‘বাদশা’কে নিয়ে বিপাকে ইদ্রিস মিয়া

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ঢাকা : রাজধানীর গাবতলীর পশুর হাটে ঈদের দিনেও চলছে গরু বেচাকেনা। এবারের গরু সংকটের সময়ও হাটের সবচেয়ে বড় গরু ‘বাদশা’ বিক্রি হয়নি। তাকে নিয়ে বিপাকে পড়েছেন মালিক নরসিংদীর ইদ্রিস মিয়া। আবার ইজারাদারদের ‘বিক্রির’ চাপে গরুটি নিয়ে বাড়িতেও যেতে পারছেন না তিনি।

আজ শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে গাবতলী পশুর হাটে কথা হয় প্রায় ৩৫ মণ ওজনের বাদশা নামের গরুটির মালিক ইদ্রিস মিয়ার সঙ্গে।গণমাধ্যমকে  তিনি বলেন, ‘গত পাঁচ বছর এ গরুটিকে লালনপালন করছি। এ গরুটি নরসিংদীতে আট লাখ টাকা দাম বলেছে। কিন্তু বিক্রি করিনি। গাবতলীর বাজারে নিয়ে এসে বিপাকে পড়েছি। মানুষ শুধু দাম জিজ্ঞাসা করে চলে যায়। দু-একজন চার লাখ টাকা পর্যন্ত দাম বলেছে। এখনো বিক্রি করতে পারিনি।’

ইদ্রিস মিয়া বলেন, ‘বিক্রি করতে না পেরে বাসায় যেতে চাই। কিন্তু সেটাও পারছি না। ইজারাদাররা আমাকে গরু নিতে দেয় না। তাদের কথা, গরু বিক্রি করে তবেই হাট থেকে যেতে হবে। তারা বাজার থেকে গরু নেওয়ার জন্য রসিদ দিচ্ছে না। রসিদ ছাড়া গরুও নিতে পারছি না। আমি হতাশ হয়ে পড়েছি। এখানে গরু রাখা ঝুঁকিপূর্ণ। গরমে আমার গরুটি যেকোনো সময় স্ট্রোক করে মারা যেতে পারে।’

কান্নাজড়িত কণ্ঠে এভাবে বলে যাচ্ছিলেন ইদ্রিস মিয়া। বলেন, ‘ভাই, আমার ১০ বছরের সম্বল। আমি গরুটি বিক্রি করতে না পেরে কষ্টে আছি। এখন ইজারাদারদের ফাঁদে পড়ে শেষ সম্বল হারিয়ে যাওয়ার অবস্থা। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’

এদিকে ঈদের আগের দিন পশুর হাটে পর্যাপ্ত গরু না থাকায় অনেকেই কোরবানির জন্য গরু কিনতে পারেননি। এতে কোরবানি নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়ে যান অনেকে। ঈদের দিন অনেকেই পশু কোরবানি দিতে পারছেন না। তবে রাজধানীর হাটগুলোতে ঈদের দিন চলছে গরু বেচাকেনা। এতে ঈদের দ্বিতীয় দিন পশু জবাইয়ের আশায় স্বস্তিতে ক্রেতারা।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ফোনঃ +৪৪-৭৫৩৬-৫৭৪৪৪১
Email: info.skhobor@gmail.com
স্বত্বাধিকারী কর্তৃক sheershakhobor.com এর সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত