সংলাপের আগে শমসের মুবিনের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর ৫০ সেকেন্ড!

Pub: শনিবার, নভেম্বর ৩, ২০১৮ ২:১৬ পূর্বাহ্ণ   |   Upd: শনিবার, নভেম্বর ৩, ২০১৮ ২:১৬ পূর্বাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শুক্রবার রাতে গণভবনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ১৪ দল ও বি. চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্টের সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। রাত পৌনে ৮টায় সংলাপ শুরু হয়ে শেষ হয় পৌনে ১১টায়। তিন ঘণ্টার এ সংলাপকে উভয় পক্ষই ফলপ্রসূ বলেছে।

জাতীয় নির্বাচন নিয়ে ১ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া এ সংলাপকে ঘিরে আগ্রহ দেশি বিদেশি সব গণমাধ্যমের। সারা বিশ্বের চোখ যেন গণভবনে। যার কারণে গণমাধ্যম কর্মীরাও খুটিয়ে খুটিয়ে এ সংলাপের ভেতরকার সব খবর দিয়েছেন। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের খাবারের ছবিও বাদ যায়নি।

আগ্রহের যায়গা থেকে দ্বিতীয় দিনের সংলাপে গণমাধ্যম কর্মীদের চোখে পড়ে বিএনপি থেকে পদত্যাগ করে সদ্য বিকল্পধারায় যোগ দেয়া শমসের মুবিন চৌধুরীর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একান্ত কথোপকথন। সবাইকে বসতে বলে নিজ আসন থেকে এগিয়ে গিয়ে শমসের মুবিন চৌধুরীর সঙ্গে কী কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী? এমন কৌতূহল সবারই।

ঘটনার সূত্রপাত এভাবে— বি. চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্টের নেতারা সংলাপের জন্য প্রস্তুত। ১৪ দলের নেতারাও আসন গ্রহণ করেছেন। ঘড়ির কাটায় ৭টা ৪০ কী ৪২ মিনিট হবে। এমন সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংলাপস্থল ব্যাঙ্কোয়েট হলে প্রবেশ করলেন। সবাই দাঁড়িয়ে তাকে স্বাগত জানান।

পূর্ব প্রস্তুতির অংশ হিসেবে বি চৌধুরী ও মেজর (অব.) মান্নানসহ যুক্তফ্রন্টের নেতারা তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান। পরে সংক্ষিপ্ত ও অনানুষ্ঠানিক কুশলাদি বিনিময় হয়। এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী সকলকে বসতে বলেন। বি চৌধুরী বলেন, ‘আপনি প্রধানমন্ত্রী, আপনি আগে বসেন।’ জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি আজ প্রধানমন্ত্রী না, হোস্ট।’

তখন সবাই বসছিলেন। এসময় নিজের দাঁড়ানো যায়গা থেকে একটু এগিয়ে শমসের মুবিন চৌধুরীর সামনে যান শেখ হাসিনা। তার সামনে দাঁড়িয়ে ৫০ সেকেন্ড কথা বলেন।

কথার মাঝে প্রধানমন্ত্রীকে ‘জানতাম না তো’ এমন ভঙ্গি করতে দেখা গেছে। এক পর্যায়ে লিখে দেয়ার জন্য হাতে ইশারা করেন।

যদিও প্রধানমন্ত্রী ও শমসের মুবিন চৌধুরীর কথোপকথনে কী ছিল তা জানা যায়নি। তবে কথোপকথনে মনে হয়েছে গুরুত্বপূর্ণ কোনো তথ্য শেয়ারিং এবং খোঁজখবর দেয়া-নেয়া হয়েছে।

এর আগে সন্ধ্যা ৭টা ৪৪ মিনিটে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের সঙ্গে যুক্তফ্রন্টের সংলাপ শুরু হয়।

সংলাপে ১৪ দলীয় জোটের ২৩ সদস্যের নেতৃত্ব দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিপরীতে যুক্তফ্রন্টের ২১ সদস্যের নেতৃত্ব দেন জোট নেতা ও বিকল্পধারার চেয়ারম্যান ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী।

সংলাপে অংশ নিতে শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বি. চৌধুরীরা গণভবনের ব্যাংকোয়েট হলে প্রবেশ করেন।

সংলাপে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোটের ২৩ নেতা উপস্থিত ছিলেন। তারা হলেন, দলনেতা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমদ, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, মোহাম্মদ নাসিম, ড. আবদুর রাজ্জাক, কাজী জাফর উল্যাহ, রমেশ চন্দ্র সেন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি, আবদুর রহমান, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, আইনবিষয়ক সম্পাদক শ ম রেজাউল করিম, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু ও জাসদের একাংশের সভাপতি মইন উদ্দীন খান বাদল।

আর যুক্তফ্রন্টের ২১ নেতা সংলাপে উপস্থিত ছিলেন। তারা হলেন, দলনেতা ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, বিকল্পধারার মহাসচিব মেজর (অব.) আব্দুল মান্নান, প্রেসিডিয়াম সদস্য শমসের মবিন চৌধুরী, গোলাম সারোয়ার মিলন, আবদুর রউফ মান্নান, ইঞ্জিনিয়ার মুহম্মদ ইউসুফ, সহ-সভাপতি মিসেস মাহমুদা চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার ওমর ফারুক, সহ-সভাপতি মাহবুব আলী, সাবেক সংসদ সদস্য এইচ এম গোলাম রেজা, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) সভাপতি জেবেল রহমান গাণি, মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, বিএলডিপি সভাপতি নাজিম উদ্দিন আল আজাদ, মহাসচিব অ্যাডভোকেট দেলোয়ার হোসেন খান, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এনডিপি) চেয়ারম্যান খোন্দকার গোলাম মোর্ত্তজা, জাতীয় জনতা পার্টির সভাপতি শেখ আসাদুজ্জামান, বাংলাদেশ জনদলের চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান জয় চৌধুরী, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ইউনাইটেড মাইনরিটি ফ্রন্টের চেয়ারম্যান দীলিপ কুমার দাস, লেবার পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হামদুল্লাহ আল মেহেদী, সাবেক এমপি মজহারুল হক শাহ চৌধুরী ও এনডিপি’র মহাসচিব মো. মাযহারুল হোসেইন ঈসা।

গত ৩১ অক্টোবর বিকল্পধারার চেয়ারম্যান বি. চৌধুরী সংলাপ চেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি দেন। এরপর গণভবনে তাদের শুক্রবার সংলাপের আমন্ত্রণ জানিয়ে চিঠি দেয় আওয়ামী লীগ।

এরআগে বৃহস্পতিবার রাতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের সাথে সংলাপ করে ক্ষমতাসীন জোট। শুক্রবার বি চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্টের নেতাদের সঙ্গে সংলাপ হলো। ৫ নভেম্বর জাতীয় পার্টি ও ৮ নভেম্বর বাম দলগুলোর সঙ্গে সংলাপে বসবে ১৪ দল।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1439 বার