খালেদা জিয়ার জামিন বহাল

Pub: বুধবার, মে ১৬, ২০১৮ ১:৩৮ অপরাহ্ণ   |   Upd: বৃহস্পতিবার, মে ১৭, ২০১৮ ৯:২৭ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে দেয়া হাইকোর্টের জামিন বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। জামিন বাতিল চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা আপিল বুধবার খারিজ করে এই রায় দেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ।

একইসঙ্গে নিম্ন আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়া ও দুদকের করা আপিল আগামী ৩১ জুলাই এর মধ্যে নির্দেশ দেন সর্বোচ্চ আদালত। খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টে জামিন দেয়া বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চকে এই নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

খালেদা জিয়ার মামলাটি আপিল বিভাগের কার্যতালিকার শীর্ষে ছিল। সকাল ৯টা ৫ মিনিটে আদালতের কার্যক্রমের শুরুতেই এই রায় দেন আদালত।

এ সময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খানসহ বিএনপিপন্থী সিনিয়র আইনজীবীরা আদালত কক্ষে উপস্থিত ছিলেন। পরে খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা জানিয়েছেন, তাকে অন্য আরও কয়েকটি মামলায় শ্যোন অ্যারেস্ট দেখানোয় আপাতত মুক্তি মিলছে না তার।

এর আগে গত ৮ ও ৯ মে দুটি আপিল আবেদনের উপর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। শুনানি শেষে ১৫ মে রায়ের জন্য দিন ধার্য করেছিলেন আপিল বিভাগ। পরে তা একদিন পিছিয়ে আজকের দিন ধার্য করা হয়। সে অনুযায়ী আদালত আজ এই আদেশ দিলেন।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর পুরান ঢাকার বকশিবাজারের আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে অস্থায়ী বিশেষ জজ আদালত-৫-এর বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামানের আদালত খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। রায়ে তারেক রহমানসহ বাকিদের ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সেদিন থেকেই খালেদা জিয়া নাজিম উদ্দিন রোডের পুরানো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি আছেন।

এই মামলায় খালেদা জিয়া হাইকোর্টে আপিল করলে গত ১২ মার্চ হাইকোর্ট চার মাসের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন পান। পরদিন ১৩ মার্চ জামিন স্থগিত চেয়ে চেম্বার বিচারপতি আদালতে আবেদন করেন রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদক। ওইদিন চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর জামিন আদেশ স্থগিত না করে আবেদন দুটি শুনানির জন্য আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন।

এরপর ১৪ মার্চ হাইকোর্টের দেয়া চার মাসের জামিন আদেশ ১৮ মার্চ পর্যন্ত স্থগিত করেন আপিল বিভাগ। ওই সময়ের মধ্যে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষকে নিয়মিত আপিলের আবেদন (লিভ টু আপিল) করার নির্দেশ দেয়া হয়। আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী, লিভ টু আপিল করে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষ।

পরে ১৯ মার্চ আপিল বিভাগ দুটি আপিলই শুনানির জন্য গ্রহণ করেন। আপিল নিষ্পত্তি হওয়া পর্যন্ত জামিনও স্থগিত করেন সর্বোচ্চ আদালত।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1103 বার