fbpx
 

ঢাকার সন্তান ব্যতিরকে ঢাকা উত্তাল রাজনীতি ইতিহাসের স্বাক্ষ্য নয়

Pub: Sunday, December 1, 2019 5:31 PM
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরিফ রহমান আরিফ

ইসহাকের ভিতর পিন্টু ভাই বিদ্যমান !!তাই তাকে পরিচর্যা করাই শ্রেয়!!

শ্রদ্ধেয় ব্যারিস্টার আবুল হাসনাত এবং শ্রদ্ধেয় মীর শওকত আলীর সফল ইতিহাস আজ অতীত, বর্তমানে শ্রদ্ধেয় আব্বাস ভাইয়ের অসুস্থ্যতা সহ বয়স হয়েছে এবং শ্রদ্ধেয় খোকা ভাইয়ের হয়েছে মৃত্যু, সুতরাং ঢাকার সাহসী সন্তান শুন্য নেতৃত্বের পথে পা বাড়াচ্ছে এক সময়ের ঢাকা মহানগরের দাপটশীল রাজনৈতিক সংগঠন বিএনপি।

জনাব হাবিব উন নবী খান সোহেল ভাইয়ের জাতীয় রাজনীতির ব্যস্ততার পাশাপাশি তাঁর মেয়াদও প্রায় শেষ পর্যায়ে, ঢাকা উত্তরের কাইয়ুম ভাইয়ের রাজনীতি আজ সরকারের রোষানলে বন্দী, সুতরাং সামনের দিন গুলোতে ঢাকায় বিএনপি’র নেতৃত্ব এখনই খুঁজে রাখা শ্রেয়, নতুবা সময়কালে রাজনৈতিক খেসারত দিতে হতে পারে।

স্বাধীনতার আন্দোলন থেকে ৯০’র আন্দোলন স্বাক্ষী দেয়, যখনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনের অগ্নি মশাল জ্বলে উঠেছে, ঠিক তখনই সারা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতেও অনায়াসে আন্দোলনের অগ্নি মশাল জ্বলে উঠেছে। তদ্রুপ যখনই ঢাকা মহানগরে আন্দোলন শানিত হয়েছে, ঠিক তখনই দেশের সকল মহানগর গুলোতেও আন্দোলন উল্কার গতিতে শানিত হয়েছিল।

ছাত্র রাজনীতিতে ঢাকা মহানগরের সফল ছাত্রনেতা ছিলেন মরহুম শ্রদ্ধেয় নাসির উদ্দিন আহমেদ পিন্টু, শরীরের দীর্ঘ দেহের পাশাপাশি তাঁর সাহসের মাত্রাও ছিল বিশাল। কর্মী বান্ধব এবং হাত খোলা নাসির উদ্দিন পিন্টু নিজের জীবনের চেয়েও বিএনপিকে বেশী ভালবাসতেন, জীবনের শেষ দিন গুলোতেও একই ইতিহাস তিনি রক্ষা করতে পেরেছিলেন, মূলত রাজনৈতিক কারনেই জনাব পিন্টুর মৃত্যু হয়েছে বলে অনেকেই ধারনা করেন।

জনাব পিন্টুর স্থান পূরন হবার নয়, এই কথা বর্তমান বিএনপি’র চলমান রাজনীতিতে একসময়ে জনাব পিন্টুর রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা সহ বিএনপি’র প্রায় সবায় স্বীকার করে, তথাপিও তাঁর কাছাকাছি যদি কাউকে খুঁজে বের করা যায়, তাহলে ঢাকা মহানগরের ভবিষ্যত রাজনীতি বিএনপি’র জন্য অনেকটাই সফলকাম হবে।

ইসহাক সরকার ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সফল সাংগঠনিক সম্পাদক।জনাব নাসির উদ্দিন পিন্টুর অনেক গুনাবলীই ইসহাক সরকারের মধ্যে বিদ্যমান, সাহস, কর্মী বান্ধব নেতৃত্ব, দলের প্রতি অন্ধ প্রেম, প্রিয় নেত্রী এবং জনাব তারেক রহমানের প্রতি অগাধ শ্রদ্ধা ও ভালবাসা থেকে শুরু করে ৩০০ টি মামলার আসামী হয়ে পুলিশি নির্যাতনের স্বীকার হওয়া ইসহাক সরকার আজও জেলখানায় বন্দী।

আগামী ভবিষ্যত ঢাকা মহানগর বিএনপি’র রাজনীতিতে সফলতা পেতে হলে ঢাকার সন্তান হিসেবে ইসহাক সরকারকে যদি বিএনপি বেছে নিতে পারে, তাহলে তাকে সঠিক পরিচর্যা করার এখনই মুখ্য সময়। ইসহাকের সমকালীন নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের যে বা যারা নেতৃত্ব গ্রহন করবেন, তারা কেহই ইসহাকের সমকক্ষ হবে না, কারন ইসহাকের নেতৃত্ব দেওয়ার গুনাবলী সে তার কিশোর বয়স থেকেই রব্দ করেছে, যা অন্য কোন রাজনৈতিক সংগঠনের কোন নেতার নেই।

ব্যক্তি নয় দলই হোক বড়, সুতরাং সেই লক্ষ্যকে সামনে নিয়ে বিএনপি’র উচিত আগামী দিন গুলোর জন্য সারা দেশের মহানগর কমিটি গুলো সাজানো। মনে রাখতে হবে, রাজনীতিতে দূরদৃষ্টিতার কোন বিকল্প নেই, যা জিয়াউর রহমানের ছিল বিধায় তিনি অতি কম সময়েই বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ জনপ্রিয় রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হতে পেরেছিলেন, পাশাপাশি তাঁরই হাতে গড়া বিএনপি আজও দেশ তথা বিশ্বের যে কোন রাজনৈতিক দল গুলোর মধ্যে শ্রেষ্ঠ জনপ্রিয় একটি রাজনৈতিক সংগঠন।

মহান আল্লাহর কাছে দোয়া করি, বিএনপি যেন অতি দ্রুত তার অতীত গৌরবে ফিরে যেতে পারে, আমীন।
বেগম খালেদা জিয়া কেন মুক্ত হতে পারছেন না


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ