fbpx
 

নারী দিবসের স্লোগান হোক “বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি”

Pub: রবিবার, মার্চ ৮, ২০২০ ৩:৪৫ পূর্বাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সারা বিশ্বে পালন করা হচ্ছে ঝাঁ চকচকে বিজ্ঞাপনের মোড়কে জড়ানো নারী দিবস । পুঁজিবাদী সমাজ ব্যবস্থায় নারী দিবসকে আকর্ষণীয় পণ্য বানিয়ে, কর্পোরেট দুনিয়া থেকে শুরু করে তথাকথিত নারীবাদীরা জাঁকজমক আর মনভুলানো শ্লোগান দিয়ে পালন করছে নারী দিবস । কিন্তু আড়ালে থেকে যাচ্ছে নারীর শিক্ষা, স্বাধীনতা, অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য যারা আজীবন সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছেন তারা ।

বাংলাদেশে আজ অনেক সেমিনার- আলোচনা সভা হবে । নারী শিক্ষা, অধিকার, নারীর স্বাধীনতা নিয়ে অনেক কথা বলা হবে । কিন্তু বাংলাদেশে নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা, নারী শিক্ষা আর স্বাধীনতা রক্ষায় যিনি অগ্রণী ভুমিকা রেখেছেন সেই বেগম খালেদা জিয়া আজ মিথ্যা বানোয়াট মামলায় অন্ধকার কারাগারে বন্দী । যিনি নারী শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক ও উচ্চমাধ্যমিক অবৈতনিক করেছিলেন । প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নারীর ক্ষমতায়ন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন, তিনি আজ চিকিৎসা সেবা বঞ্চিত । যিনি এখন পর্যন্ত গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য লড়ে যাচ্ছেন, তার সঙ্গে এমনকি আত্মীয় স্বজনরা পর্যন্ত দেখা করতে পারছেন না । বড় বড় দুর্নীতিবাজ, কুখ্যাত খুনি, ভয়ঙ্কর অপরাধী, সন্ত্রাসীরা জামিন পেয়ে হাসতে হাসতে জেল থেকে বেড়িয়ে যাচ্ছে কিন্তু কাল্পনিক মনগড়া মামলায়, তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য জামিন দিচ্ছেনা । হায় আদালত……হায় বিচার ব্যবস্থা… ।

আজকের অনেক প্রতিষ্ঠিত নারীরা পরিচিতি ও প্রতিষ্ঠা পেয়েছেন বেগম খালেদা জিয়ার সময়ে । তাদের আজ সময় এসেছে মেরুদণ্ড সোজা করে অন্যায়ের প্রতিবাদ করার । শুধু আনুষ্ঠানিকতা নয় বাস্তবে আজ সাদাকে সাদা এবং কালোকে কালো বলার সময় এসেছে । নারী কোন পণ্য নয় । তাই পুরুষতান্ত্রিক দুনিয়ার মন ভুলানো স্লোগান নয়, নারী দিবসের স্লোগান হওয়া উচিত নারীর অধিকার রক্ষায় অগ্রদূত বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ।

বাংলাদেশে বড় বড় বিলেবোর্ড আর রেডিও টেলিভিশনে ফলাও করে নারীর অধিকার আর সাফল্যের গল্প প্রচার করা হয় কিন্তু যে নারী তার সন্তানদের মুখে খাবার তুলে দিতে মাথার ঘাম পায়ে ফেলছেন, যে নারী সমাজে একাকী সন্তান নিয়ে বেঁচে থাকার জন্য লড়াই করছেন তার গল্প কেউ বলবেনা । কারন গ্লামার ছাড়া নারীদের গল্পে তো আর টিআরপি বাড়বেনা । যে সব তথাকথিত নারীবাদীরা টকশোতে বড় বড় বুলি কপচাতে পারেন, তারাই ঘনঘন টিভিতে ডাক পান । আর এরাই শো শেষে বাড়িতে গিয়ে গৃহকর্মিকে মারধর করেন আর সংসার টিকিয়ে রাখার অজুহাতে স্বামীর পরকীয়া মেনে নেন । এরাই সরকারের চামচামি করে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নিজেদের দাওয়াত পত্র আর চেয়ার বরাদ্ধ রাখেন । এরাই নারীদের জন্য একটি মাত্র দিবস পেয়েই আপ্লুত । ধিক এসব গুটিকয় সুবিধাবাদী কেঁচো নারীবাদী দের ।

নারীর লড়াই একদিনের নয় তাই একদিন ঢাকঢোল পিটিয়ে সেমিনার সিম্পজিয়াম করলেই হবেনা । আপামর নারীর পক্ষে লড়তে হবে । আর এ লড়াইটা শুধুই নারীদের । নারীর উন্নয়ন শুধুমাত্র একজন নারীর অগ্রযাত্রা দিয়ে নয় । নারীর সামগ্রিক উন্নয়ন হতে হবে । সাফল্যের গল্পটা শুধু উপরতলার নারীর হবেনা । প্রান্তিক নারীর সাফল্যের গল্পটাও প্রচারে আনতে হবে । বাংলাদেশ এমন একটি দেশ হবে যেখানে একজন নারীও ধর্ষিত হবেননা । একজন নারীও যৌতুকের বলি হবেননা । একজন নারীকেও সন্তানের মুখে অন্ন তুলে দিতে পুরুষের বেশ ধারণ করতে হবেনা । একজন নারীও বিনা অপরাধে, কারাবন্দী থাকবেন না । প্রাপ্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হবেননা । আর তাই ২০২০ এর নারী দিবসের স্লোগান হোক সংগ্রামী নারীদের প্রতীক বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ।

মাহবুবা জেবিন
লন্ডন প্রবাসী লেখক,সাংবাদিক

Hits: 353


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ