আজকে

  • ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
  • ২৬শে মে, ২০১৮ ইং
  • ১০ই রমযান, ১৪৩৯ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

বাদুর পুর চা-বাগানে চতুর্থ ভ্রমন : নতুনত্বের জন্ম দেয়

Pub: শুক্রবার, এপ্রিল ২৭, ২০১৮ ২:৩৯ অপরাহ্ণ   |   Upd: শুক্রবার, এপ্রিল ২৭, ২০১৮ ২:৩৯ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

বাদুর পুর চা- বগানে প্রথম ভ্রমন করি ১৯৯৯ সনে। অামরা চারজন ছিলাম—–
বিদ্যুত রঞ্জন দেব নাথ, মাসুক উদ্দিন,এখন মধ্যপ্রাচ্য প্রবাসি,মুসলেহ উদ্দিন ও অামি।
পায়ে হেটে যাওয়ার পথে অামরা দেখে যাই, তারাধরম প্রাইমারি স্কুল।বিদ্যালয়টি নতুন। ইট সিমেন্টের বেড়া থাকলেও ভঙ্গুর দশা পরিলক্ষিত হয়।

অামরা পায়ে হেটে ঘণ্টা ২ হেটে হেটে ভ্রমন করি। মেইন রোড ধরে। উপজাতিয় মেয়েরা চা-পাতা তুলছে। মনে পড়ে সেটাই অামার জীবনে প্রথম চা- বাগান ভ্রমন।

তবে হ্যা,১৯৯৭ সনে বোবার পাহাড় ভ্রসন কালে ঝিঙাঅালা বাগান টি দেখেছি। উপজাতিয় চা-বাগানের মেয়েরা ক্যামেরায় অাসতে চায় না। অামরা ক্যামেরা করে হঠাৎ ঝামেলায় পড়ে গেলাম পরে, সব লিখছি।

ঝিঙা অালা চা-বাগান দিয়ে হেটে হেটে অফিস বাজার থেকে ৪/৫ মাইল পুব দিকে বোবার পাহাড়ে ঢুকার পথ।ঝিঙাঅালা বাগানটি বোবার পাহাড়ের উপকণ্ঠ। ২ ঘণ্টা পায়ে হাটলে বোবর বারঘরি বাজারে প্রবেশ করা যায়।

চা-বাগানের কাজের মেয়েদের ছবি ক্যামেরায় তুলে অামরা সমস্যাগ্রস্থ হয়ে পড়লাম। চা-বাগানের মেয়েরা,রেগে ওঠে, তেড়ে ওঠে। বলে, কে বলেছে, ক্যামেরা করবে? মেয়ে লোক,অামরা বলি,সা;বাদিক,পত্রিকায় দিব,ভাল হবে। শেষে তাদের লিডার এসে অামাদেরে মুক্ত করে।

বাদুর পুর চা-বাগান ১মবার ভ্রমন কালে হাতে কোন ক্যামেরা ছিল না। অানন্দভ্রমন করে করে অামরা সময় কাঠাই।

এবারের ভ্রমনকালে তারাধরম প্রাইমারি স্কুলের নতুন ভবণ দেখে অামরা মুগ্ধ। স্কুলের বারান্ধায় বসে অাছেন প্রধান শিক্ষক অাতাউর রহমান জাফরি। অধিক শিক্ষয়িত্রী বেষ্টিত বিদ্যালয়টি শিশুদের মেধা বিকাশে ভূমিকা রাখবে, কাম্য।তারাধরম প্রাইমারি স্বুলের প্রধান শিক্ষক জনাব অাতাউর রহমান জাফরী মৌলভি সাহেব যাত্রাপথে অামাদেরে স্বাগত জানালেন বিদ্যালয়টি পরিদশ’ন করতে। ফ্যাসিলিটিজ বিল্ডি;, সুন্দর, চিত্বাকষ’ক ও মনমুগ্ধকর। বহুদিন পরে তাদের বিদ্যালয়ের দু:খ ঘুচেছে।

তবে অামাদের অঞ্চলে একটি স্কুল সরকারিকরণ করতে এতদিন অপেক্ষা করতে হয় না।

তবে বড়লেখার ইতিহাসে প্রকৃতি যেন ময়ুরের পেখম মেলে দিয়েছে। বাগান অার বাগান। সাবাজপুর চা-বাগান,পাল্লাতল,অায়েশাবাগ অহিদাবাদ,কালিকাবাড়ি চা-বাগান। বড়লেখার শ্রেষ্ট সৌন্দয’ এশিয়ার শ্রেষ্ট, বিশ্ববিখ্যাত জলপ্রপাত মাধবকুণ্ড। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ অাসে মাধবকুণ্ডু জলপ্রপাত দেখতে।

বাদুরপুর চা-বাগানে এবারের চতুথ’ ভ্রমন ব্যতিক্রমধমি’। মালিক ও ম্যানেজার বাবুর নতুন বা;লায় প্রবেশ নিষিদ্ধ। নতুন বা;লার পথ ধরে ডান দিকের রাস্তা ধরে পুবদিকে গহিন অরণ্য। যে অরণ্যটা দেখার লোভ অামার দীঘ’দিনোর। এবার অনেকটা সাধ মিটলেও পূণ’ সাধ মিটে নাই। অামার ভ্রমন সাথি সাব্বির,অামার শ্যালক অানোয়ার হোসেন রওশন।

অাকিজ গ্রুপ অব ইণ্ড্রাট্রিজ বাগানটির মালিকানায়। পয’টকদের জন্য যে কোন বাগান মালিক উদার না হলে, জনতার অাকষ’ন না থাকলে অামরা যেতে পারি ? পারি না। অামরা বাগানের মালিক,কম’চারি চা-শ্রমিক সকলের সাফল্য কামনা করি। তারা খুব ভাল ব্যবহার দেখিয়েছে।

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1083 বার

 
 
 
 
এপ্রিল ২০১৮
রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
« মার্চ   মে »
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
 
 
 
 
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com