ডেঙ্গু মহামারি ধারণ করছে: আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম

Pub: বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১, ২০১৯ ১২:৪৩ অপরাহ্ণ   |   Upd: বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১, ২০১৯ ১২:৪৩ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

প্রতিদিন বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী। সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে কানায় কানায় পূর্ণ হয়েছে গেছে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীতে। সরকারি হিসাবে থেকে ১৪ জন মৃত্যুর তথ্য দিলেও বিভিন্ন সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান এই সংখ্যা অনেক দাবি করছে।

বাংলাদেশের এই ডেঙ্গু পরিস্থিতি মহামারি আকার ধারণ করছে বলে সংবাদ প্রকাশ করছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো। তারা ডেঙ্গুতে মৃত্যু ও আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা নিয়ে উদ্বেগও প্রকাশ করেছে। 

যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, তুরস্ক, ভারত, জার্মান, রাশিয়া ও চীনসহ বিভিন্ন দেশ থেকে প্রকাশিত সংবাদমাধ্যমে রোগীর সংখ্যা, সরকারি ও বেসরকারি হিসাবে মৃতের সংখ্যার পার্থক্য, পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকারের ব্যর্থতা ও এ নিয়ে ভীতি ছড়িয়ে পড়ার তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

ভিডিও প্রতিবেদনে জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়চে ভেলে ওয়ার্ল্ড সার্ভিস বলছে,  হাসপাতালের বেডে রোগীদের স্থান সংকুলান হচ্ছে না। আক্রান্তদের মেঝেতে আশ্রয় দিতে বাধ্য হয়েছে কর্তৃপক্ষ।আক্রান্তদের মধ্যে শিশুদের সংখ্যাই বেশি। শিশুরা স্কুলে গিয়ে আক্রান্ত হচ্ছে।

এশিয়া নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘মানুষের মধ্যে ডেঙ্গু আতঙ্ক বিরাজ করছে। কোনো ধরনের লক্ষণ দেখা দিলেই তারা হাসপাতালে ছুটছেন। ঢাকার হাসপাতালগুলোতে প্রতিদিন শত শত মানুষ ভিড় জমাচ্ছেন। আক্রান্তদের জন্য শয্যার ব্যবস্থা করতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতালগুলো।’

চীনা সংবাদমাধ্যম সিনহুয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘সহসা ডেঙ্গু রোগের ভাইরাসের প্রকোপ কমার সম্ভাবনা কম। কারণ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এ রোগের ভাইরাসবাহী এডিস মশার প্রজনন প্রক্রিয়া চলতে থাকে। এ  রোগের বিস্তার ঠেকাতে মশার বংশবিস্তারের এলাকা যথাযথভাবে শনাক্ত ও ধ্বংস করার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন আইইডিসিআর’র পরিচালক মীরজাদী সাবরিনা। 

যুক্তরাজ্যের দ্য ইন্ডিপেনডেন্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের ডেঙ্গু পরিস্থিতি ‘অতীতের যে কোনও সময়ের চেয়ে খারাপ অবস্থায়’ পৌঁছেছে। বছরের শুরু থেকে এ পর্যন্ত ১৩ হাজার মানুষ ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে। যে কারণে কর্তৃপক্ষ এ নিয়ে জনসচেতনতামূলক প্রচার শুরু করতে বাধ্য হয়েছে।

বাংলাদেশের রোগ নিয়ন্ত্রণ বিভাগ ডেঙ্গুর প্রকোপ ঠেকাতে মশার বংশ বিস্তার কমানো ও নিয়ন্ত্রণের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সহায়তা চেয়েছে বলে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রুশ টেলিভিশন আরটি।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ