থানকুনি পাতার এতো গুণ!

Pub: মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০১৯ ১:৪৫ পূর্বাহ্ণ   |   Upd: মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০১৯ ১:৪৫ পূর্বাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমরা অনেকেই থানকুনি পাতা চিনি। গ্রামে যেখানে-সেখানে অযত্নে-অবহেলায় জম্মানো এ গাছের রয়েছে অনেক গুণাগুণ। 
থানকুনির রসে রয়েছে শরীরের জন্য প্রচুর উপকারী খনিজ ও ভিটামিন জাতীয় পদার্থ। থানকুনি নানা রোগ সারাতে দারুণ কার্যকরী। 

কোথায় পাওয়া যায়
উপকারী এই ভেষজ উদ্ভিদটি সাধারণত স্যাঁতস্যাঁতে পরিবেশেই বেশি জন্মে। তাই পুকুরপাড় বা জলাশয়ের পাশে থানকুনির দেখা মেলে বেশি। গ্রামাঞ্চলে বাড়ির আশেপাশে, রাস্তার পাশে কিংবা ক্ষেতের আইলে ছোট ছোট তারার মতো খাঁজকাটা এই পাতাগুলো দেখতে পাওয়া যায়। এখন শহরের বাজারগুলোতেও পাওয়া যায় থানকুনি পাতা।

১. শরীর সুস্থ রাখতে থানকুনির জুড়ি মেলা ভার। এটি শরীরের টক্সিন দূর করতে সহায়তা করে। এজন্য থানকুনির পাতা রস করে তাতে মধু মিশিয়ে খান। 

২. গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় সমাধান পেতে খেতে পারেন থানকুনি পাতা। সেজন্য আধা লিটার দুধে ২৫০ গ্রাম মিছরি এবং অল্প পরিমাণ থানকুনি পাতার রস মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। তারপর সেই মিশ্রণ থেকে অল্প অল্প করে নিয়ে প্রতিদিন সকালে খাওয়া শুরু করুন। 

৩. থানকুনি পাতা হজম বাড়াতে সাহায্য করে। 

৪. আমাশয় দূর করতেও থানকুনি পাতা দারুণ কাজ করে। এক্ষেত্রে প্রতিদিন সকালে খালি পেটে থানকুনি পাতার রস খেতে হবে। 

৫. জ্বর কমাতেও থানকুনি পাতা দারুণ কাজ করে। এজন্য ১ চামচ থানকুনি এবং ১ চামচ শিউলি পাতার রস মিশিয়ে সকালে খালি পেটে খেলে অল্প সময়েই জ্বর সেরা যায়। 

৬. থানকুনি পাতা ক্ষত সারাতে সাহায্য করে। 

৭. কাশি কমাতেও থানকুনির দারুণ ক্ষমতা রয়েছে। এক্ষেত্রে ২ চামচ থানকুনি পাতার রসের সঙ্গে অল্প করে চিনি মিশিয়ে খেলে সঙ্গে সঙ্গে কাশি কমে যায়। 

৮. ত্বকের সৌন্দর্য বাড়াতেও থানকুনি দারুণ ভূমিকা রাখে। থানকুনি পাতায় উপস্থিত অ্যামাইনো অ্যাসিড, বিটা ক্যারোটিন, ফ্য়াটি অ্যাসিড এবং ফাইটোকেমিকাল ত্বকে পুষ্টির ঘাটতি দূর করার পাশাপাশি বলিরেখা কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। 

৯. থানকুনি পাতা চুল পড়া কমায়। পরিমাণমতো থানকুনি পাতা নিয়ে তা থেঁতো করে নিতে হবে। তারপর তার সঙ্গে পরিমাণ মতো তুলসি পাতা এবং আমলকি মিশিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে। সবশেষে পেস্টটা চুলে লাগিয়ে ১০ মিনিট অপেক্ষা করে শ্যাম্পু করে ফেলুন। 


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ