fbpx
 

মমতার বন্ধন আজ কারাগারে বন্দী

Pub: Saturday, July 13, 2019 5:40 PM
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মিথ্যাচার দুর্নীতিবাজ ভোট চোর খুনিদের হাতে আজ পুরোদেশ জিম্মি।।
সততার মা আজ মিথ্যার কবলে ধীরে ধীরে মৃত্যু পথের যাত্রী হচ্ছে।

রাত কানারা এখন দিন কানাদের উপর নির্বরশীল হয়েগেছে।।
যে দেশের জন্য এই মমতাময়ী মা জীবনবাজি রেখেছিলেন সেই দেশে আজ আঁধারের ঘণঘটা।

কত রকম মিথ্যার সার্কাস চলিতেছে অনবরত।।

এই দেশের রথি মহারথী বিষিষ্টজন নিত্য নতুন চাপাবাজ কুলাংগারেরা এখন কি সুন্দর চুপচাপ।

একের পর এক দেশের ১২ টা বাজাচ্ছে, দেশের কোটি কোটি মানুষের জীবন চলার পথকে দিচ্ছে, দুইদিন পর পর গ্যাসের দাম বিদ্যুতের দাম, মোবাইলের ব্যালেন্স সহ- চাল ডাল কাঁচা বাজার নিত্যপ্রয়োজনীয় সব কিছুর দাম বৃদ্ধি করতেছে।এতে এখন আর কারো আ তে ঘা লাগছেনা।
এখন যদি বিএনপি সরকার হতো তাহলে কত রকম যুক্তি আর প্রতিবাদের মহড়া চলতো।কত রকম সমালোচনার ঝড় উঠতো।
পুরোদেশ যে এখন ভারতের কাছে জিম্মি তাতে কত খুশি দালাল বাহিনীরা।।

আগে তো ইলিশ মাছ মানুষ কম বেশ খেতে পারতো এখন তো সব ইলিশ ভারতের জেলেরা নৌকা ভর্তি করে তাদের দেশে নিয়ে যায়।আর আমার দেশের প্রহরীরা সীমান্ত রক্ষিরা তাদেরকে বাধা না দিয়ে উল্টো তাদেরকে সহ-যোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়।কি যে দয়ালু হাসিনার পালিত গোলাম গুলো।

দেশ ও দেশের মানুষ গুলো গোল্লায় যাক তাতে কার কি??

রাতের ভোটের সরকার সব কিছুর দাম বাড়িয়ে মিডিয়ায় ফলাও করে বলে জনগনকে শান্ত ভাষায় হুমকি দেয়। আর বলে সব কিছুর দম বাড়ানো হয়েছে দেশের উন্নয়নের জন্য।।এক পদ্মাসেতুর দোহাই দিয়ে কি সুন্দর নিরব লুটপাট।।
এমন উন্নয়ন একটু বৃষ্টি হলেই ঢাকা শহর চট্টগ্রাম শহর পুরো গংঙা যমুনা হয়ে যায়।।
দেশ মুহু্র্তের মধ্যে সিঙাপুর হয়ে যায়।
হায়রে উন্নয়নের নমুনা, একটু বৃষ্টি হলেই যমুনা।

আধাঘণ্টার ভিতরেই বন্যায় প্লাবিত হয়ে যায় সাধের রাজধানী শহর গুলো।গ্রামগঞ্জ তো আছেই।।
এ দেশের জনগন বিএনপির সততা পছন্দ করে কিন্তু সৎ সাহস করে মুখ খুলতে হাসিনার অন্যায় অভিচার নির্যাতন গুম খুনের বিরুদ্ধে কথা বলতে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ করতে তাদের সাহসে হাটু কাঁপে।

এমনিতেই সবাই দেশপ্রেমী।
দেশের জন্য কত কত মায়া।

আজ দির্গ ১৭ মাস আপোষহীন গনতন্ত্রের জননি জালিম নিষ্ঠুর নির্দয় হাসিনার কারাগারে বন্দী।

আজও উনাকে মুক্ত করার মতো একটা আন্দোলনের ঝুকি আমাদের দল নিতে পারেনি।
মুখের মায়া চোখের মায়া এবং সংবাদ সম্মেলনের মধ্যে সীমাবদ্ধ।

এই নিষ্পাপ শিশুটাও উনার কদর বুঝেছে শুধু বুঝলোনা আমাদের দলের সিনিয়ররা আর এই নিষ্ঠুর জাতী।।।
হাসিনায় পদে পদে বাঁশ দেয় সেটা কি সুন্দর মেনে নেয়।
আর বিএনপি এত এত উন্নয়ন করে যাওয়ার পরও
বিএনপির ধোফা গিরি নিয়ে ব্যাস্ত।

এবার বলেন বাঁশ দেয়া সরকার ভালো নাকি
সঠিক দেশপ্রেমীক সরকার ভালো।

সানজানা চৈতি পপির ফেইসবুক থেকে


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ