ছাএদলে জনপ্রিয়তার শীর্ষে ইসহাক সরকার

Pub: বৃহস্পতিবার, মে ২, ২০১৯ ১২:০৭ পূর্বাহ্ণ   |   Upd: বৃহস্পতিবার, মে ২, ২০১৯ ১২:০৭ পূর্বাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ছাএদল রুপান্তরে তারুন্যর শক্তিতেই আলোয় উজ্জ্বল জ্বলে ওঠার বিদ্যুৎতের চেয়েও উদীয়মান শক্তিতে রাখতে, তৃনমূল পর্যন্ত যার অক্লান্ত পরিশ্রম করে তারুন্যর শক্তিকে তৃনমূল পথে একধাপ এগিয়ে নিয়ে জাতীয়তাবাদ আর তারুন্যর চেতনায় তৃনমূল ছাএদলের মাঝে জাগিয়ে রেখেছেন ছাএদলকে। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাএদল এই তরুন ছাএসমাজের জন্যই সবচেয়ে সঠিক কার্যকরী নেতৃত্ব।

শিক্ষা, ঐক্য, প্রগতি এই মূলমন্ত্রকে ধারন করেই তরুনদের নিয়ে তৃনমূলের পথে একধাপ এগিয়ে তৃনমূলের অহংকার বর্তমান সবচেয়েও ছাএদলের আলোর বাতিঘর, কারানির্যাতিত নেতা তৃনমূলের হৃদয়ের স্পন্দন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাএদলের সাংগঠনিক সম্পাদক ইসহাক সরকার। তিনি বিভাগ,জেলা,উপজেলা, ইউনিয়ন পর্যন্ত ঘুরে ঘুরে তরুনদের কে সাথে নিয়েই তৃনমূল থেকে প্রতিভা খুঁজে বের তাদেরকে ছাএদলের মূলনীতি দিয়ে উপযুক্ত করে তিনি তার স্বপ্ন পূরুনের পথে আরো একধাপ এগিয়ে নিয়েছেন তৃনমূলের ভালবাসার প্রতীক ইসহাক সরকার। যেমনি মাস্টারদা, সূর্যসেনরাই যেমন জ্বলে উঠেছিল এই তারুন্যের শক্তি দিয়ে তেমনি দেশের আনাচে কোনাচে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা তৃনমূলের নেতাকূর্মীদের প্রত্যাশা বর্তমান নতুন কেন্দীয় ছাএদলের কমিটিতেই ইসহাক সরকারই হবে সভাপতি।

সূত্মির পাতায় ভেসে উঠেছে, সেই ১৯৯৬ সাল তখন তিনি ওয়ার্ড ছাএদলের সাধারন সম্পাদক সেই সুবাদে পিন্টু ভাইকে ইসহাক ভাই চিনে মাএ। যার মহিমায় মহিমান্বিত হয়ে তিনি আজ ছাএদলের জনপ্রিয়তার শীর্ষে। যেটা আমি শুনেছি সারা বাংলাদেশ জুরে তৃনমূলের গর্ব এটা শুধুই তিনিই অর্জন করতে পেরেছেন যা ৯০ এর পর। ৯৬ সাল থেকে ৩৫ নং ওয়ার্ড ছাএদলের সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব প্রাপ্ত হন। ১৯৯৭-২০০৪ তিনি বেশ সফলতার সাথে কোতায়ালী থানা ছাএদলের আহবায়ক হিসেবে পালন করেন পরে ২০০৪-২০০৮ পর্যন্ত তিনি কোতায়ালী থানা ছাএদলের সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় ছাএদলের সদস্য ও অতপর সহকারী প্রচার সম্পাদক পদে তিনি দায়িত্ব প্রাপ্ত হন।

২০০৮-২০১০ ঢাকা মহানগর দক্ষিন ছাএদলের সিনিয়র যুগ্ন আহবায়ক পান।
২০১০-২০১৩ সালে ঢাকা দক্ষিন মহানগর ছাএদলের সভাপতি হিসেবে বেশ প্রতিভার সাথে পার করেন।
২০১৩ সালে তিনি একের পর সফলতার লক্ষে পার করে তিনি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী কেন্দ্রীয় ছাএদলের সাংগঠনিক সম্পাদক পদটি বেশ আলোচিত হয়ে উঠেন। যা এখন তিনি আজ প্রায় এক বছরের কাছে তিনি বর্তমান ফ্যাসিবাদী সরকারের রোষানলে কারাভোগ করছেন। তার পিছনে ফেলা আসা রাজনৈতিক আত্মজীবনি যা জেলে থাকা অবস্থায় তিনি হারিয়ে ফেলেন তার বাবাকে হারান নিজ হাতে গড়া সহকূর্মী এবং ভাতিজা সহ আরো অনেকেই। তিনি আজ দীর্ঘপথ পারি দিয়ে জীবনের বেশ খানেক সময়ই কাটিয়েছেন জেল খানায়। যা তরুন ও তৃনমুলের পথে একধাপ এগিয়ে সারা বাংলাদেশের ছাএদলের জনপ্রিয়তার শীর্ষে।

রাজনৈতিক জীবনে পথ চলার প্রক্ষিতে বিভিন্ন বিভাগ, জেলা, থানাসহ যে পদচারন তা এই জাতীয়তাবাদ প্রেরনায় ছাএসমাজ বাংলার মাটিতে তার নিশানায় ঐক্যবদ্ধ। বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের ভিত্তিতে সমগ্র ছাত্রসমাজকে ঐক্যবদ্ধ করে শহীদ জিয়ার ১৯ দফা কর্মসূচি বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশকে সুখী ও সসমৃদ্ধশালী দেশ হিসেবে গড়ে তোলার জন্যই ইসহাক সরকার আজ বেশ সফলতার সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। ছাএ সমাজ আজ দিব্য দেখতে পাচ্ছে যে দেশের সকল ছাএসমাজের আদর্শ নিয়ে ছাএদলের রাজনীতি হবে শিক্ষা ব্যবস্থা।
বর্তমানে সারা বাংলা তৃনমূল সহ পুরো জাতীয়তাবাদ ছাএসমাজ আজ ঐকবদ্ধ যে বাংলাদেশের সবচেয়ে কাঙ্খিত তরুন প্রজন্মদের নেতা ইসহাক সরকার। দেশের ৮০ ভাগ ছাএসমাজ আজ ইসহাক সরকারকে কেন্দ্রীয় ছাএদলের আগামী দিনের সভাপতি হিসেবে দেখতে চায়। যা বর্তমানে জাতীয়তাবাদ ছাএরাজনীতিতে তিনিই এখন সবচেয়ে জনপ্রিয়তার শীর্ষে।

লেখক আব্দুল আলিম
কলামিস্ট ও ছাএদলের সদস্য


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1939 বার