর্তিত এবং এখনো অস্থির বিশ্ববাস্তবতার ওপর সার্বক্ষণিক নজর ও এর সংগে যোগাযোগ রেখে স্ট্রাটেজি নিরূপণ করার বিকল্প নেই।
@ সাহস হারাবেন না। হতাশ হবেন না। এই মৌসুমী বায়ুর দেশে হুট করেই বদলে যায় আবহাওয়া। তবে মিথ্যে ও কাল্পনিক কোনো আশ্বাসেও বিশ্বাস করবেন না। কোনো কিছুই স্বয়ংক্রিয় ভাবে ঘটে যায় না। পরিবর্তনও দৈবঘটনা হয়ে আসেনা, এর জন্য কাজ করতে হয়, উদ্যোগ নিতে হয়। সঠিক কাজটি ঠিক সময়ে ঠিক মতো করতে পারলেই দ্রুত বদলে যাবে সবকিছু। কারণ, সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে, হাঁপিয়ে ওঠা এ দেশের মানুষ চায় পরিবর্তন।

মারুফ কামাল খানের ফেইসবুক থেকে


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1167 বার