fbpx
 

আমার বাবাকে ফেরত চাই

Pub: বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮ ৪:৪১ অপরাহ্ণ   |   Upd: বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮ ৪:৪১ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমার বাবাকে ফেরত চাই! কান্না ভরা কণ্ঠে এভাবেই বাবাকে ফেরত চাইছে ৮ বছরের শিশু সুমাইয়া।

বৃহস্পতিবার (১৩ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে নিখোঁজ কুষ্টিয়া জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ সাজ্জাত হোসেন সবুজের সন্ধানের দাবিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এভাবেই আকুতি জানায় তার ৮ বছরের শিশুকন্যা।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হয়ে শেখ সাজ্জাত হোসেন সবুজের স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস জিনিয়া বলেন, ‘গত ২১ আগস্ট ২০১৫ সাল থেকে সবুজ নিখোঁজ রয়েছে। তবে গত ২০ আগস্ট ২০১৮ সা‌লে সর্বশেষ আমার স্বামীর সাথে কথা হয়। তখন গাজীপুর জেলার মাওনা এলাকার ড্রিম স্কয়ার রিসোর্ট কর্তৃপক্ষ আমাকে ফোনে জানায়। র‌্যাব সদস্যরা ওই রিসোর্টে প্রধান ফটকের তালা কেটে নৈশ প্রহরীদের বেঁধে রেখে রিসোর্ট মালিক মনিরুজ্জামানকে আটক করে এবং সেখান থেকে কুষ্টিয়া জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আখতারুজ্জামান লাবু ও সবুজকে আটক করে নিয়ে যায়। পরবর্তীকালে লাবুকে ছেড়ে দিলে তার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন কিছু জিজ্ঞাসা করো না আমি কিছুই বলতে পারব না।’

তিনি বলেন, ‘গত ১৫ই আগস্ট ২০১৫ সালে শোক দিবসের দলীয় কর্মসূচি পালনের জন্য সবুজ ও লাবু মজমপুর ম্যুরাল চত্ত্বরে জেলা আওয়ামী লীগের সাথে যোগ দেয়। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণসহ দলীয় কর্মসূচির একেবারে শেষমুহূর্তে সবুজ এবং লাবু দলীয় কর্মী সমর্থকদের সাথে নিয়ে মজমপুর বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল চত্বর ত্যাগ করার সময় পর্নোগ্রাফির ঘটনায় কুষ্টিয়া শহর আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক মোমিনুর রহমান মোমিজ ও তার ক্যাডার বাহিনী আতর্কিত হামলা চালায়। এসময় মোমিজের বেয়াই সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা আনিসুর রহমান আনিস মোমিজের শটগান নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর গুলি ছোড়ে এ ঘটনার সময় সবুজ নামের একজন ছুরিকাঘাতে খুন হয়। সবুজের খুনের ঘটনায় শেখ সাজ্জাত হোসেন সবুজকে প্রধান আসামি এবং আমার দেবর আরিফুর রহমান সজীব এবং মামাশ্বশুর দুলালকেও আসামি করা হয়।’

১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের সাথে তার স্বামী সবুজ এবং দেবর কোনোভাবে সম্পৃক্ত নয় দাবি করে তিনি বলেন, ‘আমার স্বামী সবুজ জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে ছিলেন এক মিনিটের জন্য তি‌নি নেতৃবৃন্দের কাছ থেকে অন্যত্র যাননি। ঘটনার সময় সাংবাদিকদের ধারণকৃত ভিডিও ফুটেজ দেখলেই এর প্রমাণ পাবেন।’

তিনি বলেন, ‘এ হত্যাকাণ্ড পূর্ব পরিকল্পিত তা না হলে আমার প্রশ্ন হচ্ছে দল থেকে বহিস্কৃত মো‌মিজ এতদিন পর ওই শোক মিছিলে কেন অংশ নিল?’ এ সময় তিনি প্রশাসনকে সবুজ হত্যাকাণ্ডের সঠিক তদন্ত দাবিও জানান।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হয়ে শেখ সাজ্জাত হোসেন সবুজের মা সা‌হিদা বেগম প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ জানিয়ে বলেন, ‘আপনিও একজন স্বজনহারা, স্বজনহারানোর কত যে কষ্ট আপনি তা বুঝেন । আমার কষ্টটাও নিঃসন্দেহে আপনি বুঝবেন। তাই আমার ছেলেকে ফিরিয়ে দিন।’

তিনি আরও ব‌লেন, ‘আমার ছেলে যদি কোনো দোষ করে থাকে তাহলে তাকে শাস্তি দিন, ফাঁসি দিন, গ্রেফতার করেন, তারপরও আমার ছেলেকে আমাদের সামনে নিয়ে আসুন।’

সংবাদ সম্মেলনে শেখ সাজ্জাত হোসেন সবুজের ছেলে প্রেমও উপস্থিত ছিলেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ