fbpx
 

তারেক রহমানের কাছে জাতির প্রত্যাশা

Pub: শনিবার, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৯ ১:৪৩ পূর্বাহ্ণ   |   Upd: শনিবার, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৯ ১:৪৭ পূর্বাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আগামি ২০ শে নভেম্বর তারেক রহমানের জন্মদিনে আমার ও আমাদের দলের পক্ষ থেকে জানাই শুভেচ্ছা।
তারেক রহমান,যার আছে অদৃশ্যের মাঝে দেশ প্রেম ,তিনি হচ্ছেন বাংলার কোটি কোটি জনতার সুপরিচিত। বাংলার কোটি কোটি জনতা তথা সর্বস্তরের জনসাধারণ এই তরুণ নেতার কাছে কি আশা, আক্ষাংকা ও প্রত্যাশা করে ?
বাংলাদেশের মানুষ আজ অনেক সচেতন । কিছুদিন আগেও আমাদের দেশের জনগনের জানার পরিধী ছিল সীমিত। কিন্তু আজ সে পরিধী হয়েছে ব্যাপক বিস্তারিত যেমন এখন বাংলাদেশী প্রবাসীরা প্রবাসে বসে দেশ নিয়ে কি চিন্তা ভাবনা করছে বা কি কর্মকাণ্ড করছে তা আমরা এখন খুব সহজেই ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার মাধ্যমে জানতে পারছি । যদিও বাংলাদেশের টিভি চ্যানেল , সংবাদ পত্র ও অনলাইন পত্রিকা হয়েছে অসংখ্য । ঘণ্টাই ঘণ্টাই খবর প্রকাশিত হচ্ছে । তারপরও বিভিন্ন সময়ে দেশী মিডিয়া গুলো অশুভ মহলের প্রভাবে সঠিক ও সত্য সংবাদ প্রকাশ করার স্বাধীনতা হারিয়ে ফেলছে এবং ভুল ও মিথ্যা সংবাদও পরিবেশনা করছে । তারপরও সত্য চাপা থাকে না অন্যান্য ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার গুলো যেমন FaceBook, Twitter, Youtube, Online news paper ইত্যাদি এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করছে । যার ফলে অসত্য সংবাদ প্রকাশ হলেও দেশ ও জাতি সঠিক ও সত্য সংবাদ জানতে পারছে এইগুলোর মাধ্যমে। শত চেষ্টা করেও বিশেষ মহল ও উচ্চপদস্থরা সমালোচনার হাত থেকেও রক্ষা পাচ্ছেনা । আজ দেশবাসী এই সচেতনতার কারণে অশুভ মহল সংবাদপত্রের স্বাধীনতা কেড়েও দেশবাসীর দৃষ্টি মিথ্যা ও ভুল সংবাদ পরিবেশনার ভিতরে আবদ্ধ রাখতে পারছে না। এবং ঐ সুবিধাবাদী হলুদ মিডিয়াগুলোর মাধ্যমে অপপ্রচার চালিয়েও কাউকে সমালোচনায় ফেলেও অশুভ মহল সুবিধা করতে পারছে না বরং দেশবাসী তাদের বর্জন করছে এবং গভীর আগ্রহে দেশবাসী অপেক্ষা করছে কবে হবে দেশে নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন । সেই নির্বাচনে থমকে যাওয়া এই জনগন ব্যালেটের মাধ্যমে অশুভ মহলের উত্তর দিবে ।
আসবে তাদের বাছাইকৃত সেই বীর, রাজনীতির পথপদর্শক।
“হে তারুণ্যের অহংকার ভবিষ্যৎ দেশনায়ক
তোমার দিকে তাকিয়ে লক্ষ কোটি দেশপ্রেমিক জনতা।”
তারেক রহমানও মনে করেন ও বিশ্বাস করেন যে রাজনৈতিক দলের মূল লক্ষ্য ক্ষমতায়ন নয় , শুধু একটি লক্ষ্য হতে পারে । রাজনৈতিক দলের মূল উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য হতে হবে জনসাধারণের স্বার্থে দেশ ও জাতির উন্নয়নে পরিবর্তনশীল , দেশ ও জাতির সহায়ক।
যেহেতু বি. এন. পি. বাংলাদেশর একটি অন্যতম বৃহত্তম রাজনৈতিক দল। অতীতে তারা দেশ পরিচালনা করেছে ও ভবিষ্যতেও তারা দেশ পরিচালনায় আসতে পারে, তারেক রহমান প্রধান মন্ত্রীও হতে পারে আর সেই ক্ষেত্রেই জনসাধারণের চাওয়া-পাওয়া তার কাছে একটু ভিন্ন ।
বহু অপপ্রচার, বহু ষড়যন্ত্র এবং জগন্য নির্যাতনের স্বীকার হয়ে অসুস্থতার কারনে প্রবাসে অবস্থান করেও দেশবাসীর ভালোবাসায় তারেক রহমান দেশ ও জাতির উন্নয়নে যে পরিকল্পনা করেছেন তা থেকেই প্রমান পাওয়া যায় তার সাথে দেশ ও জাতির কতটুকু গভীর প্রেম ও ভালোবাসা রয়েছে।
এবার দেশবাসী তার কাছে দেশ উন্নয়নের এই ভিন্ন ধরনের, চিন্তাশীল, গবেষণামূলক ও 3D পরিকল্পনার সঠিক বাস্তবায়নের গভীর আশা, আক্ষাংকা ও প্রত্যাশা করে।
আসুন একটু জেনে নেই তারেক রহমানকে নিয়ে রচিত বই অদৃশের মাঝে দেশ প্রেম কিছু অংশ।
লেখকের কথা
আমি যখন এই বইটি লেখার পরিকল্পনা করি তখন থেকেই এই বইয়ের প্রধান চরিত্র অর্থাৎ দেশ প্রেমিক তারেক রহমান সম্পর্কে জনসাধারণ থেকে শুরু করে রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব তথা সকল স্তরের জনসমষ্টির সাথে কথোপকথনের মাধ্যমে জরিপ করে তাদের ধারনা সংগ্রহ করি। আর এ থেকেই আমি বেশি উৎসাহিত হই যে আমাদের দেশের জনসাধারণ অধিকাংশই অনেক কিছু জানে না বা সঠিক জানার মাধ্যম থেকে অনেক দূরে থাকে তাই তাদের সঠিক ও সত্য জানাতে তারেক রহমান ও জিয়া পরিবারকে উপস্থাপন করতে বই ব্যাতিত অন্য কোন উপায় নেই।
তাই আমি চেষ্টা করেছি আমার এই বইয়ে জিয়া পরিবারকে জাতির কাছে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করতে সহজ ভাষায় এবং সংক্ষেপে যাতে অতি অল্প সময়ে দেশ ও জাতি জানতে পারে।
আমি জেনে বুঝে শিখে রাজনীতি করতে চাই। রাজনীতি হচ্ছে আমার নেশা, পেশা নয়।
আমি সেই রাজনীতিতে আগ্রহী যেই রাজনীতিতে দেশ ও জাতি উপকৃত হবে। যে রাজনীতির মূলে থাকবে না ক্ষমতায়ন থাকবে যুগোপযোগী পরিবর্তন। যা আমি পেয়েছি তারেক রহমানের কাছে। তার আছে সেই শক্তি যেই শক্তিই পারবে দেশ ও জাতির উন্নয়ন সাধন করাতে ।
আমি আমার অতি প্রিয় ভালোবাসার রাজনীতিকে উৎসর্গ করার মতও দাবি রাখতে পারি তার দেশ প্রেমে পাগল হয়ে।
এবং আরো বলতে পারি যে, অপেক্ষায় রয়েছে সর্ব জনসাধারণ, নেতা কর্মীরা সেই অপেক্ষার অবসর ঘটিয়ে দেশ ও জাতিকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে আসছে তারেক রহমান সবুজের মাঝে সূর্যের রশ্নি ছিটিয়ে হাতে শান্তির পায়রা নিয়ে বাংলাদেশে।
রাকেশ রহমান (লেখক ও যুগ্ন মহাসচিব বাংলাদেশ লেবার পার্টি ২০ দলীয় জোট)


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ