সম্মেলন ঘিরে বিভক্তি, কী হবে ন্যাটোর ভবিষ্যত?

Pub: Tuesday, December 3, 2019 11:13 PM
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ন্যাটোর সম্মেলনের প্রস্তুতির মধ্যেই জোটভুক্ত সদস্য দেশগুলোর মধ্যে নানা বিষয়ে বিতর্ক বেড়েছে। জোটটির ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে লন্ডনে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে সম্মেলন। আর এটি ঘিরেই হয়েছে বিভক্তি। তুরস্ক ন্যাটো জোটের কাছে সন্ত্রাসবিরোধী যুদ্ধের সমর্থনে অটল রয়েছে। দেশটি বলছে, কুর্দিদের ‘সন্ত্রাসী সংগঠন’ বলে চিহ্নিত না করা তারা বাল্টিক রাষ্ট্রগুলোতে নেটোর প্রতিরক্ষা পরিকল্পনা সমর্থন করবে না। অন্যদিকে ন্যাটো এ বিষয়ে এখনো কথা দিচ্ছে না। সব মিলিয়ে সংশয়ে পড়েছে এ সামরিক জোটটির ভবিষ্যৎ।

সম্মেলনটির আয়োজক দেশ যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন জোটের অংশীদারদের মধ্যে একতার বিষয়টি গুরুত্ব দিচ্ছেন।

মঙ্গলবার থেকে দুদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে এ নেটো সম্মেলন।

এর আগে গতমাসে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁও ন্যাটো জোটের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে এ জোট ‘ব্রেন ডেড’ বলে মন্তব্য করেছিলেন। জোটের প্রতি ওয়াশিংটনের খামখেয়ালিপনা নিয়ে অভিযোগ করেছিলেন তিনি।

ম্যাক্রোঁর এ মন্তব্যর পর তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান উল্টো ম্যাক্রোকেই ‘ব্রেন ডেড’ বলে আক্রমণ করেন। সন্ত্রাস সম্পর্কে ম্যাক্রোঁ অজ্ঞ বলে অভিযোগ করেন এরদোগান।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর ন্যাটো জোটে ইউরোপীয় দেশগুলোর যথেষ্ট অবদান না রাখা নিয়ে তার বার বার সমালোচনার কারণে জোটের সদস্যদের মধ্যে উত্তপ্ত বিতর্ক বেড়েছে।

ম্যাক্রোঁ এবং এরদোগান দুইজনই এবারের সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন। থাকবেন জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেলও। জোটের নেতারা এরই মধ্যে লন্ডনে সমবেত হতে শুরু করেছেন।

আর ঠিক এ সময়ই ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সেই ‘ব্রেন ডেড’ মন্তব্যর কড়া সমালোচনা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সম্মেলনের প্রাক্কালে লন্ডনে সাংবাদিকদের সঙ্গে ম্যাক্রোঁর ওই মন্তব্যকে খুবই জঘন্য আখ্যা দিয়েছেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, ম্যাক্রোঁর বক্তব্য ন্যাটো জোটের জন্য অপমানজনক। তিনি এভাবে বলতে পারেন না।

জোটের সদস্যদেশগুলোর নেতাদের মধ্যে এমন উত্তেজনা এবং বিরোধপূর্ণ পরিস্থিতিতে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী জনসন চাইছেন ইউরো-আটলান্টিক অঞ্চলের কোটি কোটি মানুষের নিরাপত্তার বিষয়টিকে সর্বাগ্রে প্রাধান্য দিয়ে জোটের অংশীদাররা যেন নিজেদের সব বিভাজন ভুলে যান। সম্মেলনে জনসন তাই সবাইকে একতাবদ্ধ থাকার আহ্বানই জানাবেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ