আগামী নির্বাচনে বিএনপির চূড়ান্ত বিদায় সম্পন্ন হবে’

Pub: শুক্রবার, আগস্ট ৩১, ২০১৮ ৯:৪০ অপরাহ্ণ   |   Upd: শুক্রবার, আগস্ট ৩১, ২০১৮ ৯:৪০ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিএনপি ও এর চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে রাজনীতির বাইরে রাখতে হবে বলে মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী ও জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, আগামী নির্বাচনে দলটির চূড়ান্ত বিদায় সম্পন্ন করতে হবে।

নিরপেক্ষ কিংবা সবার অংশগ্রহণে নির্বাচনের নামে খালেদা জিয়াকে রাজনীতির মাঠে ফিরিয়ে আনার যেকোনো সমঝোতা প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করছেন তিনি।

আজ শুক্রবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) জাতীয় কমিটির সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

তথ্যমন্ত্রী সভায় বলেন, ‘বাংলাদেশে স্থায়ী রাজনৈতিক শান্তি যদি চান, বাংলাদেশকে যদি আরেক ধাপ সামনে এগোতে চান, তাহলে আগামী নির্বাচনে খালেদা ও রাজাকারের চূড়ান্ত বিদায় দিতে হবে। এই নির্বাচনেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে, বাংলাদেশে ২০০৮ সালের পরে যে ছেদ ঘটনা শুরু হয়েছে ৭৫-এর দুষ্করদের সঙ্গীদের সঙ্গে, সেটা এই নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সম্পূর্ণ করতে হবে।’

হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘বাংলাদেশের রাজনীতি থেকে রাজাকার ও রাজাকারের পৃষ্ঠপোষক বিএনপি খালেদা চক্রকে সম্পূর্ণভাবে বাইরে রাখতে হবে এবং বাদ দিতে হবে। সমঝোতার নামে বিএনপি ও খালেদার সঙ্গে কোনো ধরনের মিটমাট বা সমঝোতার অবকাশ নাই।’

‘নিরপেক্ষ নির্বাচনের নামে, সমঝোতার নামে, মিটমাটের নামে, সবার অংশগ্রহণের নামে খুনিদের রেহাই দেওয়া, দণ্ডিত খালেদা জিয়াকে রাজনীতির মাঠে ফিরিয়ে আনা এবং সাম্প্রদায়িক জঙ্গি জামায়াতচক্রকে রাজনীতির মাঠে টিকিয়ে রাখার দর-কষাকষির প্রস্তাব আমি সম্পূর্ণরূপে প্রত্যাখ্যান করছি।’ বলেন ইনু।

আগামী জাতীয় নির্বাচন বাংলাদেশের মোড় বদলানোর জন্য গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘২০১৮ সালের নির্বাচনটি এ কারণেই গুরুত্বপূর্ণ যে, এ নির্বাচন বলে দেবে বাংলাদেশ কি আবার অস্থিতিশীল অস্বাভাবিক পথে চলে যাবে, নাকি ২০০৮ সালের পর যে পরিবর্তন সূচনা হয়েছে, যে উন্নয়নের ধারা চলছে, যে সাংবিধানিক ধারা চলছে সেই ধারাটা টেকসই করতে হবে এটাই সবচেয়ে গুরত্বপূর্ণ বিষয়।’

মহাজোটের ঐক্য প্রসঙ্গে জাসদের এই নেতা বলেন, ‘জঙ্গি-রাজাকার ও এদের পৃষ্ঠপোষকমুক্ত রাজনীতির চূড়ান্ত বিজয়ের জন্য শেখ হাসিনার নেতৃত্ব ও মহাজোটের ঐক্য বজায় রাখতেই হবে। আমি মনে করি, আগামী নির্বাচনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে মহাঐক্য এই রাজনৈতিক লক্ষ্য অর্জন করবে। এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে আর রাজাকারের সরকার হবে না, জঙ্গি সন্ত্রাস চলবে না।’

নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) প্রসঙ্গে জাসদের মতামত জানতে চাওয়া হয় তথ্যমন্ত্রীর কাছে। জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচনে ইভিএম থাকবে কি থাকবে না এটা আলোচনার বিষয়। এটি রাজনীতির মূল বিষয় নয়।’


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1061 বার