শিশুদের শিক্ষাখাতে বরাদ্দ বাড়ানো প্রয়োজন: সেভ দ্য চিলড্রেন

Pub: বৃহস্পতিবার, মে ১৬, ২০১৯ ৮:৪৬ অপরাহ্ণ   |   Upd: বৃহস্পতিবার, মে ১৬, ২০১৯ ৮:৪৬ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জাতীয় বাজেটে শিক্ষাখাতের বরাদ্দ স্থবির হয়ে পড়েছে উল্লেখ করে বেসরকারি সংস্থা সেভ দ্য চিলড্রেন বলেছে, শিশুদের শিক্ষাখাতের বরাদ্দ নির্দিষ্ট অংকের মধ্যেই সীমাবদ্ধ। এটা বাড়ছে না। এ খাতে বরাদ্দ বাড়ানো প্রয়োজন।

বৃহস্পতিবার (১৬ মে) বিকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সালাম হলে এক সংবাদ সম্মেলন এসব তথ্য জানায় সংস্থাটি।

সংবাদ সম্মেলনে বাজেটের সুপারিশ উপস্থাপন করে সেভ দ্য চিলড্রেনের চাইল্ড রাইটস গভর্নেন্স অ্যান্ড চাইল্ড প্রোটেকশন সেক্টরের গভর্নেন্স ও পাবলিক ফাইন্যান্স বিভাগের উপপরিচালক আশিক ইকবাল বলেন, ‘বিগত কয়েক অর্থবছরের বাজেট পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, মূল বাজেটের ১১-১২ শতাংশের মধ্যেই সীমাবদ্ধ শিশুদের শিক্ষা বাজেট। ২০১৭-১৮ অর্থবছরের তুলনায় ২০১৮-১৯ এ বরাদ্দ কমে এখন তা সমগ্র বাজেটের মাত্র ১১.৪ শতাংশে দাঁড়িয়েছে, যেখানে ইউনেসকোর সুপারিশ হল ২০ শতাংশ। অথচ সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় মানবসম্পদকে উন্নয়নের মূল খুঁটি হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে তাই আরও বেশি বরাদ্দ থাকা চাই।’ 

২০২৫ সালের মধ্যে ইউনেসকো প্রস্তাবনার পর্যায়ে পৌঁছানোর জন্য শিক্ষাখাতে বরাদ্দ প্রতি বছর বাজেটের শতাংশে ১.৫ শতাংশ হারে বাড়ানো প্রয়োজন বলেও মনে করেন তিনি।

সংস্থাটি বলছে, শিশু অধিকারের প্রেক্ষাপট গেল এক বছরে তেমন বদলায়নি। তবে এ পরিস্থিতি উন্নয়নে আর্থিক সক্ষমতা বেড়েছে। গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ অনুযায়ী, বর্তমান সরকারের তৃতীয় মেয়াদের প্রথম বাজেট হতে যাচ্ছে পাঁচ লক্ষ কোটি টাকারও বেশি, যা গতবারের চেয়ে প্রায় ১১ শতাংশ বেশি। বাংলাদেশে শিশু অধিকার বাস্তবায়নে এবং টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আসন্ন জাতীয় বাজেটে (২০১৯-২০) থাকা চাই সুনির্দিষ্ট বরাদ্দ ও দিকনির্দেশনা।

শিশু স্বাস্থ্যখাতে বাজেট বরাদ্দ কমেছে উল্লেখ করে আশিক ইকবাল বলেন, ‘সমগ্র বাজেটের অংশ বিবেচনায় স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ কমছে, যা উদ্বেগজনক। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ ছিল মূল বাজেটের ৫ দশমিক ২ শতাংশ, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে যা হয়েছে ৫ শতাংশ। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রায় স্বাস্থ্য বিষয়ক অগ্রগতি ধরে রাখতে, এ খাতে উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বরাদ্দ বাড়ানো প্রয়োজন। শিশু স্বাস্থ্য খাতের অবকাঠামোর সম্প্রসারণ ও গুণগত উন্নয়নে বরাদ্দ রাখতে হবে।’

এসময় সংস্থাটির পক্ষ থেকে কয়েকটি সুপারিশ তুলে ধরা হয়। এর মধ্যে রয়েছে- শিক্ষা ও স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ বাড়ানো, শিশু সুরক্ষা কার্যক্রম আরও শক্তিশালী করা এবং বিশেষ ঝুঁকিতে থাকা (যৌনপল্লী কিংবা পথে বসবাসরত শিশু) শিশুদের জন্য সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রমের আওতা ও বরাদ্দ বৃদ্ধি। 

এছাড়া শিশুমৃত্যু রোধে সাফল্য ধরে রাখতে কমবয়সী শিশুদের পুষ্টি নিশ্চিতে জোর দিতে হবে। এক্ষেত্রে স্কুলে মিড-ডে মিল সরবরাহ খুবই কার্যকর। এজন্য বাজেটে আরও বরাদ্দ রাখতে হবে, বিশেষ করে সুবিধাবঞ্চিত অঞ্চলগুলোতে। শিশুদের মধ্যে অপুষ্টির হার বেশি এমন অঞ্চলগুলোতে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে বিশেষ কর্মসূচির বরাদ্দ রাখতে হবে বলেও জানায় সেভ দ্য চিলড্রেন।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, প্রতিষ্ঠানটির চাইল্ড রাইটস গভর্নেন্স অ্যান্ড চাইল্ড প্রোটেকশন সেক্টরের পরিচালক আবদুল্লাহ আল মামুন, সিনিয়র ম্যানেজার খালেদা আকতার,সিভিল সোসাইটি অ্যান্ড পলিসি অ্যাডভোকেসি ম্যানেজার রাশেদা আক্তার, ম্যানেজার- সোস্যঅল অ্যাকাউন্টেবিলিটি শেখ রহমত উল্লাহ রুমি ও অন্যান্য কর্মীরা। 


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1069 বার